সুন্দরবন থেকে ফিরে কোয়ারেন্টিনে সিয়াম

বিজ্ঞাপন
default-image

প্রায় ২০ দিন শুটিং করে ঢাকায় ফিরেছে ‘অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন’ ছবির ইউনিট। ফিরেই কোয়ারেন্টিনে গেলেন ছবিটির নায়ক সিয়াম আহমেদ। গতকাল রোববার বিকেলে লঞ্চ থেকে সদরঘাটে নেমে সরাসরি গিয়ে নিজ বাসায় ওঠেন সিয়াম। ওই দিন থেকেই কোয়ারেন্টিনে আছেন বলে জানালেন এই অভিনেতা।

সিয়াম বলেন, ‘না থেকে তো উপায় নাই। কারণ পরিবারের সবারই তো নিরাপত্তার ব্যাপার আছে, যেহেতু আমি দীর্ঘদিন ঘরের বাইরে ছিলাম। যদিও শুটিংয়ের লঞ্চে একধরনের কোয়ারেন্টিনের মধ্যেই ছিলাম। কারণ, আমরা শুটিংয়ের এই ২০ দিন ইউনিটের বাইরের কারোর সঙ্গেই মিশিনি। লঞ্চেই ছিলাম। তারপরও পরিবারের মানুষের বাড়তি নিরাপত্তা ভেবে বাসায় এসে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

default-image

সিয়াম আরও বলেন, ‘সরকারি সিদ্ধান্তে পানিপথ বন্ধ থাকার কারণে আমরা খুলনায় লঞ্চে আটকে ছিলাম। সরকারের উচ্চপর্যায়ের সহযোগিতা নিয়ে শেষ পর্যন্ত ঢাকায় ফিরতে পেরেছি। ফেরার আগে তীব্র রোদে লঞ্চে কষ্ট করে কয়েকটি দিন পার করতে হয়েছে আমাদের। তবে ইউনিটের সবাই স্বাভাবিক ও সুস্থ ছিলাম।’ 
নিজেকে, পরিবারকে এবং সর্বোপরি দেশের মানুষকে এই ভয়াল থাবা থেকে বাঁচাতে ঘরের মধ্যে অবস্থান ও জনসমাগম এড়িয়ে চলাটা কঠিনভাবে মানা উচিত বলে মনে করেন এই অভিনেতা। সিয়াম বলেন, ‘বেঁচে থাকলে কাজ হবে। যে কারণে “অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন” ছবির শুটিং টানা শেষ করার কথা থাকলেও করিনি। চলে এসেছি।’

সিয়াম আরও বলেন, ‘এই পরিস্থিতির কবে উন্নতি হবে, তা আমরা কেউই জানি না। তাই সরকার বা বিশ্বসাস্থ্য সংস্থার নির্দেশ অনুযায়ী সবাই চলার চেষ্টা করি আমরা। ঘরে অবস্থান করি। তাহলে করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধ অনেকটাই সম্ভব হবে।’
যোগাযোগ করা হলে ‘অ্যাডভেঞ্চার অব সুন্দরবন’ ছবির পরিচালক আবু রায়হান জানালেন, শুটিং মূলত ২৭ মার্চ বন্ধ হয়েছে। ফিরতে না পারাতে কিছু ইনসার্ট শট নেওয়া হয়েছে এ কয়েক দিন। ২ এপ্রিল থেকে একেবারেই ক্যামেরা বন্ধ। শুটিং প্রায় ৭০ ভাগ শেষ হয়েছে। টানা কাজ করে ছবিটির শুটিং শেষ করার কথা ছিল। কিন্তু করোনাভাইরাসের আতঙ্কের মধ্যে মাথায় চাপ নিয়ে ভালো কাজ হচ্ছিল না। তা ছাড়া সমিতিগুলো থেকেও সব ধরনের শুটিং বন্ধের নির্দেশনা আছে। পরিচালক জানালেন, বাকি কাজ আগামী জুন ও জুলাই মাসে শেষ করতে হবে।

ছবিটিতে আরও অভিনয় করছেন পরীমনি, সিয়াম আহমেদ, তানভীর, আজাদ আবুল কালাম, শহিদুল আলম সাচ্চু, আশীষ খন্দকার প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন