default-image

বলিউডে আবারও করোনার হানা । এবার করোনায় সংক্রমিত হয়ে মারা গেছেন বর্ষীয়ান অভিনেতা কিশোর নন্দলস্কর। তাঁর বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। তিনি সেই অর্থে জনপ্রিয় তারকা না হলেও বলিউডের পরিচিত মুখ। কয়েক দশক কাজ করেছেন বিভিন্ন চলচ্চিত্রে। হিন্দির পাশাপাশি মারাঠি ছবিতে তিনি অভিনয় করেছেন। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে না-ফেরার দেশে পাড়ি জমান কিশোর নন্দলস্কর।
'বাস্তব', 'সিংঘম', 'সিম্বা'র মতো বলিউডের একাধিক হিট ছবির অভিনেতা কিশোর নন্দলস্করের মৃত্যুসংবাদ নিশ্চিত করেন তাঁর নাতি অনীশ। ভারতীয় গণমাধ্যমকে তিনি জানান, অভিনেতার কোভিড পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ আসার পর স্থানীয় একটি কোভিড-১৯ সেন্টারে তাঁকে ভর্তি করা হয়েছিল, তবে পরিস্থিতি খারাপের দিকে গেলে গত সপ্তাহেই অন্য আরেকটি বড় হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়। তবু শেষ রক্ষা হলো না। তাঁর শ্বাস নিতে কষ্ট হচ্ছিল, শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা দ্রুত হারে কমছিল।

default-image

১৯৮৯ সালে 'ইনা মিনা ডিকা' ছবি দিয়েই রুপালি দুনিয়ায় আত্মপ্রকাশ কিশোর নন্দলস্করের। এরপর 'মিস ইউ মিস', 'গাওন থোর পুডারি চোর', 'জারা জাপুন কারা', 'মধ্যমবর্গ—দ্য মিডল ক্লাস'-এর মতো একাধিক জনপ্রিয় মারাঠি ছবিতে অভিনয় করেছেন অভিনেতা।

বিজ্ঞাপন

'খাঁকি', 'বাস্তব : দ্য রিয়েলিটি', 'সিংঘম'-এর মতো সুপারহিট বলিউড ছবিরও অংশ থেকেছেন কিশোর নন্দলস্কর। তবে গোবিন্দার 'জিস দেশ মে গঙ্গা রাহতা হ্যায়' ছবির 'সন্নাটা' চরিত্রে অভিনয়ের জন্যই দর্শক সবচেয়ে বেশি তাঁকে মনে রেখেছে।

default-image

এদিকে করোনায় আক্রান্ত হয়ে বলিউডের নব্বইয়ের দশকের সংগীত পরিচালক শ্রাবণ রাঠৌরের শারীরিক অবস্থাও আশঙ্কাজনক। দিন কয়েক আগে করোনায় আক্রান্ত হন তিনি। শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাঁকে। হাসপাতাল সূত্রের খবর, আপাতত ভেন্টিলেশনে রাখা হয়েছে সংগীত পরিচালককে।
ভারতীয় এক সংবাদমাধ্যমকে শ্রাবণের ছেলে জানিয়েছেন, তাঁর বাবার শারীরিক অবস্থা বেশ আশঙ্কাজনক। এমনিতে তাঁর বাবা ডায়াবেটিস রোগে ভুগছিলেন । তার ওপর করোনা সংক্রমণের ফলে তাঁর ফুসফুসেরও ক্ষতি হয়।

default-image

নব্বইয়ের দশকে নাদিম আখতার সাইফির সঙ্গে জুটি বেঁধে কাজ করতেন শ্রাবণ। বলিউডে নাদিম-শ্রাবণ নামেই পরিচিত ছিলেন তাঁরা। 'সজন', 'সড়ক', 'পারদেশ', 'আশিকি'র মতো ছবিতে সংগীত পরিচালনা করেছিলেন এই জুটি।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন