শাকিব–অপুর সংসার

শাকিব ফিরছেন অপুর কাছে

বিজ্ঞাপন
default-image

অবশেষে বরফ গলেছে। ঢালিউডের নায়ক শাকিব খান ও নায়িকা অপু বিশ্বাসের সম্পর্ক জোড়া লাগছে। শাকিব খান তেমনটাই দাবি করেছেন আর সে খবরকে ইতিবাচক হিসেবেই দেখছেন অপু বিশ্বাস।

বেশ কিছুদিন আড়ালে থাকার পর গত সোমবার সন্তান কোলে একটি বেসরকারি টেলিভিশনের সরাসরি অনুষ্ঠানে হাজির হন অপু বিশ্বাস। জানান সাকিব খানের সঙ্গে তাঁর বিয়ের খবর, তাঁদের সন্তান জন্ম নেওয়ার কথা। তার প্রতিক্রিয়ায় সাকিব খান বলেছিলেন, তিনি সন্তানের দায়িত্ব নেবেন, কিন্তু অপু বিশ্বাসের নয়। এ ঘটনায় সামাজিক মাধ্যমসহ বিভিন্ন শ্রেণি–পেশার মানুষের মধ্যে ব্যাপক প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়।

মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলন করবেন ঘোষণা দিয়েছিলেন শাকিব খান। কিন্তু শেষ মুহূর্তে তিনি তা বাতিল করেন। গতকাল সকাল থেকেই শাকিব খান ছিলেন গুলশানের নিজের বাড়িতে। সকাল ১০টায় প্রথম আলোর সঙ্গে তাঁর কথা হয়। শাকিব জানান, সংবাদ সম্মেলন করার কথা তিনি ভাবছেন না।

দুপুরে আবার প্রথম আলো প্রতিবেদকের সঙ্গে কথা হয় শাকিব খানের। শান্ত স্বরে তিনি বলেন, ‘আমার সন্তান ও স্ত্রীকে এতোটা অসহায়ভাবে টেলিভিশন চ্যানেলে দেখব বলে ভাবিনি। আমি তখন আমার উপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলি। এদিকে একের পর এক ফোন আসতে থাকে। আমি মানসিকভাবে আর স্থির থাকতে পারিনি। ফলে উত্তেজিত অবস্থায় কাল অনেক কিছুই বলেছি, যা আজ ঠান্ডা মাথায় ভেবে নিজের কাছেই নিজে অনুতপ্ত হয়েছি।’

শাকিব বলেন, ‘অপু তো আমার সন্তানের মা। আমরা তো একসঙ্গেই ছিলাম, ভালোই ছিলাম। সামনেও একসঙ্গেই থাকব। ভালোই থাকব।’

সকাল ৯টা থেকে বিকেল চারটা পযন্ত শাকিবের সঙ্গে তাঁর গুলশানের বাড়িতে ছিলেন তাঁর পারিবারিক বন্ধু ও প্রযোজক এম ডি ইকবাল। তিনি জানান, শাকিব এখন অপুর ব্যাপারে পুরোপুরি ইতিবাচক। তিনি কান্নাকাটিও করেছেন। এখন শাকিব একেবারেই শান্ত। শুক্রবার অপুর বাড়িতে গিয়ে তাঁকে সন্তানসহ শাকিবের বাড়িতে আনার ব্যাপারেও সিদ্ধান্ত হয়েছে। আনুষ্ঠানিকভাবে সংসার শুরুর পরিকল্পনাও তিনি করেছেন।

এরপর প্রথম আলোর পক্ষ থেকে অপু বিশ্বাসের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়। শাকিবের এই উপলব্ধির কথা শুনে অপু খুব উচ্ছ্বসিত হন। তিনি বলেন, ‘আমি জানতাম, শাকিব ফিরে আসবে। শাকিবকে তো আমি চিনি। আমি জানতাম, শাকিব গত সোমবার স্বাভাবিক ছিল না। স্বাভাবিক হলেই সব ঠিক হয়ে যাবে।’

সন্ধ্যার পর শাকিব চলে যান একটি পাঁচতারা হোটেলে, সেখানে তিনি নতুন ছবির ব্যাপারে কথা বলবেন বলে প্রথম আলোকে জানান। সেখান থেকে রাতে একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে সাক্ষাৎকার দিতে যান।

অপু বিশ্বাস সারদিনই ছিলেন তাঁর নিকেতনের বাড়িতে।

এদিকে, শাকিব-অপুর সম্পর্কের বরফ গলে যাওয়ার খবরে চলচ্চিত্রজগতের সতীর্থরাও আনন্দিত। তাঁদের কয়েকজন এ ব্যাপারে নিজেদের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন, যা আজকের প্রথম আলোর বিনোদন পাতায় ছাপা হলো। সমাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও অনেকেই তাঁদের জন্য শুভকামনা জানিয়েছেন।

শাকিব খানের সঙ্গে অপুর বিয়ে হয়েছে ২০০৮ সালে। গত বছর তাঁদের ছেলের জন্ম হয়েছে। তবে শাকিবের ‘ক্যারিয়ারের স্বার্থে’ তাঁরা সব গোপন রেখেছিলেন।

শাকিব খানের সঙ্গে বিয়ে, সংসার ও সন্তান নিয়ে অপু বিশ্বাস সোমবার বিকেলে মুখ খোলার পর থেকেই আলোচনায় ছিলেন ঢাকাই সিনেমার উঠতি নায়িকা শবনম বুবলিও। শাকিব ও অপুর সংসারে সম্পর্কের টানাপোড়েনের কারণ হিসেবে বারবার উঠে আসে এই নায়িকার নাম।

গতকাল বুবলি প্রথম আলোকে বলেন, ‘গতকাল সারা দিন যে ইস্যু নিয়ে আমার সঙ্গে সাংবাদিকেরা কথা বলার চেষ্টা করেছেন, সেটা নিয়ে কথা বলার আমি কেউ না। সবাই আমার মন্তব্য জানতে চাইছেন। এখানে ঘটনাটা যাঁদের নিয়ে হচ্ছে, এটা সম্পূর্ণ তাঁদের ব্যক্তিগত ব্যাপার। সে কারণে ব্যাপারগুলো এড়িয়ে গেছি এবং এখনো যাচ্ছি।’

তবে শাকিব খান আর অপু বিশ্বাসের নিজেদের মধ্যে সরাসরি কোনো কথা হয়েছে বলে জানা যায়নি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন