default-image

গত বছরের ঠিক এই সময়ের খবর। বিবাহবিচ্ছেদ হচ্ছে ভারতীয় প্লেব্যাক শিল্পী সুনিধি চৌহানের। স্বামী হিতেশ সোনিকের সঙ্গে আট বছরের সম্পর্কের ইতি হতে যাচ্ছে। যদিও এ ব্যাপারে সুনিধি মুখ খোলেননি। তবে ভারতীয় গণমাধ্যম থেকে জানা গেছে, তাঁরা আলাদা থাকতেন। বিবাহবিচ্ছেদের জন্য আদালতেরও দ্বারস্থ হয়েছিলেন।
তবে এক বছর পর ঠিক এই সময়ে এসেই সুনিধি চৌহান জানিয়েছেন, একসঙ্গেই আছেন তাঁরা। হিতেশ সোনিকের সঙ্গে বিবাহবিচ্ছেদ হয়নি। সম্প্রতি ভারতীয় একটি দৈনিককে দেওয়া সাক্ষাৎকারে সুনিধি জানিয়েছেন, এখন সব ঠিক আছে। তিনি ও তাঁর স্বামী হিতেশ সোনিক একসঙ্গেই থাকছেন, এক ছাদের নিচে।

বিজ্ঞাপন
default-image

গত বছর সুনিধি, তাঁর স্বামী হিতেশ ও তাঁদের এক বন্ধু গোয়াতে বেড়াতে যান। সেখান থেকে ফেরার পর দুজনের সম্পর্ক ভালো যাচ্ছিল না। তাঁদের মধ্যে প্রায়ই কথা–কাটাকাটি ও ঝগড়া লেগে থাকত। কোনোভাবেই একে অপরকে মানিয়ে নিতে পারছিলেন না।
দুই বছরের প্রেম ছিল তাঁদের। ২০১২ সালে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন সুনিধি চৌহান ও হিতেশ সোনিক। বিয়ের পর দুজনে গোয়াতে বিশাল রিসেপশন পার্টি দেন। খুব ভালোই ছিলেন তাঁরা। ২০১৮ সালে তাঁদের একটি ছেলে হয়। নিজের গান আর পারিবারিক জীবন নিয়ে ভালো কাটছিল তাঁদের দিন।
কিন্তু এক বছর ধরে তাঁদের মধ্যে অশান্তি শুরু। গত বছর লকডাউন শুরু হওয়ার আগেই আলাদা থাকতে শুরু করেন সুনিধি-হিতেশ। বিবাহবিচ্ছেদের মামলাও করেছিলেন তাঁরা। বেশ কিছুদিন ধরে আলাদা থাকলেও সেই খবর জনসমক্ষে আনেননি। এমনকি এ বিষয়ে প্রশ্ন করলে স্বীকারও করতে চাননি।

default-image

তবে হিতেশ তখন বলেছিলেন, ‘আমার মনে হয় সে উত্তর দিতে চায়নি, কারণ এসব বাজে ব্যাপারে মাথা ঘামাতে চায়নি। আমরা এক ছাদের তলাতেই আছি। আর আমি এখন ঘর পরিষ্কার করতে এতটাই ব্যস্ত যে বাজে খবর পড়ে সময় নষ্ট করার মতো সময়ও আমার হাতে নেই। হতে পারে আমার ঘর পরিষ্কার করা তাঁর পছন্দ হয়নি। তাই এই ধরনের খবর রটেছে!’
হিতেশ সোনিকের সঙ্গে এটি সুনিধি চৌহানের দ্বিতীয় বিয়ে। এর আগে মাত্র ১৮ বছর বয়সে তাঁর বিয়ে হয়েছিল কোরিওগ্রাফার ববি খানের সঙ্গে। ‘ধুম্মা চালে’, ‘আজা নাচলে’, ‘ডান্স পে ডান্স’, ‘শিলা কি জওয়ানি’, ‘কামলি’সহ বলিউডে বেশ কিছু প্লেব্যাক দিয়ে সুনিধি চৌহান নিজের জায়গা করে নিয়েছেন। বিশেষ করে বলিউডের আইটেম গানে প্রায়ই তাঁর কণ্ঠ শোনা যায়।

বিজ্ঞাপন
বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন