default-image

‘শাবনূর একটা থার্ড ক্লাস মেয়ে। ও তো সিনেমা করে উঠে গেল। আর কী আছে ওর? নায়িকাদের কোনো স্ট্যাটাস থাকে নাকি?’ দেশের একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে সালমান শাহর মা নীলা চৌধুরীর দেওয়া সাক্ষাৎকারের এই কথাগুলো পৌঁছে গেছে অস্ট্রেলিয়ায় থাকা শাবনূরের কাছে। নীলা চৌধুরীর মুখ থেকে এ ধরনের কথা শুনে ভীষণ খেপেছেন শাবনূর। বললেন, ‘আন্টির এ ধরনের কথা বলার কোনো অধিকার নেই। তিনি আমার পরিবার সম্পর্কে না জেনে এভাবে কথা বলতে পারেন না। তাঁর এই কথা প্রত্যাহার করতে হবে।’

একসময়ের হার্টথ্রব চিত্রনায়ক সালমান শাহর মৃত্যুর ২৩ বছর পর পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনের (পিবিআই) তদন্ত প্রতিবেদন জনসমক্ষে প্রকাশের পর চিত্রনায়িকা শাবনূর, সালমানের তৎকালীন স্ত্রী সামিরা হক ও তাঁর মা নীলা চৌধুরী গণমাধ্যমে নিজেদের অবস্থান তুলে ধরে বিভিন্ন বিষয়ে বক্তব্য দেন। তেমনি একটি বক্তব্য দিতে গিয়ে শাবনূরকে ‘তৃতীয় শ্রেণির মেয়ে’ বলেন। এ কথা চরম আপত্তিকর বলে প্রথম আলোকে জানান শাবনূর। এ ধরনের কথা নীলা চৌধুরী কোনোভাবেই বলতে পারেন না বলে ক্ষোভও প্রকাশ করেন তিনি।

শাবনূর বলেন, ‘আন্টিকে বলব, কারও সম্পর্কে কোনো কথা বলার আগে দয়া করে খোঁজখবর নেবেন। আপনাকে শুধু বলতে চাই, আমার পরিবারের সবাইকে একনামে চেনেন। সবাই স্ব স্ব ক্ষেত্রে ভীষণ সম্মানিত। সিনেমায় অভিনয় করতে আসা আমি শাবনূর কখনোই পারিবারিক পরিচয়টাকে সামনে আনিনি। আমি অভিনয় করেছি, আমার মতো করে পরিচয় তৈরি করেছি। আপনাকে অনুরোধ করছি, দয়া করে খোঁজখবর নিন, তারপর কারও সম্পর্কে মন্তব্য করতে আসুন প্লিজ। আমি কোনো ফকিরনি পরিবারের মেয়ে না।’

সালমান শাহ হত্যার তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের পর সামিরাও কয়েকটি গণমাধ্যমে শাবনূরকে জড়িয়ে কিছু কথা বলেছেন। সেসব কথার উপযুক্ত প্রমাণ দিতেও অনুরোধ করেছেন শাবনূর। তবে সালমানের মা নীলা চৌধুরীর কথায় অনেক বেশি অবাকও হয়েছেন শাবনূর। বললেন, ‘আন্টি তো মুরব্বি। আমার মায়ের মতন। আমি যদি তাঁর মেয়ে হতাম, এভাবে কি তিনি কথা বলতে পারতেন! আমার ধারণা, রাগবশত এই কথা বলেছেন। বেশ কিছুদিন আগে টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে সামিরার নামে ভালো কথা বলেছিলাম, তাই হয়তো আন্টির মুড চেঞ্জ হয়ে গেছে। তার আগ পর্যন্ত আন্টি আমাকে নিয়ে কখনোই কিছু বলেননি। কিন্তু তাঁর মুখ থেকে এ ধরনের কথা মোটেও গ্রহণযোগ্য নয়। আমি কারও কাছে আমার বংশপরিচয় দিতে বাধ্য নই। শুধু এটুকু বলব, আমি ফেলনা নই, আমারও বংশপরিচয় আছে। সবকিছুকে ছাপিয়ে আমি আমার পরিচয়ে বড় হতে চেয়েছি। পরিবারও আমাকে সেই স্বাধীনতা দিয়েছে। আমি কোনো দিন আমার পরিবারের কথা বলিনি। কারণ, আমি সব সময় জেনে গেছি, আমি শাবনূর। আমি আমার মতো কাজ করে গেছি। আন্টিকে বলছি, কাউকে নিয়ে কটু কথা বলার আগে চৌদ্দবার ভাববেন। এরপর কথা বলবেন।’

কথায় কথায় শাবনূর এ–ও বলে গেলেন, সালমান শাহকে জড়িয়ে যেভাবে মিথ্যা তথ্য উপস্থাপন করা হচ্ছে, তাতে চরমভাবে বিরক্তি প্রকাশ করেছেন তিনি। জানিয়ে রাখলেন, যদি প্রয়োজন পড়ে তাহলে মানহানির মামলা করতেও পিছপা হবেন না তিনি।

পিবিআইয়ের তদন্ত প্রতিবেদনে সালমান শাহর সঙ্গে শাবনূরের ঘনিষ্ঠতার কথা বলা হয়েছে। একদিন ডাবিং রুমে সালমান শাহর সঙ্গে নাকি শাবনূরকে ঘনিষ্ঠ অবস্থায় দেখেছিলেন সামিরা। এ বিষয় নিয়ে ডেইলি স্টারে প্রকাশিত এক সাক্ষাৎকারে সামিরা বলেছেন, ‘বিষয়টি আসলে এমন না। শাবনূরের বয়স তখন অনেক কম। আমাদের বাসায় নিয়মিত আসত। ইমনকে ভাইয়া বলে ডাকত। খুব বেশি মিশত, এটা আমার ভালো লাগত না। পৃথিবীর কোনো স্ত্রীরই এটা ভালো লাগার কথা না, আমারও লাগেনি। তবে শাবনূরের সঙ্গে সালমানের যে ঘনিষ্ঠতার কথা বলা হচ্ছে, সেটা অতটা না। শাবনূর বারবার সালমানের কানের কাছে মুখ নিয়ে কথা বলছিল সে সময়। ওই দৃশ্য দেখে আমার খারাপ লেগেছিল।’

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0