default-image

একধরনের হতাশা দিয়েই নতুন বছর শুরু হয়েছিল ঢাকার চলচ্চিত্রের। প্রথম মাসে মাত্র একটি ছবি মুক্তি পায়। কিন্তু ফেব্রুয়ারিতে এসে সেই হতাশা অনেকটাই কেটে যায়। মাসজুড়ে তারকাসমৃদ্ধ ছোট-বড় বাজেটের পাঁচটি ছবি মুক্তির তালিকায় আছে। এরই মধ্যে দুটি ছবি মুক্তি পেয়েছে। ১৫ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পাচ্ছে আরও দুটি ছবি—‘রাত্রির যাত্রী’ ও ‘ফাগুন হাওয়ায়’। ২২ ফেব্রুয়ারি মুক্তি পাবে ‘অন্ধকার জগত’।

ফেব্রুয়ারির মতো মার্চেও ছবি মুক্তির সংখ্যার দিক দিয়ে সিনেমাপ্রেমী, দর্শক ও হলমালিকদের জন্য সুখবর আছে। মাসজুড়ে শাকিব খানসহ তারকাসমৃদ্ধ বড় বাজেটের চারটি ছবি মুক্তির কথা। প্রযোজক সমিতির মুক্তির নিবন্ধন খাতা থেকে জানা গেছে, আগামী ৮ মার্চ নারী দিবসের বিশেষ দিনে তাহসান, তাসকিন রহমান ও কলকাতার শ্রাবন্তী অভিনীত ‘যদি একদিন’ মুক্তি পাচ্ছে। একই দিন তাসকিন রহমান ও শেমন্তি সৌমী অভিনীত ‘বয়ফ্রেন্ড’ ছবিটিও মুক্তি পাচ্ছে। ডনগিরি মুক্তি পাচ্ছে ১৫ মার্চ। বাপ্পী চৌধুরী, মিলন ও নবাগত এমিয়া এমি অভিনীত ছবিটি এর আগে গত বছরের নভেম্বর ও ডিসেম্বর মাসে দুবার মুক্তি পিছিয়েছে। তবে এবার নির্ধারিত দিনেই ‘ডনগিরি’ মুক্তি পাবে—এটি চূড়ান্ত বলে জানিয়েছেন ছবির পরিচালক শাহ আলম মণ্ডল। ২২ মার্চ মুক্তি পাচ্ছে শাকিব খান, নুসরাত ফারিয়া ও নবাগত রোদেলা অভিনীত বড় বাজেটের সিনেমা ‘শাহেনশাহ’। একই দিন যৌথ প্রযোজনার ছবি ‘প্রেম আমার ২’ মুক্তির কথা আছে। এই ছবিতে অভিনয় করেছেন বাংলাদেশের পূজা চেরি ও ভারতের কলকাতার আদ্রিত।

‘শাহেনশাহ’ সেন্সরে জমা না হলেও প্রেম আমার ২ গত সোমবার সেন্সর ছাড়পত্র পেয়েছে। এ ব্যাপারে শাহেনশাহ ছবির পরিচালক শামীম আহমেদ রনি বলেন, ‘২২ মার্চ আসতে এখনো অনেক দিন বাকি। এর মধ্যে সবকিছু প্রস্তুত করে ফেলব।’

default-image

চলচ্চিত্রের এই সংকটের মধ্যেও খানিকটা আশার আলো দেখছেন হল মালিক সমিতির সভাপতি ও প্রযোজক ইফতেখার উদ্দিন নওশাদ। তিনি বলেন, ‘ফেব্রুয়ারি মাসে মুক্তির তালিকায় থাকা ছবির সংখ্যা ভালোই। এর মধ্যে যে দুটি ছবি মুক্তি পেয়েছে, তাতে তেমন ব্যবসা হয়নি। তবে আরও তিনটি ছবি সামনে আছে, ওগুলোতে কিছুটা হলেও ভালো ব্যবসা হতে পারে। আগামী মাসের সিনেমা মুক্তির সংখ্যাও ভালো। শাকিব খানের ছবি আছে। তার ছবিতেই ভরসা করছি। দেখা যাক কী হয়।’

পরপর দুই মাস বেশ কয়েকটি ভালো ও বড় বাজেটের ছবি মুক্তির তালিকায় থাকাতে খুশি হলেও ভালো ছবি তৈরির তাগিদ দিলেন পরিচালক সমিতির উপমহাসচিব শাহিন সুমন। তিনি বলেন, ছবি আসছে, ভালো কথা। কিন্তু ছবিগুলো যেন অবশ্যই মানসম্মত হয়। পাশাপাশি প্রযোজক ও হলমালিকদের যেন ব্যবসাও হয়। দর্শক ছবি দেখে যেন প্রেক্ষাগৃহ থেকে হতাশ হয়ে না ফেরেন, সেটাও মাথায় রাখতে হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0