বিজ্ঞাপন

ফিলিস্তিনে লাগাতার বোমা হামলা চালাচ্ছে ইসরায়েল। এ ছাড়া গাজা উপত্যকাসহ বিভিন্ন এলাকায় অভিযানও চালাচ্ছে ইসরায়েলি বাহিনী। দেশটির নিরাপত্তা বাহিনী ও পুলিশ ভবন ছাড়াও ফিলিস্তিনের সশস্ত্র বাহিনীর কয়েকটি ভবনে হামলা চালানো হয়েছে।

এ প্রসঙ্গেই স্বরা ভাস্কর টুইট করেছিলেন। ‘আল–আকসা’–‘ফ্রি ফিলিস্তিন’ হ্যাশট্যাগে তিনি পোস্ট করেছেন, ‘ইসরায়েল বর্ণবাদী দেশ। ইসরায়েল জঙ্গিদেশ।’

default-image

আরেক পোস্টে তিনি লিখেছেন, ‘ফিলিস্তিন ও ফিলিস্তিনিদের জন্য ন্যায়বিচারের দাবি কেবল ধর্মের জন্য নয়, সেটা হওয়া উচিতও নয়। এটি সার্বিকভাবে সাম্রাজ্যবাদের বিরুদ্ধে, ঔপনিবেশিকতার বিরুদ্ধে এবং বৈষম্যের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়ার দাবি। এ বিষয়ে আমাদের সবার সচেতন হতে হবে, এমনকি অমুসলিমদেরও।’ প্রায় ১১ বছর আগে ফিলিস্তিনের গাজায় দেশটির পতাকা হাতে যেন ইসরায়েলের সেনাদেরই মধ্যমা দেখানো একটি বিতর্কিত ছবিও পোস্ট করেন স্বরা।

স্বরার দুই টুইট নিয়ে অনলাইনে শোরগোল শুরু হয়ে গেছে। বন্ধুরাষ্ট্রকে কটাক্ষ করায় সে দেশের নেটজনতার একাংশের রোষানলে পড়েন স্বরা ভাস্কর। কেউ তাঁকে ‘খালাম্মা’ বলে সম্বোধন করে শ্লেষাত্মক ভঙ্গিতে জানতে চেয়েছেন, ইসরায়েল ভারতের ‘বন্ধু’দেশ।

default-image

অথচ সেই দেশকে কটাক্ষ করে ফিলিস্তিনকে সমর্থন করার কী অর্থ? কেউ কেউ এমনও বলেছেন, এই ইস্যুতে ফিলিস্তিনের সমর্থন করা অনেকটা কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তানকে সমর্থন করার মতো। নিন্দুকেরা এই অভিনেত্রীকে এ–ও মনে করিয়ে দেন, ‘কখনো কখনো নিজের দেশকে নিজের রাজনৈতিক স্বার্থের ওপরেও স্থান দিতে হয়। তবে আপনার কাছ থেকে এসব প্রত্যাশা করাটা আসলে একটু বেশি হয়ে যায়।’ ভারতের সঙ্গে ইসরায়েলের কূটনৈতিক সম্পর্ক মজবুত, করোনা মোকাবিলাতেও ভারতের দিকে সাহায্যের হাত বাড়িয়েছে এই দেশ। অবশ্য অনেকে আবার স্বরার সাহসিকতাকে অভিবাদন জানিয়েছেন।

default-image

চলতি মাসের শুরুতে টুইটারে ‘ভারতের নতুন প্রধানমন্ত্রী প্রয়োজন’ মন্তব্য করে ট্রলের শিকার হন স্বরা। সে দেশের সাংবাদিক শেখর গুপ্তর টুইটের পরিপ্রেক্ষিতে এই মন্তব্য করেছিলেন স্বরা।

নিজের টুইটে শেখর গুপ্ত লিখেছিলেন, ‘মোদির নতুন টিম দরকার, যদি পিএমও চায় দেশটা এগিয়ে যাক।’ এই টুইট শেয়ার করে স্বরা লেখেন, ‘ভারতের নতুন প্রধানমন্ত্রী প্রয়োজন। যদি তাঁরা প্রিয়জনদের অক্সিজেন সংকটে কষ্ট পেতে দেখতে না চান।’ স্বরার এই টুইটেও শোরগোল পড়ে যায়। অনেকেই অভিনেত্রীকে এক হাত নেন। স্বরার পোস্টের জবাবে একজন লেখেন, ‘দুঃখিত, ২০২৪ সালের আগে সেটা আর সম্ভব নয়। ততক্ষণ মানিয়ে নিতেই হবে।’ আরেকজন আবার ভুল তথ্য ছড়ানোর জন্য স্বরার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান।

default-image

এর আগে বলিউডে বর্ণ ও লিঙ্গবৈষম্য, যৌন হয়রানি নিয়ে সরব হয়েছিলেন স্বরা ভাস্বর। নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন (সিএএ) ও জাতীয় নাগরিক নিবন্ধনের (এনআরসি) কড়া সমালোচনা করে সেসব বাতিলের দাবিও জানিয়েছেন।
২০১২ সালে ‘তনু ওয়েডস মনু’ সিনেমার মধ্য দিয়ে স্বরা ভাস্করকে চিনেছে বলিউড। এরপর ‘রানঝানা’, ‘প্রেম রতন ধন পায়ো’, ‘তনু ওয়েডস মনু রিটার্নস’, ‘ভিরে দ্য ওয়েডিং’ ছবিগুলোর মাধ্যমে বলিউডে নিজের শক্ত অবস্থান তৈরি করেন স্বরা।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন