প্রামাণ্যচিত্র শাখায় অনুদান পেয়েছে ‘সোনার তরী’ [প্রযোজক ও পরিচালক রাসেল রানা], ‘আমার নানুর বাড়ি’ [প্রযোজক ও পরিচালক তাসমিয়াহ্‌ আফরিন] আর ‘বিন্দু থেকে বৃত্ত: একজন বকুলের আখ্যান’ [প্রযোজক ও পরিচালক মেহজাদ গালিব] ছবিগুলো। এগুলো পাবে যথাক্রমে ২০, ১৪ ও ১৫ লাখ টাকা।

সাধারণ শাখায় অনুদান পেয়েছে ‘হাওয়াই সিঁড়ি’ [প্রযোজক এবং পরিচালক শামসুদ্দীন আহমেদ], ‘ঝিরিপথ পেরিয়ে’ [প্রযোজক সিফাত হাসান, পরিচালক ফজলে হাসান] ও ‘শিরিনের একাত্তর যাত্রা’ [প্রযোজক দীপক চৌধুরী, পরিচালক এমদাদুল হক খান] ছবিগুলো। এগুলো পাবে যথাক্রমে ১৮, ২০ ও ১৫ লাখ টাকা।

মুক্তিযুদ্ধ শাখায় অনুদান পেয়েছে ‘যুদ্ধজয়ের কিশোর নায়ক’ [প্রযোজক ও পরিচালক শায়লা রহমান] ও ‘স্বাধীনতার পোস্টার’ [প্রযোজক ও পরিচালক নাসরিন ইসলাম]। ছবিগুলো পাবে যথাক্রমে ১৮ ও ১৭ লাখ টাকা।

মসিহ্‌উদ্দিন শাকের, আহমেদ ইকবাল হায়দার, মঈনুদ্দিন খালেদ ও অমিতাভ রেজার তত্ত্বাবধানে ছবিগুলো নির্মিত হবে।
এর আগে ১৫ জুন তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় অনুদান পাওয়া ২০টি পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রের নাম অনলাইনে প্রকাশ করে।