বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

২০১০ সালে তেলেগু ছবি ‘ইয়ে মায়া চেসাবে’তে একসঙ্গে কাজ করেন সামান্থা রুথ প্রভু ও নাগা চৈতন্য। সেই থেকেই প্রেম। ২০১৭ সালের ৬ অক্টোবর হিন্দু রীতিতে এবং পরদিন খ্রিষ্টান রীতিতে বিয়ে করেন দুজন। সম্প্রতি হঠাৎ করেই তাঁদের বিচ্ছেদের গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে ইন্টারনেটে। এমনকি বিবাহবিচ্ছেদের পর খোরপোশ হিসেবে সামান্থা কত কোটি টাকা পাবেন, সেসব নিয়েও ছড়িয়েছে খবর। ভারতের অনেক সংবাদ পোর্টাল কিছুদিন আগে জানিয়েছিল, দু–তিন মাসের মধ্যে তাঁদের বিচ্ছেদ হতে যাচ্ছে। তবে এসব নিয়ে কোনো মন্তব্যই করেননি দুজন।

default-image

ইনস্টাগ্রামের সেই পোস্টে আজ সামান্থা লিখেছেন, ‘আমাদের সব শুভাকাঙ্ক্ষীর উদ্দেশে বলছি, অনেক আলোচনা ও চিন্তাভাবনা করে সিদ্ধান্ত নিয়ে আমরা স্বামী-স্ত্রী দুজন দুজনের পথ খুঁজে নিয়েছি। আমরা ভাগ্যবান যে এক দশকের বেশি সময় ধরে আমাদের মধ্যে যে বন্ধুত্ব ছিল, যা আমাদের সম্পর্কের মূল ভিত্তি, আমরা বিশ্বাস করি, সব সময় আমাদের মধ্যে সেই বন্ধন থাকবে। আমাদের ভক্ত, শুভাকাঙ্ক্ষী ও গণমাধ্যমের বন্ধুদের অনুরোধ, এ রকম একটা কঠিন সময়ে আমাদের পাশে থাকুন এবং আমাদের নিজের মতো থাকার সুযোগ দিন। সহযোগিতার জন্য ধন্যবাদ।’

default-image

যত দূর জানা যায়, এই দম্পতির সম্পর্ক ভাঙার মূল কারণ সামান্থার সিনেমা ও ক্যারিয়ারের প্রতি নিরাপস নিবেদন। তাঁর ক্যারিয়ারে এখন দুরন্ত গতি। আলোচিত সিরিজ ‘দ্য ফ্যামিলি ম্যান টু’তে সামান্থার অভিনয় প্রশংসিত হয়েছে। এ ছাড়া বিয়ের পর খোলামেলা বেশ কিছু ফটোশুট করিয়েছেন সামান্থা। এসবেই নাকি ঘোর আপত্তি আক্কিনেনি পরিবারের। এই দক্ষিণি অভিনেত্রীর স্বামী নাগা আর শ্বশুর জনপ্রিয় চলচ্চিত্র তারকা নাগার্জুন চান না যে বাড়ির বউ এ রকম ফটোশুট করুন বা পর্দায় হয়ে উঠুন স্বল্পবসনা। শিগগির গুণাশেখর পরিচালিত ‘শকুন্তলম’ ছবিতে দেখা যাবে সামান্থাকে।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন