বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

তিনি আরও লিখেছেন, ‘গত চার দিন কিছু অতিথির অভ্যর্থনায় ব্যস্ত ছিলাম। তাই আপনাদের সেবায় আসতে পারিনি। আবার আমি সারা জীবনের জন্য আপনাদের সেবা করতে ফিরে এসেছি।’

default-image

আয়কর দপ্তরের তথ্যমতে, এ বছর ১ এপ্রিল পর্যন্ত ১৮ দশমিক ৯৪ কোটি রুপি অনুদান পেয়েছে সোনুর এনজিও। এই টাকা থেকে সংস্থাটি ১ দশমিক ৯ কোটি রুপি বিভিন্ন ত্রাণ তহবিলে খরচ করেছে। অবশিষ্ট ১৭ কোটি রুপি ব্যাংক হিসাবে আছে। এই অভিযোগের জবাবে সোনু বলেছেন, প্রতিটা ফাউন্ডেশনেরই অর্থ খরচ করতে সময় লাগে। আর এই অর্থ অত্যন্ত সাবধানতার সঙ্গে তাঁরা খরচ করছেন।

সোনুর বক্তব্য, ফাউন্ডেশনের কাজ এভাবেই হয়, সব অর্থ একসঙ্গে খরচ করা যায় না। আর এই বলিউড তারকা জানিয়েছেন, একটি হাসপাতাল নির্মাণের স্বপ্ন তাঁর আছে। আর মানুষের সেবা করার কাজ এভাবেই তিনি চালিয়ে যেতে চান।

default-image

সোনুর বাসাসহ বিভিন্ন সংস্থায় আয়কর দপ্তরের অভিযানকে অনেকে রাজনীতির রং চড়িয়েছেন। তবে এই সব অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন সোনু। এই বলিউড অভিনেতা জানিয়েছেন, শুধু দিল্লি নয়, সব রাজ্যের তিনি ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর। রাজস্থান, গুজরাটসহ যে রাজ্য তাঁকে ডেকে পাঠাবে, তার ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হতে তিনি প্রস্তুত। সোনু বলেছেন, ‘আমি শিক্ষার্থীদের সাহায্য করতে চাই। তাই ওদের সাহায্য করতে আমাকে যেখানে ডেকে পাঠানো হবে, সেখানে আমি পৌঁছে যাব।’

সোনুর বিরুদ্ধে বৈদেশিক অবদান বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ আনা হয়েছে। এই অভিযোগের জবাবে তিনি পরিষ্কার বলেছেন, ‘একটা টাকাও আমার ব্যাংক হিসাবে নেই। ওই বিদেশি প্ল্যাটফর্ম থেকে সম্পূর্ণ অর্থ সোজা অসহায় মানুষদের কাছে পৌঁছে যায়। আমার বা আমার সংস্থার ব্যাংক হিসাবে আসে না।’

default-image

সোনু বলেছেন, আয়কর দপ্তর তদন্তের স্বার্থে যেসব কাগজপত্র চেয়েছিল, তা তিনি তাদের হাতে তুলে দিয়েছেন।
সোনু সুদের বাসাসহ তাঁর নানান দপ্তরে টানা চার দিন অভিযান চালিয়েছিল আয়কর দপ্তর। এই বলিউড তারকার বিরুদ্ধে ২০ কোটি রুপি আয়কর ফাঁকিসহ আরও নানা অভিযোগ এনেছিল আয়কর দপ্তর।

মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন