default-image

একটা সময়ে রণবীর কাপুর ও দীপিকা পাড়ুকোনের প্রেমের গল্প ছিল খোলা বইয়ের পাতার মতোই। লুকোচুরি না খেলে প্রকাশ্যেই নিজেদের প্রেমিক-প্রেমিকা বলে পরিচয় দিতেন তাঁরা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তাঁদের প্রেম টেকেনি। প্রেম ভেঙে গেলেও, আজও বন্ধু ও সহকর্মী তাঁরা। বর্তমানে অভিনয় করছেন ইমতিয়াজ আলীর ‘তামাশা’ ছবিতে। আগের তুলনায় বন্ধুত্ব কিছুটা ফিকে হয়ে গেলেও, ছবির সেটে তাঁরা একে অন্যের সঙ্গে আন্তরিক ব্যবহারই করছেন। এমনকি শরীর ফিট রাখতে একসঙ্গে শরীরচর্চাও করছেন তাঁরা।
অথচ কিছুদিন আগেই বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত খবরে বলা হয়, ‘তামাশা’ ছবির শুটিং স্পটে যাওয়ার সময় এক বিমানে চড়তে আপত্তি তুলেছিলেন রণবীর ও দীপিকা। শুধু তাই নয়, যে হোটেলে তাঁদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়, দূরত্ব বজায় রাখতে হোটেলের দুটি তলায় রুম দেওয়ার অনুরোধ করেন তাঁরা। কিন্তু সম্প্রতি এক খবরে মিড-ডে ডটকম জানিয়েছে, একে অন্যের সঙ্গে কাছের বন্ধুর মতোই আচরণ করছেন রণবীর-দীপিকা। ছবিতে অভিনয়ের ফাঁকে ফাঁকে একসঙ্গে শরীরচর্চাও করছেন।
২০০৮ সালে মুক্তি পাওয়া ‘বাঁচনা অ্যায় হাসিনো’ ছবিতে জুটি বেঁধে অভিনয় করার সময় প্রেমে পড়েন রণবীর ও দীপিকা। প্রকাশ্যেই রণবীরের সঙ্গে ভালোবাসার কথা প্রকাশ করেছিলেন দীপিকা। এমনকি রণবীর কাপুরের নামের দুটি আদ্যাক্ষর নিয়ে ঘাড়ে ‘আর কে’ লেখা উল্কিও আঁকিয়েছিলেন। কিন্তু ২০০৯ সালে রণবীর-দীপিকার প্রেম ভেঙে যায়।
রণবীরের সঙ্গে বিচ্ছেদের কারণ জানাতে গিয়ে ২০১০ সালে এক সাক্ষাৎকারে দীপিকা বলেন, ‘প্রথম সে যখন আমার সঙ্গে প্রতারণা করে, তখন ভেবেছিলাম আমাদের সম্পর্ক কিংবা আমার মধ্যে কোনো ঘাটতি আছে। কিন্তু কেউ প্রতারণাকে অভ্যাসে পরিণত করলে বুঝতে হবে, নিশ্চয়ই কোনো না কোনো সমস্যা আছে। হ্যাঁ, আমি বোকার মতো তাকে দ্বিতীয়বার সুযোগ দিয়েছিলাম। কারণ সে আমার কাছে ক্ষমা চেয়েছিল।’
দীপিকা আরও বলেন, ‘আমার আশপাশের সবাই তার বিপথগামিতার কথা বললেও, আমি তাকে বিশ্বাস করতে চেয়েছিলাম। একদিন আমি তাকে হাতেনাতে ধরে ফেলি। বিচ্ছেদের পর স্বাভাবিক হতে আমার বেশ খানিকটা সময় লেগে যায়। যে সম্পর্ক ভেঙে গেছে, তা আর কখনোই জোড়া লাগবে না। আমি কখনোই তার কাছে ফিরতে পারব না।’

বিজ্ঞাপন
বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন