'আমরা পুরো গ্যাং নিয়ে আসছি'

বিজ্ঞাপন
default-image

‘আমরা পুরো গ্যাং নিয়ে আসছি। ৬ থেকে ৯ নভেম্বর পর্যন্ত ঢাকায় থাকব।’ বললেন শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়, ভারতের বাঙালি চলচ্চিত্র পরিচালক, লেখক ও অভিনেতা। ১০ মে ভারতে মুক্তি পায় ‘কণ্ঠ’। ছবির কাহিনি লিখেছেন তিনি। ছবিতে মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন। নন্দিতা রায়ের সঙ্গে যৌথভাবে পরিচালনা করেছেন। ৮ নভেম্বর বাংলাদেশে মুক্তি পাচ্ছে ছবিটি।

শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় এখন আছেন কলকাতায়। আজ শনিবার সকালে প্রথম আলোকে তিনি বললেন, ‘আমাদের জন্য বিশাল ব্যাপার। অনেক অপেক্ষা করার পর বাংলাদেশে ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে। এর থেকে আনন্দের খবর আর কী হতে পারে। ভারতে বাণিজ্যিকভাবে ছবিটি সফল হয়েছে। এই ছবিতে অভিনয় করেছেন জয়া আহসান। তিনি বাংলাদেশে খুব জনপ্রিয়। আমরা চেয়েছি তাঁর দেশের মানুষের কাছে ছবিটা পৌঁছে দিতে।’

default-image

শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় জানালেন, তাঁর বাবা প্রয়াত অধ্যাপক সুব্রত কুমার মুখোপাধ্যায় ছিলেন বরিশালের উজিরপুরের অধিবাসী। একসময় তিনি সেখানে শিক্ষকতাও করেছেন। এখন বাবা নেই। মাকে নিয়ে আসছেন। সঙ্গে আরও আসছেন তাঁর স্ত্রী আর শ্বশুর-শাশুড়ি। ‘কণ্ঠ’ ছবির আরেক পরিচালক নন্দিতা রায়ও আসছেন। সঙ্গে আসছেন তাঁর বোন ভারতের প্রখ্যাত শিল্প নির্দেশক ইন্দ্রাণী পিল্লাই। সব মিলিয়ে নয়জন।

বললেন, ‘সবাইকে নিয়ে উজিরপুর যাওয়ার ইচ্ছা আছে। বাবার সেই ভিটা দেখার লোভ আর সামলাতে পারছি না। এবার ঢাকা সফরে এটা হবে আমাদের জন্য সবচেয়ে বড় ঘটনা।’

default-image

ঢাকায় ‘কণ্ঠ’ ছবির উদ্বোধনী প্রদর্শনী হবে ৭ নভেম্বর, বসুন্ধরা সিটির স্টার সিনেপ্লেক্সে। সেই প্রদর্শনীতে উপস্থিত থাকবেন শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়, নন্দিতা রায়, ছবির অন্যতম অভিনয়শিল্পী জয়া আহসানসহ আরও অনেকে।

‘কণ্ঠ’ ছবিটি বাংলাদেশে ১০টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পাচ্ছে। সাফটা চুক্তির মাধ্যমে ৮ নভেম্বর ছবিটি বাংলাদেশে মুক্তির দিনক্ষণ চূড়ান্ত করেছে বলে জানিয়েছে আমদানি প্রতিষ্ঠান ইমপ্রেস টেলিফিল্ম। এই নীতির আওতায় বাংলাদেশ থেকে ভারতে যাচ্ছে আকরাম খান পরিচালিত ‘খাঁচা’। দুটি ছবিরই কেন্দ্রীয় চরিত্রের অভিনয়শিল্পী জয়া আহসান। নিজের ছবি ভারতে যাওয়া এবং বাংলাদেশে আসা নিয়ে আনন্দিত জয়া আহসান

default-image

জয়া আহসান এখন ঢাকায় আছেন। তিনি বলেন, ‘রাষ্ট্রের নিয়ম মেনে একটি ছবি যাচ্ছে, আরেকটি আসছে। আমি আসলে চাই, এই নিয়মে যদি বাংলাদেশের ভালো ছবি দেশের বাইরে যায় এবং ভারতের ছবি বাংলাদেশে আসে, তাহলে ভালো। আমরা দেখছিলাম, আমদানি-রপ্তানি নীতিতে এমন কিছু ছবি যাচ্ছে, যেগুলোর শৈল্পিক মূল্য যেমন নেই, শিল্পীর মূল্যও নেই। সে ক্ষেত্রে এই ধরনের ছবি যাওয়া-আসা হলে দুই দেশের ছবি সম্পর্কে একটা ভালো ধারণা তৈরি হবে। ব্যবসায়িক বাজারও তৈরি হবে। আমাদের মারদাঙ্গা যে ছবিগুলো ওখানে পাঠানো হয়, বেশির ভাগ বলিউড কিংবা তামিল সিনেমার কপি। কোন ছবিটা উৎসব কিংবা আমদানি-রপ্তানিতে যাচ্ছে, তা জানাটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। একটা ছবি দেখে সে দেশের মানুষ, সংস্কৃতি, মন, মনন সম্পর্কে জানা যায়। দুটি ভালো মানের ছবি আমদানি-রপ্তানি হচ্ছে, তাই ভালো লাগছে।’

default-image

‘কণ্ঠ’ ছবির আমদানি প্রতিষ্ঠান এবং ‘খাঁচা’র প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ইমপ্রেস টেলিফিল্মের পরিচালক (বিপণন) ইবনে হাসান খান বলেন, ‘আমাদের “খাঁচা” ছবিটি একাধিক বিভাগে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছে। ছবিতে জয়ার অভিনয় প্রশংসিত হয়েছে। আমরা চেয়েছি, ছবিটি পশ্চিমবঙ্গের দর্শকেরা দেখুক। একইভাবে “কণ্ঠ” ছবিতেও জয়ার অভিনয় প্রশংসা পেয়েছে। আমদানি-রপ্তানি নীতিমালায় ছবি দুটি দুই দেশের দর্শকদের দেখাতে চেয়েছি।’

default-image

‘কণ্ঠ’ ছবির মূল চরিত্র অর্জুন বাচিকশিল্পী, রেডিও জকি। হঠাৎ তার ক্যানসার ধরা পড়ে। আর তার ক্যানসার হয়েছে কণ্ঠে! এই কণ্ঠ শুধু তার রোজগারের পথ নয়, বিশেষ সম্পদও। যেসব শব্দ এত দিন বাক্য হয়ে সহজেই লাখ লাখ মানুষের কাছে পৌঁছে দিয়েছে অর্জুন, যে আওয়াজে নিজের প্রেম-কান্না-মন খারাপ—সবই ব্যক্ত করেছে, মুহূর্তেই তা থেমে যায়। সেই ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করার মানুষটির চরিত্রে শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় নিজেই অভিনয় করেছেন। ছবিতে তিনি এফএম রেডিওর একজন আরজে। কীভাবে এই রোগের সঙ্গে লড়াই করে নিজের স্বরকে ফিরিয়ে এনেছেন, এই কথাবন্ধুর জীবনের সেই উত্থান-পতনের গল্প ‘কণ্ঠ’। তাঁর স্ত্রীর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন পাওলি দাম। জয়া আহসান ছবিতে একজন স্পিচ থেরাপিস্ট। এই তিনজনকে নিয়েই ছবির গল্প। তবে ছবিতে আরও আছেন কনীনিকা বন্দ্যোপাধ্যায়, বিপ্লব দাশগুপ্ত ও পরান বন্দ্যোপাধ্যায়।

default-image

‘কণ্ঠ’ ছবিটি নিয়ে শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় খুবই আবেগপ্রবণ। জানালেন, ১৯৯৯ সালে টেলিভিশনে কাজ করার সময় বিভূতি চক্রবর্তী নামের এক ব্যক্তির সঙ্গে তাঁর পরিচয় হয়। লোকটি কণ্ঠ ক্যানসারে আক্রান্ত হয়েছিলেন। তিনি ক্যানসারের সঙ্গে লড়াই করে জয়ী হয়েছেন। ওই লোকটির কাছ থেকে ক্যানসারের সঙ্গে তাঁর সেই লড়াইয়ের গল্প শুনেছিলেন। তখন এই গল্প নিয়ে সিনেমা তৈরির সিদ্ধান্ত নেন। এই ছবির মধ্য দিয়ে ক্যানসার নিয়ে সবার মধ্যে কিছু বার্তা পৌঁছে দিতে চেয়েছিলেন শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়। ছবির কাহিনি ও চিত্রনাট্য লিখেছেন নন্দিতা রায়, সংলাপ লিখেছেন শিবপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়। কিন্তু এত বছর পর তা পর্দায় ফুটিয়ে তুলেছেন।

‘কণ্ঠ’ ছবির গানের সুর ও সংগীত পরিচালনা করেছেন অনুপম রায়। গানে কণ্ঠ দিয়েছেন সাহানা বাজপেয়ী।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন