বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

মুম্বাইয়ের উচ্চ আদালতে এক লাখ টাকা মুচলেকা দিয়ে আরিয়ান জামিন পান। পাশাপাশি চাওয়া হয়েছিল নিশ্চয়তা। আরিয়ানের জামিনদার হয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী ও শাহরুখের বন্ধু জুহি চাওলা।
শুধু এখানেই শেষ নয়, আরিয়ানের জামিনের শর্তে আরও বলা হয়েছিল, আদালতে পাসপোর্ট জমা দিতে হবে আরিয়ানকে। দেশ ছাড়া যাবে না। প্রয়োজনে নিতে হবে বিশেষ আদালতের অনুমতি। এমনকি মুম্বাইয়ের বাইরে যেতে হলে এই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাকে আগে থেকে জানাতে হবে এবং তাঁর অনুমতি নিতে হবে।
এ ছাড়া এই মামলার কোনো সহঅভিযুক্ত ব্যক্তির সঙ্গে কোনো রকম যোগাযোগ রাখা যাবে না। সুতরাং বন্ধু আরবাজ মার্চেন্টের সঙ্গে কথা বলা আপাতত বন্ধ আরিয়ানের। এই মামলার সঙ্গে প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে যোগাযোগ আছে এমন কারও সঙ্গেই যোগাযোগ রাখা যাবে না।

default-image

তদন্তের সঙ্গে জড়িত কোনো সাক্ষীকে প্রভাবিত করা কিংবা তথ্য-প্রমাণ লোপাটের চেষ্টা থেকে বিরত থাকবে অভিযুক্ত ব্যক্তি। শুধু তা–ই নয়, এই শর্তগুলোর একটিও যদি মেনে নিতে ব্যর্থ হন আরিয়ান খান তবে এনসিবির পক্ষ থেকে জামিন খারিজের আবেদন বিশেষ আদালতে করতে পারবে।

default-image

গত ২ অক্টোবর মুম্বাই উপকূলে কর্ডেলিয়া প্রমোদতরি থেকে আটক করা হয় আরিয়ানসহ সাতজনকে। তারপর মাদক সেবন ও মাদক চক্রের সঙ্গে জড়িয়ে থাকার অপরাধে ৩ অক্টোবর তাঁদের গ্রেফতার করা হয়। প্রায় এক মাস জেলে থাকার পর বাড়ি ফেরেন আরিয়ান খান।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন