default-image

সত্যজিৎ রায় এমনই এক উজ্জ্বল নক্ষত্র যিনি বাংলা চলচ্চিত্র তো বটেই এমনকি পুরো উপমহাদেশের চলচ্চিত্রকে এক ভিন্ন মাত্রায় নিয়ে গিয়েছিলেন। ২০০৪ সালে বিবিসির সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালির তালিকায় তিনি ১৩তম স্থান লাভ করেছিলেন। ১৯২১ সালের ২ মে কলকাতা শহরের খ্যাতনামা রায় পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। আজ তাঁর জন্মশতবার্ষিকী। এমন দিনে ফাঁকা রায়বাড়ি। নেই কোনো আয়োজন।
কলকাতার ১০০ গড়পার রোডের বাড়ি থেকে তাঁর যাত্রা। সেই বাড়িটা আর পরে রায় পরিবারের ছিল না। বরং আজকের সত্যজিৎ রায় হয়েছেন, কলকাতা শহরের বিশপ লেফ্রয় রোডের প্রথম বাড়িতে। ঠিকানাটা এমন, ১/১ বিশপ লেফ্রয় রোড, কলকাতা-৭০০০২০। এই বাড়ি ছাড়িয়ে তিনি বিশ্বজনীন হয়েছেন।

default-image

আর এই বাড়িটি হলো রায় পরিবারের খ্যাতনামা ব্যক্তিত্ব সত্যজিৎ রায়ের মূল বাসভবন। যেকোনো চলচ্চিত্র নির্মাতা বা জন্য চলচ্চিত্রপ্রেমীদের জন্য এটি একটি তীর্থস্থানের চেয়ে কম নয়। শুধু চলচ্চিত্রই বা কেন, বাংলা সাহিত্যের ফেলুদা বা প্রফেসর শঙ্কুর জন্মও হয়েছিল এই বাড়িটিতেই। ১৯৭০ সালে বাড়িটি কিনেছিলেন সত্যজিৎ। তার আগে ভবনটি পরিচিত ছিল কলকাতা ম্যানশন নামে।

বিজ্ঞাপন
default-image

প্রতিবছর তাঁর জন্মদিনে বহু লোক আসেন এ বাড়িতে। ভিড় করেন, তাঁর সঙ্গে কাজ করেছেন যাঁরা, তাঁর ভক্তরা, এই দিনে সত্যজিৎ রায়ের বাড়ি তাঁদের অবারিত প্রবেশ। ‘পথের পাঁচালী’র পরিচালককে শুভেচ্ছা জানাতে হাজির হন তাঁর গুণমুগ্ধরা। ১০০ বছরের জন্মশতবার্ষিকীতে অনেক পরিকল্পনা ছিল। বড় করে উদ্‌যাপনের পরিকল্পনা করা হয়েছিল।

default-image

কিন্তু সময় এখন পক্ষে না! লকডাউনের দাপটে সব পরিকল্পনা মাটি। কলকাতা থেকে প্রচারিত স্থানীয় সংবাদমাধ্যমগুলো সকাল থেকে প্রচার করছে, কলকাতার রাস্তাঘাট ফাঁকা। ফাঁকা বিশপ লেফ্রয় রোড। যেখানে আজকের দিনে বসত চাঁদের হাট। আজ একাকী সেই বিখ্যাত রায়বাড়ি। শততম জন্মবার্ষিকীতে হলো না কোনো আয়োজন।
গত বছর থেকেই এই অস্কারজয়ী পরিচালকের জন্মশতবার্ষিকী ঘিরে নানা আয়োজনের পরিকল্পনা হয়েছিল।

স্বয়ং সত্যজিৎ-পুত্র সন্দীপ রায়ও জানিয়েছিলেন সত্যজিৎ রায়ের জন্মশতবার্ষিকীর উদ্‌যাপন নিয়ে নানা রকমের পরিকল্পনা রয়েছে তাঁর। কিন্তু বর্তমানে ফের করোনার হানায় সেসব পরিকল্পনা ভেস্তে গেছে। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের ধাক্কায় টালমাটাল গোটা দেশ। প্রতিদিন পাল্লা দিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তদের সংখ্যা, সঙ্গে প্রাণহানি। এমন অবস্থায় সত্যজিতের জন্মশতবার্ষিকীতে রায়বাড়ির দরজা বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে রায় পরিবারের পক্ষ থেকে।সত্যজি

default-image

স্থানীয় গণমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসকে সন্দীপ-পত্নী ললিতা রায় বলেন, ‘ব্যাপারটা ভাবতেও খারাপ লাগছে। আমরা সবাই জানি এবং বুঝি সত্যজিৎ রায় বাঙালির কাছে ঠিক কী। তাঁর জন্মদিনে আমাদের বাড়ির দরজা সব সময়ই খোলা থাকে তাঁর অনুরাগীদের জন্য। তবে আবেগ সরিয়ে রেখে বাস্তবের দিকে যদি আমরা তাকাই, তাহলে বুঝতে পারব এই মুহূর্তে কতটা কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে দেশ যাচ্ছে। প্রতিদিনই করোনা আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারাচ্ছেন অসংখ্য মানুষ। দ্রুত ছড়াচ্ছে সংক্রমণ। তাই সবদিক বিবেচনা করেই সবার সুস্থতা কামনার উদ্দেশে এই পদক্ষেপ গ্রহণ করতে বাধ্য হয়েছি আমরা।’

default-image

তিনি আরও বলেন, ‘প্রতিবছর তাঁর জন্মদিনে সারা দিন ধরে একনাগাড়ে আমাদের বাড়িতে অতিথি সমাগম বারবার আমাদের উপলব্ধি করায় এখনো কতটা তাঁকে ভালোবাসে মানুষ। এই ঘটনা আমাদের কাছেও অত্যন্ত সম্মানের। কিন্তু বর্তমানে আমরা নিরুপায়। বাস্তব বড় রুক্ষ ও নিষ্ঠুর। তাই সকলের উদ্দেশে সম্মান জানিয়েই এই সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে আমাদের।’

বিজ্ঞাপন

আজ রায়বাড়িতে জন্মদিনের আয়োজন না হোক। তাতে কিছু আসে-যায় না অনুরাগীদের। বরং আজ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তিনি নানাজনের লেখায়, ছবিতে ফিরে এসেছেন। তাঁর উজ্জ্বল উপস্থিতি আজ ডিজিটাল দুনিয়ায়, টেলিভিশনের পর্দায়। এভাবে ‘পথের পাঁচালী’, ‘গুপিগাইন বাঘাবাইন’, ‘কাঞ্চনজঙ্ঘা’, ‘সোনার কেল্লা’র স্রষ্টা চিরকাল থেকে যাবেন বাঙালির মননে।

default-image

তাঁর জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে অভিনব উদ্যোগ নিয়েছে ভারতের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয়। জানা গেছে, সারা বছর বিভিন্ন অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে তা উদ্‌যাপিত হবে। গত শুক্রবার তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রণালয় থেকে ঘোষণা করা হয়েছে, লেখক ও চলচ্চিত্র নির্মাতার ১০০তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ভারত ও বিদেশে বছরব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করবে তারা। এতে জানানো হয়, মহামারি পরিস্থিতি বিবেচনা করে প্রতিটি অনুষ্ঠান ডিজিটাল ও সরাসরি অনুষ্ঠিত হবে। এ বছর থেকে ‘সত্যজিৎ রায় লাইফটাইম অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড ফর এক্সিলেন্স ইন সিনেমা’ পুরস্কারটি দেওয়া হবে ভারতের আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব এর মঞ্চ থেকে। শুধু তা–ই নয়, ৭৪তম কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে এবার থাকবে সত্যজিৎ রায়ের স্মৃতিচারণা। তাঁর বিভিন্ন ছবি নিয়ে একটি বিশেষ স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থা করা হবে। মুম্বাইয়ের ন্যাশনাল মিউজিয়াম অব ইন্ডিয়ান সিনেমাতে এবার থেকে একটি বিশেষ প্রদর্শনী থাকবে সত্যজিৎ রায়ের জীবন ও কাজের ওপর।

বিনোদন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন