বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেত্রী কিরণ খের ব্লাড ক্যানসারে আক্রান্ত। ২০২০ সালের নভেম্বরে চণ্ডীগড়ে বাড়িতে হাত ভাঙে কিরণের। সেই চিকিৎসা চলাকালেই ধরা পড়ে মাল্টিপল মেলোমা, বিশেষ ধরনের রক্তের ক্যানসার। সেই থেকে মুম্বাইয়ের কোকিলাবেন হাসপাতালে চিকিৎসা চলছে তাঁর। এত দিন ভারতীয় বিভিন্ন গণমাধ্যম বলে আসছিল। তবে স্বামী অনুপম খের বা তাঁর পরিবারের কেউ নিশ্চিত করে কিছু বলেননি। এবার অনুপম খের সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটা লম্বা পোস্টের মাধ্যমে বিষয়টা খোলাসা করলেন।

default-image

অনুপম খের লিখেছেন, ‘নানা গুজব দানা বাঁধার আগে আমি আর সিকান্দার (কিরণ খেরের ছেলে) বিষয়টি পরিষ্কার করে বলি। কিরণ মাল্টিপল মেলোমায় আক্রান্ত। এটি একটি বিশেষ ধরনের ব্লাড ক্যানসার। ওর চিকিৎসা চলছে। কিরণ বরাবরই মানসিকভাবে খুব শক্ত আর লড়াকু। আমরা নিশ্চিত, সে আরও শক্তভাবে লড়াই করে জয়ী হয়ে ফিরে আসবে। আমরা ভাগ্যবান যে ওকে চমৎকার কয়েকজন চিকিৎসকের একটি দল দেখছে। ওর শরীরটাই একটা আস্ত হৃদয়। ও মানুষকে ভালোবাসতে ভালোবাসে। ভক্তরাও ওকে নিঃস্বার্থভাবে ভালোবাসে। জানি, আপনারা ওকে আপনাদের প্রার্থনায় রেখেছেন।’

default-image
বিজ্ঞাপন

প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, পরিণীতি চোপড়া, সুনীল শেঠি, রিতেশ দেশমুখ, শিল্পা শেঠিসহ অসংখ্য বলিউড তারকা এই পোস্টের নিচে কিরণ খেরের দ্রুত আরোগ্য কামনা করে মন্তব্য করেছেন। কিছু ভারতীয় গণমাধ্যম সংবাদ প্রকাশ করেছে যে কিরণ খেরের সারা শরীরে ছড়িয়ে পড়েছে ক্যানসার। পরিস্থিতি ক্রমেই জটিল হয়ে পড়ছে।

default-image

‘সরদারী বেগম’ আর ঋতুপর্ণ ঘোষ পরিচালিত ‘বাড়িওয়ালি’ সিনেমার জন্য দুবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। শেষবার বড় পর্দায় দেখা দিয়েছেন ২০১৪ সালে, পাঞ্জাবি সিনেমা ‘পাঞ্জাব ১৯৮৪’–এ। সে বছর থেকেই রাজনীতিতে মনোযোগী হন। ১৯৮৩ সালে ক্যারিয়ার শুরুও একটি পাঞ্জাবি সিনেমা দিয়ে।

default-image

২০১৪ সালে চণ্ডীগড় আসন থেকে সাংসদ নির্বাচিত হন কিরণ খের। পাঁচ বছর পর আবার একই আসন থেকে সাংসদ নির্বাচিত হন ৬৮ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী। ১৯৮৫ সালে তিনি অনুপম খেরের সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন। এর আগে ১৯৭৯ সালে কিরণ খেরের প্রথম স্বামী গৌতম বেরির ঘরে জন্ম নেয় সিকান্দার বেরি খের। সিকান্দারও পেশায় অভিনয়শিল্পী।

default-image
বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন