default-image

কারিনা কাপুর খান দ্বিতীয়বার মা হতে যাচ্ছেন, সে তো সবারই জানা। প্রথমবারের মতো এবারও তিনি অত্যন্ত সক্রিয়। এ সময়ে নানা কাজে নিজেকে ব্যস্ত রেখেছেন এই বলিউড তারকা। এমনকি এই করোনাকালেও দিল্লি গিয়ে আমির খানের ‘লাল সিং চাড্ডা’ ছবির শুটিং করেছেন। এটা শুনে অনেকেই ভ্রু কুঁচকেছেন। সেটার সমুচিত জবাবও দিয়েছেন বলিউডের নবাবপত্নী।

বিজ্ঞাপন
default-image

আগস্টে দ্বিতীয়বার মা হওয়ার কথা কারিনার, সাইফ আলী খান ও কারিনা মিলেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সেটা ঘোষণা করেছিলেন। এরপর লকডাউন শিথিল হতেই কারিনা উড়াল দিয়েছিলেন দিল্লিতে ‘লাল সিং চাড্ডা’র শুটিংয়ে। তখন তিনি পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। এরপর থেকেই নানা সমালোচনা। অনেকের মতে, গর্ভাবস্থায় কারিনার শুটিং করার কী প্রয়োজন ছিল? তাঁর এখন পুরোপুরি বিশ্রাম নেওয়া উচিত। এ নিয়ে মুখ খুলেছেন কারিনা। এক সাক্ষাৎকারে বলেছেন, ‘আমি অন্তঃসত্ত্বা, অসুস্থ নই। গর্ভাবস্থা অসুস্থতা নয় যে আমি বাড়িতে বসে থাকব। এটা সত্যি যে এ সময় কিছু শারীরিক অসুবিধা হয়। কিন্তু এ সময়ে নিজের যত্ন নিজেকেই নিতে হয়। নিজের দেখভাল নিজেকেই করতে হয়। শুধু গর্ভাবস্থার জন্য কাজকর্ম ছেড়ে ঘরে বসে যাওয়া সঠিক সিদ্ধান্ত নয়। আর আমি আমার কাজকে রীতিমতো উপভোগ করি।’

তবে নবাবপত্নীর মতে, তিনি তাঁর প্রতিশ্রুতি পালন করেছেন। কারণ, ‘লাল সিং চাড্ডা’ ছবির শুটিং কারিনা অনেকটাই সেরে ফেলেছিলেন। এপ্রিলেই ছবির শুটিং শেষ হয়ে যেত। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে তা সম্ভব হয়নি। তাই কারিনার মতে, মাঝপথে এই ছবি তিনি কখনোই ছেড়ে দিতে পারেন না। সেটা পেশাদারি আচরণ হতো না। তবে এর মধ্যে নতুন কোনো কাজে তিনি যুক্ত হননি। মজা করে তিনি বলেছেন, ‘আমার পরিবারের সদস্যরা আমাকে নিয়ে নানা ঠাট্টা-তামাশা করে। তারা মজাচ্ছলে বলে যে আমার প্যান্টে পিঁপড়া আছে। তাই আমি চুপ করে এক জায়গায় বসে থাকতে পারি না।’

default-image

প্রথম গর্ভাবস্থা কারিনা দারুণ উপভোগ করেছিলেন। এমনকি গর্ভকালীন অবস্থায় খ্যাতিমান নকশাকার মনীশ মালহোত্রার পোশাক গায়ে ‘ল্যাকমে ফ্যাশন উইক’-এর মঞ্চ আলো করেছিলেন। এ ছাড়া ছবির শুটিং ছাড়া আরও নানা কাজে নিজেকে ব্যস্ত রাখতেন। গর্ভাবস্থা নিয়ে কখনোই তিনি কোনো রাখঢাক করেননি। এমনকি বেবি বাম্পের ছবি প্রকাশ করে রীতিমতো ঝড় তুলেছিলেন। এরপর থেকেই ‘বেবি বাম্প’ দেখানো বলিউড নায়িকাদের ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়ায়। এবারের প্রেগন্যান্সি নিয়েও খুব উৎফুল্ল কারিনা। তৈমুরের সঙ্গীর অপেক্ষায় পুরো নবাব পরিবার।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন