আয়ুষ্মান খুরানা ও তাহিরা কাশ্যপ
আয়ুষ্মান খুরানা ও তাহিরা কাশ্যপছবি:ইনস্টাগ্রাম

একটা দুর্দান্ত সময় পেরোচ্ছেন বলিউড অভিনেতা আয়ুষ্মান খুরানা। কী ঘরে কী বাইরে, তাঁর ইনস্টাগ্রাম পোস্ট দেখে তাই–ই মনে হচ্ছে। জীবনটাকে বন্ধু তাহিরা কশ্যপের সঙ্গে উড়িয়ে উদ্‌যাপন করছেন। এক যুগের যুগল জীবন নিয়ে আয়ুষ্মানের উচ্ছ্বাস সে কথাই মনে করিয়ে দিল।

তাহিরা কে? আপাতদৃষ্টিতে আয়ুষ্মানের স্ত্রী, যুগল জীবনের সঙ্গী। কিন্তু ১২ বছর এক ছাদের নিচে থেকে আয়ুষ্মানের উপলদ্ধি—তাহিরা শুধু স্ত্রী নন, ভালোবাসা, সঙ্গী ও জীবনের পথনির্দেশক।

default-image

২০০৮ সালে আয়ুষ্মান ও তাহিরা বিয়ে করেন। তার আগে ছিল লম্বা প্রেম। দুজনের ঘরজুড়ে এসেছে দুই শিশু—বিরাজবীর ও বারুশকা। দুই সন্তান আর স্ত্রীকে নিয়ে ১২ বছর পেরিয়ে আয়ুষ্মানের অনুভূতি আকাশসম। এটি ১২ বছরের কোনো সময় নয়। কখনো কখনো এটি ভালোবাসায় আর আনন্দে এতটাই টইটম্বুর হয়ে ওঠে যে তা হয়ে দাঁড়ায় অসীম। সময় দিয়ে তাকে আটকে দেওয়া যায় না। আয়ুষ্মানের ভাষায়, এটি ১২৫ বছর!

বিজ্ঞাপন

ইনস্টাগ্রামে আয়ুষ্মান লিখলেন, ‘একসঙ্গে ১২৫ বছর অথবা আরও বেশি। কারণ, তোমাকে আমি জানি শতাব্দী থেকে শতাব্দী এবং অনন্ত সময়। জীবনেও এই সম্পর্ক শেষ হওয়ার নয়। তুমি আমার সঙ্গী, ভালোবাসা, আমার ব্যক্তিগত স্ট্যান্ডআপ কমেডিয়ান, জীবনের পথপ্রদর্শক। আর সবকিছুর ঊর্ধ্বে তুমি আমার সেরা বন্ধু। আমি তোমার জন্য, তোমার সঙ্গে বুড়ো হতে চাই। আমি জানি, এটা হবে আমাদের জন্য দারুণ ব্যাপার। শুভ বিবাহবার্ষিকী তাহিরা কশ্যপ।’

default-image

আবেগঘন এই স্ট্যাটাসের সঙ্গে একটি ছবিও দিয়েছেন আয়ুষ্মান খুরানা। সেই ছবিতে দেখা গেছে তাহির ও আয়ুষ্মান দুজনই উচ্ছ্বসিত। আয়ুষ্মানের পিঠে চড়ে বসেছেন তাহিরা। তাহিরাও একই ছবি দিয়ে ভালোবাসা জানিয়েছেন আয়ুষ্মানের প্রতি। তাহিরা লিখেছেন, ‘আমি মিথ্য বলি না। এ রকমই ও আমাকে সব সময় তুলে রেখেছে। এটাই ভালোবাসা। আমি তোমাকে ভালোবাসি।’

বলিউড জানে, আয়ুষ্মান খুরানা তাঁর স্ত্রী আর পরিবারের প্রতি কতটা মনোযোগী। স্ত্রী, পরিবারের চেয়ে আর কিছুই বড় হতে পারে না—এটা আর কার জন্য সত্যি জানা নেই, তবে সত্যি আয়ুষ্মান খুরানার জন্য। তিনিই বোধ হয় বলিউডের খুব অল্প নায়কদের মধ্যে একজন, যাঁর সঙ্গে কোনো নারীকে জড়িয়ে গুজব বা ভুয়া খবর পর্যন্ত রটেনি।
উচ্চমাধ্যমিকে পড়ার সময় একই কোচিংয়ে পদার্থবিজ্ঞান পড়তে গিয়েছিলেন আয়ুষ্মান ও তাহিরা।

default-image

সেখানেই লাভ অ্যাট ফার্স্ট সাইট হয় তাঁদের। কিন্তু কেউ কিচ্ছুটি বলেননি। প্রেমের শুরু, তবে দুজনেই প্রেম গোপন রেখেছিলেন। বুদ্ধি করে আয়ুষ্মান প্রথমে বন্ধুত্বের প্রস্তাব দেন। যেদিন প্রেমের প্রস্তাব দিলেন, সেদিন তাহিরার উত্তরে অবাক হয়ে গিয়েছিলেন। ‘এই সহজ কথাটা বলতে এত সময় নিলে! আমি তো প্রথম দিন থেকেই তোমাকে পছন্দ করি।’

বিজ্ঞাপন

এরপর দুজনে একই সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গণযোগাযোগ নিয়ে পড়াশুনা করেছেন। একই সঙ্গে থিয়েটার করেছেন। তাহিরা চাকরি পেলে বিয়ে করেছেন। আর আয়ুষ্মান অভিনেতা হবার সংগ্রাম চালিয়ে গেছেন। সেদিন কেউ জানত না, বলিউডের খান আর কাপুর সাম্রাজ্যের ভিতর নিজের শক্ত অবস্থান গড়ে নেবেন আয়ুষ্মান খুরানা।
আয়ুষ্মানকে শেষ দেখা গেছে অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে, গুলাবো-সিতাবো ছবিতে। এ বছর মুক্তি পেয়েছে তাঁর শুভ মঙ্গল জ্যাদা সাবধান ছবিটিও। শিগগিরই একেবারে অন্য ধরনের ছবিতে দেখা যাবে এই অভিনেতাকে। পরিচালক অভিষেক কাপুর।

default-image
মন্তব্য পড়ুন 0