মুম্বাইয়ে লকডাউনের কারণে সব ধরনের শুটিং বন্ধ। তাই আবারও সংকটে পড়েছে বলিউড
মুম্বাইয়ে লকডাউনের কারণে সব ধরনের শুটিং বন্ধ। তাই আবারও সংকটে পড়েছে বলিউডকোলাজ

করোনাকালের মধ্যেই অনেকটা স্বাভাবিক ছন্দে ফিরেছিল মুম্বাইয়ের বিনোদন ইন্ডাস্ট্রি। মহারাষ্ট্রে আবার করোনার সংক্রমণ বাড়ছে। এ কারণে মহারাষ্ট্র সরকার ‘ব্রেক দ্য চেইন’ অভিযান শুরু করেছে। ১৩ এপ্রিল রাতে মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ভব ঠাকরে ১৫ দিনের জন্য রাজ্যজুড়ে লকডাউন ঘোষণা করেছেন। ১৪ এপ্রিল রাত আটটা থেকে আগামী ১ মে সকাল সাতটা পর্যন্ত লকডাউন পালন করা হবে।

বিজ্ঞাপন
default-image

১৫ দিনের লকডাউনে আবার অন্ধকার নেমে এসেছে মুম্বাইয়ের বিনোদনজগতে। এই কদিন সিনেমা, ধারাবাহিক, ওয়েব সিরিজ, বিজ্ঞাপন ফিল্মের শুটিং বন্ধ থাকবে। ১৫ দিন মহারাষ্ট্রের সব প্রেক্ষাগৃহও বন্ধ থাকবে। তবে যেসব ছবি বা ওয়েব সিরিজের শুটিং অন্যান্য রাজ্যে প্রথম থেকেই নির্ধারিত ছিল, সেসব শুটিং চলবে। ফেডারেশন অব ওয়েস্টার্ন ইন্ডিয়া সিনে এমপ্লয়িজের (এফডব্লুআইসিই) প্রধান বি এন তিওয়ারি বলেছেন, ‘সরকার সাধারণ মানুষের কথা ভেবে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কিন্তু বিনোদনজগতের এতে কোনো মঙ্গল হবে না। কারণ শুটিং বন্ধ হলে প্রচুর আর্থিক ক্ষতি হবে।’

default-image

ইন্ডিয়ান ফিল্ম অ্যান্ড টিভি প্রোডিউসার কাউন্সিলের চেয়ারম্যান জেডি মোজিটিয়া বলেছেন, ‘এখনকার নিয়ম অনুযায়ী শুটিং বন্ধ থাকবে। আমরাও একপ্রকার প্রথম সারির যোদ্ধা হিসেবে কাজ করছি। কারণ, আমরা গৃহবন্দী মানুষের বিনোদনের ব্যবস্থা করছি। আমরা মানসিক অবসাদ থেকে সবাইকে দূরে রাখার চেষ্টা করছি। আমরা সরকারের নিয়ম নিশ্চয়ই মানব।’
লকডাউনের কারণে ‘পাঠান’, ‘গাঙ্গুবাই কাঠিয়াবাড়ি’, ‘টাইগার থ্রি’, ‘ময়দান’সহ অনেক ছবির শুটিং বন্ধ হয়ে গেল। ‘গাঙ্গুবাই কাঠিয়াবাড়ি’ ছবিতে আলিয়া ভাটের মাত্র এক দিনের শুটিং বাকি আছে। ২০২০ সালের মতো এবারও বিনোদনজগতকে আর্থিক মন্দার মুখ দেখতে হচ্ছে। গত বছরের আর্থিক ক্ষতি সামলে ওঠার আগে আবার একটি বড় ধাক্কা এল ভারতীয় বিনোদনজগতের জন্য।

default-image
বিজ্ঞাপন
বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন