default-image

এবার খেপেছেন শাবানা আজমি। বলিউডের এই দাপুটে ও বর্ষীয়ান অভিনেত্রী বলেছেন, ‘পিএম নরেন্দ্র মোদি’ ছবিতে ইচ্ছে করে এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে গীতিকার হিসেবে তাঁর স্বামী জাভেদ আখতারের নাম ব্যবহার করেছেন নির্মাতারা। তিনি দাবি করেছেন, ‘দর্শকের মনে ভুল ধারণা তৈরির জন্য এমন পরিকল্পনা করা হয়েছে।’ গত বুধবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে নিয়ে তৈরি এই ছবির ট্রেলার প্রকাশ করা হয়েছে টি-সিরিজের ইউটিউব চ্যানেলে। ছবির ট্রেলারের শেষ দিকে রয়েছে শিল্পী ও কলাকুশলীদের নাম। সেখানে গীতিকার হিসেবে রয়েছেন জাভেদ আখতার, প্রসূন যোশি, সমীর, অভেন্দ্রকুমার উপাধ্যায়, সরদারা, পেরি জি এবং লাভরাজ। অথচ জাভেদ আখতার জানিয়েছেন, তিনি এই ছবির জন্য কোনো গান লেখেননি। গত শুক্রবার ভারতের প্রখ্যাত কবি ও গীতিকার জাভেদ আখতার টুইটারে লিখেছেন, ‘ছবির পোস্টারে গীতিকার হিসেবে আমার নাম দেখে অবাক! আমি তো “পিএম নরেন্দ্র মোদি” ছবির জন্য কোনো গানই লিখিনি।’

টুইটারে শাবানা লিখেছেন, ‘বোঝা যাচ্ছে, সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনা করে মানুষকে মিথ্যা বোঝানোর চেষ্টা করা হয় যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির জন্য জাভেদ গান লিখেছেন।’

default-image

জানা গেছে, ‘পিএম নরেন্দ্র মোদি’ ছবিতে যে গানটি ব্যবহার করা হয়েছে, সেই ‘ঈশ্বর আল্লাহ তেরে জাহাঁ মেঁ’ গানটি জাভেদ আখতার ‘নাইন্টিন ফোরটি সেভেন: দ্য আর্থ’ ছবির জন্য লিখেছিলেন। গানটিতে সুর করেন এ আর রহমান। ছবিটি মুক্তি পেয়েছিল ১৯৯৯ সালে। শাবানা আজমি টুইটারে লিখেছেন, ‘গানটি আসলে দীপা মেহতার সেই ছবি থেকে নেওয়া হয়েছে।’

‘পিএম নরেন্দ্র মোদি’ ছবির প্রযোজক সন্দীপ সিং সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, জাভেদ আখতারের লেখা পুরোনো একটি গান তাঁরা ব্যবহার করেছেন। সৌজন্যবশত তাই তাঁর নাম গীতিকারের তালিকায় রাখা হয়েছে।

এদিকে জাভেদ আখতারের পর বলিউডের আরেক প্রখ্যাত গীতিকার প্রতিবাদ জানিয়েছেন। তিনি সমীর অঞ্জন। ‘পিএম নরেন্দ্র মোদি’ ছবির গীতিকারের তালিকায় রয়েছে তাঁর নামও। মুম্বাইয়ের একটি পত্রিকাকে সমীর বলেছেন, ‘জাভেদ আখতারের টুইট দেখার পর আমি তাঁকে ফোন করে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেছি। ছবির পরিচালক বা প্রোডাকশন হাউস থেকে এই ছবিতে কাজ করার জন্য আমার সঙ্গে কখনো যোগাযোগ করা হয়নি। আমি বুঝতে পারছি না, ছবিতে কেন আমার নাম ব্যবহার করা হচ্ছে।’ তিনি দাবি করেছেন, ছবিতে তাঁর লেখা পুরোনো কোনো গানও ব্যবহার করা হয়নি।

আগামী ৫ এপ্রিল মুক্তি পাবে নরেন্দ্র মোদিকে নিয়ে তৈরি বায়োপিক ‘পিএম নরেন্দ্র মোদি-স্টোরি অব এ বিলিয়ন পিপল’। ভারতে প্রথম দফা লোকসভা নির্বাচনের ঠিক ছয় দিন আগে ছবিটি মুক্তি দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন নির্মাতারা।

default-image

এদিকে ছবিটির মুক্তি নিয়ে এখন সংশয় তৈরি হয়েছে। নির্বাচনী আচরণবিধি জারি হওয়ার পর প্রধানমন্ত্রীর জীবনী নিয়ে তৈরি চলচ্চিত্র ৫ এপ্রিল মুক্তি পেতে পারে কি না, তা খতিয়ে দেখছে নির্বাচন কমিশন। ‘পিএম নরেন্দ্র মোদি’ ছবির বিজ্ঞাপন দিল্লির একটি সংবাদপত্রে প্রকাশিত হয়েছে। এরপর সংশ্লিষ্ট সংবাদপত্রকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন পূর্ব দিল্লি লোকসভা কেন্দ্রের রিটার্নিং কর্মকর্তা। বিজ্ঞাপনটি নির্বাচন কমিশনের অনুমতি নিয়ে ছাপা হয়েছে কি না, তা জানতে চাওয়া হয়েছে। ছবিটির মুক্তি আটকাতে নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিয়েছে কংগ্রেস, ডিএমকে ও সিপিএম। তাদের মতে, ছবিটি আসলে নরেন্দ্র মোদি ও বিজেপির পরোক্ষ প্রচার।

আরও জানা গেছে, ‘পিএম নরেন্দ্র মোদি’ ছবির পর আসছে ‘তাসখন্দ ফাইলস’ নামে আরেকটি ছবি। এই ছবিতে সাবেক প্রধানমন্ত্রী লালবাহাদুর শাস্ত্রীর তাসখন্দে মৃত্যুরহস্য নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে। অনেকের মতে, এই ছবির মধ্য দিয়ে কংগ্রেসের তৎকালীন নেতৃত্বের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন তোলা হয়েছে।

‘পিএম নরেন্দ্র মোদি’ ছবিতে অভিনয় করেছেন বিবেক ওবেরয়, বোমান ইরানী, বারখা বিস্ট, মনোজ যোশি, জরিনা ওয়াহাব, প্রশান্ত নারায়ণন, রাজেন্দ্র গুপ্ত, অঞ্জন শ্রীবাস্তব প্রমুখ।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন