অমিতাভের করোনা রিপোর্ট নেগেটিভ, তবে...

বিজ্ঞাপন
default-image

অমিতাভ বচ্চনের করোনা সংক্রমণের খবরে ভারতজুড়ে নেমে এসেছিল শোকের ছায়া। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ভরে উঠেছিল সিনেমাপ্রেমীদের প্রার্থনায়। তবে এবার স্বস্তির নিশ্বাস ফেলতে পারেন বিগ বির হাজার হাজার অনুরাগী। কারণ, হাসপাতাল সূত্রে খবর মিলেছে, অমিতাভ বচ্চনের লালারস পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে।

default-image

১১ জুলাই বলিউডের মেগাস্টার অমিতাভ বচ্চন করোনায় সংক্রমিত হয়ে মুম্বাইয়ের নানাবতী হাসপাতালে ভর্তি হন। তার পুত্র অভিষেক বচ্চনও করোনায় আক্রান্ত হয়ে একই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। এদিকে ঐশ্বরিয়া রাই বচ্চন এবং আরাধ্যেরও করোনা পজিটিভ আসে। কিন্তু বেশি লক্ষণ প্রকাশ না পাওয়ায় মা-মেয়ে মুম্বাইয়ে নিজেদের বাসায় কোয়ারেন্টিনে ছিলেন। কারণ, তাঁদের শরীরে করোনা ভাইরাসের জীবাণু থাকলেও তেমন কোনো উপসর্গ ছিল না।

কয়েক দিন পর ঐশ্বরিয়া ও আরাধ্যর হালকা জ্বর আসে আর শ্বাসজনিত সমস্যা দেখা দেয়। তখন চিকিৎসকের পরামর্শে তাঁরা একই হাসপাতালে ভর্তি হন। ২২ জুলাই অমিতাভ বচ্চনের আবার করোনা পরীক্ষার কথা ছিল। গতকাল বুধবার তাঁর লালারস পরীক্ষা হয়। আর এই পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। তবে এখনো দুটো পরীক্ষা বাকি আছে। চিকিৎসকেরা জানিয়েছেন, অমিতাভের লাগাতার তিনটি রিপোর্ট নেগেটিভ এলেই কেবল তাঁকে হাসপাতাল থেকে ছুটি দেওয়া হবে। খবর অনুযায়ী, ইতিমধ্যে অভিষেকের সব রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। তাঁকে আজ হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেওয়া হতে পারে। ঐশ্বরিয়া এবং আরাধ্যও নানাবতী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তাঁদেরও আবার করোনা পরীক্ষা করা হয়েছে। তবে মা-কন্যার রিপোর্ট এখনো আসেনি। তাঁরা এখন সুস্থ আছেন বলে জানা গেছে।

default-image

করোনা সংক্রমণের কথা প্রথমে অমিতাভ বচ্চন নিজে টুইট করে জানিয়েছিলেন। নানাবতী হাসপাতালে ভর্তির পর থেকে তিনি প্রায়ই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমের সাহায্যে ভক্তদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছেন। বচ্চন পরিবারের চারজন করোনা পজিটিভ হলেও বাকি সবার রিপোর্ট নেগেটিভ এসেছে। অমিতাভ পত্নী তথা অভিনেত্রী জয়া বচ্চন, কন্যা শ্বেতা নন্দার শরীরে করোনাভাইরাস পাওয়া যায়নি। বচ্চন পরিবারের ২৬ জন কর্মচারীর রিপোর্টও নেগেটিভ এসেছে। অমিতাভ বচ্চনের করোনা পজিটিভ হওয়ার শেষ ১০ দিনে ৫৪ জন মানুষ বচ্চন পরিবারের সংস্পর্শে এসেছিলেন। তাঁদের শরীরেও করোনাভাইরাস পাওয়া যায়নি।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0
বিজ্ঞাপন