বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আরবাজের সঙ্গে দেখা হওয়ার পর গতকাল এক সাক্ষাৎকারে আসলাম বলেন, ‘জামিনের বিষয়ে কথাবার্তা বলতে ওর সঙ্গে জেলে দেখা করেছিলাম। আমি আমার ছেলের স্বাস্থ্য নিয়ে চিন্তিত। ওর সাত কেজি ওজন কমে গেছে। ওর শারীরিক অবস্থা খারাপ হচ্ছে। জেলের খাবারের মান ভালো নয়। তাই ও খাওয়াদাওয়া প্রায় ছেড়ে দিয়েছে। আর শুরু থেকেই ও অত্যন্ত দুশ্চিন্তার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে।’
আরিয়ানকে নিয়েও উদ্বিগ্ন আরবাজ। এ প্রসঙ্গে আসলাম বলেন, ‘আরবাজ বলেছে আরিয়ানকে ও জেলে একলা রেখে কিছুতে বাইরে যাবে না। আর আরিয়ানের যাতে কোনো ক্ষতি না হয়, আরবাজ সেই নিয়ে চিন্তিত। ও বলেছে, জেলে ওরা একসঙ্গে এসেছে আর জেলের বাইরে একসঙ্গে যাবে। আমি ওর মুখে এসব কথা শুনে খুবই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েছি। ওর কাছে সবার আগে বন্ধুত্ব।’

default-image

আরবাজের বাবা বেশ কিছুদিন আগে এক সাক্ষাৎকারে বলেছিলেন, ‘বাচ্চাদের ওপর যেসব অভিযোগ আনা হয়েছে, তা ভিত্তিহীন। সংস্থা এর তদন্ত করছে। এত আগে এ ব্যাপারে বলা ঠিক নয়। এনসিবি খুব সহায়তা করছে। আর বাচ্চাদের সঙ্গে এনসিবির কর্মকর্তাদের ব্যবহার খুবই ভালো। একজন আইনজীবী হিসেবে আমার আদালতের ওপর পূর্ণ আস্থা রয়েছে। সত্যের নিশ্চয় জয় হবে। ও নির্দোষ প্রমাণিত হবে।’

আসলামের দাবি, আরবাজ অতিথি হিসেবে ২ অক্টোবর রাতে প্রমোদতরিতে আয়োজিত পার্টিতে যাচ্ছিল।

default-image

পার্টিতে যাওয়ার আগেই তাকে আটক করা হয়। আসলাম আদালতে দাবি করেছেন, এনসিবি সেদিন রাতের সিসিটিভি ফুটেজ যেন পেশ করে। আর তাহলে আসল সত্য ফাঁস হবে। তিনি আরও জানিয়েছেন, আদালত হোয়াটসঅ্যাপ চ্যাটকে প্রমাণ হিসেবে গ্রহণ করে না।

default-image

এনসিবি জানিয়েছে, আরবাজের জুতার ভেতর থেকে ছয় গ্রাম মাদক তারা উদ্ধার করেছে। গতকাল বোম্বে হাইকোর্টে এই মামলা চলাকালে আরিয়ান খানের আইনজীবী মুকুল রোহতগি জানিয়েছেন, ‘আরবাজ অস্বীকার করেছেন যে ওর থেকে মাদক পাওয়া গেছে। আর আমার মক্কেল (আরিয়ান) অন্যের সাজা কেন ভোগ করবে? কারণ, আরিয়ানের থেকে কোনো মাদকদ্রব্য পাওয়া যায়নি। আর ওর কোনো শারীরিক পরীক্ষা হয়নি।’
বোম্বে হাইকোর্ট আজ আরিয়ান আর আরবাজের জামিনের রায় শোনাবেন।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন