ক্যাটরিনা এখন গ্রামে। ভারতের মধ্যপ্রদেশের প্রত্যন্ত এক গ্রামের স্কুলে মেয়েদের পড়াচ্ছেন তিনি। এটুকু জানার পর হয়তো অনেকেই ভাববেন, সিনেমা নেই; তাই আয়–রোজগারের আশায় গ্রামের স্কুলে গিয়ে মাস্টারি করছেন তিনি!

default-image

ঘটনা ভিন্ন। মেয়েশিশুদের নিয়ে ‘এডুকেট গার্লস’ নামের ১২ বছর বয়সী এক প্রকল্পের শুভেচ্ছাদূত হয়েছেন বলিউড তারকা ক্যাটরিনা কাইফ। প্রাথমিকভাবে এই উদ্যোগ শুরু হয়েছিল রাজস্থানের ৫০টি স্কুল নিয়ে। এখন ১৪ হাজার গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয় এ প্রকল্পের আওতাধীন। সেখানকার প্রায় প্রতিটি গ্রামেই আছে প্রকল্পটি পরিচালনাকারী উন্নয়ন সংস্থার স্বেচ্ছাসেবকেরা। ওই দলগুলোকে বলা হয় ‘টিম বালিকা’। তাদের এক ভিডিওতে ক্যাটরিনাকেও টিম বালিকার সদস্য হিসেবে পরিচয় করিয়ে দেওয়া হয়। এই পরিচয় নিয়ে ভীষণ আনন্দিত ক্যাটরিনা। শিশুদের সঙ্গে সারা দিন খেলা আর মজাচ্ছলে হিন্দি ও ইংরেজি ভাষা এবং অঙ্ক করা শেখাচ্ছেন তিনি।

default-image
View this post on Instagram

Mobilizing communities through village and neighbourhood meetings, to counselling and convincing parents and families of these Girls, #EducateGirls’ #TeamBalika volunteers are on top of it, working in over 18,000 remote and rural villages of India. So grateful to @educategirlsngo for letting me step into the shoes of #TeamBalika volunteers, to work in one such village of Madhya Pradesh. My firsthand experience of bringing girls #BacktoSchool has been quite exciting. This #DayoftheGirl, let's work toward giving our girls their #RighttoEducation and a voice for an equal future. After all, health, nutrition, employability, poverty alleviation, even climate change – so many things are positively impacted when girls are educated! #EducateGirls #GenderEquality #generationequality

A post shared by Katrina Kaif (@katrinakaif) on

বিজ্ঞাপন

এই প্রকল্পের আওতায় ২০২৪ সালের মধ্যে ১৫ লাখ মেয়েশিশুর প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করা হবে বলে জানিয়েছেন ক্যাটরিনা। করোনার বিধিনিষেধে বিশ্বজুড়ে ১ কোটি ১০ লাখ মেয়েশিক্ষার্থীর স্কুলে ফেরা হবে না বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন ইউনেসকোর প্রধান। ফলে এই সময়ে এ রকম উদ্যোগ আরও জরুরি বলে মনে করেন ক্যাটরিনা। শিক্ষার সঙ্গে খাদ্যসচেতনতা ও লিঙ্গবৈষম্য দূরীকরণেও কাজ করবে ক্যাটরিনাদের ওই প্রকল্প। প্রকল্পের উদ্যোক্তা সাফিনা হোসেন জানিয়েছেন, তাঁরা ক্যাটরিনাকে সঙ্গে পেয়ে ভীষণ আনন্দিত।

default-image

অন্যদিকে লকডাউন শেষে শুটিংয়ে ফেরার জন্য প্রস্তুত ক্যাটরিনা। সামনেই একটি নারী সুপারহিরোকেন্দ্রিক সিনেমার জন্য দুবাই যাওয়ার কথা রয়েছে তাঁর। এদিকে শিগগিরই মুক্তি পাবে সূর্যবংশী। এখানে ক্যাটরিনার বিপরীতে আছেন অক্ষয় কুমার।

default-image
মন্তব্য পড়ুন 0