default-image

‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’ ছবির শুটিং করতে গিয়ে জানুয়ারি মাসের শেষদিকে কাঁধ ও হাঁটুতে গুরুতর চোট পেয়েছিলেন শাহরুখ খান। চিকিত্সকের পরামর্শে এখনো বিশ্রামে আছেন তিনি। কিন্তু তাই বলে কি ছবির শুটিং বন্ধ হয়ে যাবে! সম্প্রতি ছবির মূল অভিনেতা শাহরুখকে ছাড়াই ফের শুটিং শুরু করেছেন এর পরিচালক ফারাহ খান।

এ প্রসঙ্গে এক টুইটার বার্তায় ফারাহ খান লিখেছেন, ‘আজ (সোমবার) আবার ‘‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’’ ছবির শুটিং পুরোদমে শুরু হয়েছে। সব সময়ই ছবির শুটিং শুরুর দিনটিকে পারিবারিক পুনর্মিলনীর মতোই মনে হয় আমার কাছে। তবে আজ আমাদের সঙ্গে শাহরুখ নেই। তাঁকে বিশ্রাম নেওয়ার সুযোগ দিচ্ছি আমি।’ এক খবরে এমনটিই জানিয়েছে ইন্দো-এশিয়ান নিউজ।

মুম্বাইয়ের জুহুতে একটি পাঁচতারকা হোটেলে ‘হ্যাপি নিউ ইয়ার’ ছবির শুটিং করার সময় হঠাত্ একটি দরজা শাহরুখের ওপর পড়ে গেলে আহত হন তিনি। দ্রুত তাঁকে মুম্বাইয়ের নানাবতী হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। শুরুতে তাঁর আঘাত গুরুতর নয় বলে জানানো হলেও পরে চিকিত্সকেরা শঙ্কা প্রকাশ করে জানান, শাহরুখের কাঁধ ও হাঁটুর আঘাত গুরুতর। দুই থেকে তিন সপ্তাহ তাঁকে পূর্ণ বিশ্রামে থাকার পরামর্শ দেন চিকিত্সকেরা।


শাহরুখের জন্য শুটিংয়ে আহত হওয়ার অভিজ্ঞতা মোটেও নতুন নয়। এখন পর্যন্ত বহুবার শুটিং করতে গিয়ে আহত হয়েছেন তিনি। নব্বইয়ের দশকে ‘কয়লা’ ছবির শুটিং করতে গিয়ে প্রথম হাঁটুতে গুরুতর চোট পান শাহরুখ। গত এক দশকে শুটিং করতে গিয়ে আরও অনেকবার কাঁধ, মেরুদণ্ডসহ শরীরের বিভিন্ন জায়গায় আঘাত পেয়েছেন তিনি। এমনকি সুস্থ হওয়ার জন্য চিকিত্সকের ছুরি-কাঁচিরও দ্বারস্থ হতে হয়েছে তাঁকে।

২০১১ সালে শুটিং করতে গিয়ে পায়ে মারাত্মক চোট পেয়েছিলেন শাহরুখ। সে বছরই মুক্তি পাওয়া ‘রা ওয়ান’ ছবির শুটিংয়েও আহত হন তিনি। শুধু তা-ই নয়, গত বছর ‘চেন্নাই এক্সপ্রেস’ ছবির ধুন্ধুমার সব অ্যাকশন দৃশ্যে অভিনয় করতে গিয়েও আহত হয়েছিলেন শাহরুখ। তাঁর কাঁধে অস্ত্রোপচারও করতে হয়েছিল।

বিজ্ঞাপন
বিনোদন থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন