জানা গেছে, সাবেক এই বিশ্বসুন্দরীর অলংকার বানানোর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল হায়দরাবাদের এক সংস্থাকে। দশম শতাব্দীর রানি-মহারানির গয়নার আদলে ঐশ্বরিয়ার অলংকার নির্মাণ করা হয়েছে। অ্যাশের ঝুমকা, নেকলেস, আংটি কুন্দন দিয়ে বানানো হয়েছে। ছবির পোস্টারেই ঐশ্বরিয়ার অলংকারের দ্যুতি সবার নজর কেড়েছে।

default-image

এই বলিউড নায়িকার পোশাক নির্মাণের পেছনেও কঠোর পরিশ্রম লুকিয়ে আছে। ‘পিএস ওয়ান’ ছবিতে ঐশ্বরিয়ার সঙ্গে মূল চরিত্রে দক্ষিণি অভিনেত্রী তৃষাকে দেখা যাবে। জানা গেছে, তৃষার অলংকারও বিশেষভাবে নির্মাণ করা হয়েছে।
পরিচালক মণিরত্নম ‘পিএস ওয়ান’ ছবির জন্য কোনো কার্পণ্য করেননি। সেট ডিজাইন থেকে পোশাক, ভিএফএক্স—সব ক্ষেত্রেই মুড়িমুড়কির মতো টাকা উড়িয়েছেন তিনি।

default-image

এই ছবির টিজারেই দেখা গেছে বিশালাকার সেট। দশম শতাব্দীর আদলে এই ব্যয়বহুল সেট নির্মাণ করা হয়েছে। জানা গেছে, ছবির বাজেট ৫০০ কোটি ছাড়িয়ে গেছে। সবচেয়ে ব্যয়বহুল ভারতীয় ছবির তালিকায় মণিরত্নমের এই ছবির নাম উঠে এসেছে। ‘পিএস ওয়ান’ ছবির মাধ্যমে চার বছর পর রুপালি পর্দায় ফিরতে চলেছেন ঐশ্বরিয়া। আর তাঁর যে এটা দুর্দান্ত প্রত্যাবর্তন, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

default-image

কারণ, একদিকে মণিরত্নমের মতো পরিচালকের মেগা বাজেটের ছবিতে তিনি, তার ওপর এই ছবিতে তাঁকে দ্বৈত চরিত্রে দেখা যাবে। রানি নন্দিনী ছাড়া ঐশ্বরিয়াকে দেবী মন্দাকিনী রূপেও দেখা যাবে। এই দুটির মধ্যে একটি আবার ধূসর চরিত্র। তাই একজন অভিনেত্রী হিসেবে অ্যাশ নিজেকে নানাভাবে মেলে ধরার সুযোগ পাবেন। ১৯৯৫ সালে কল্কি কৃষ্ণমূর্তির লেখা উপন্যাস ‘পোন্নিইন সেলভান’-এর প্রেরণায় ছবিটি নির্মাণ করা হয়েছে। হিন্দি, তামিল, তেলেগু, কন্নড়, মালয়ালম ভাষায় ছবিটি ৩০ সেপ্টেম্বর মুক্তি পাবে। জনপ্রিয় সংগীত পরিচালক এ আর রাহমান ‘পিএস ওয়ান’ ছবির সংগীত পরিচালনা করছেন। এই ছবিতে অন্যান্য মূল চরিত্রে আছেন বিক্রম, কার্থী, জয়ম রবি, সোবিতা ধুলিপালা, তৃষাসহ অনেকে।

default-image
বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন