এক গানে নেচেই মাত করে দিয়েছেন বলিউড অভিনেত্রী জাহ্নবী কাপুর। ইউটিউব থেকে একবার ঘুরে আসুন। দেখবেন বেশ কিছুদিন ধরে বাংলাদেশে ট্রেন্ডিংয়ের এক নম্বরে আছে ‘নদীয়ো পার’ গানটি। ‘রুহি’ সিনেমার এই গান এখন পর্যন্ত দেখা হয়েছে ৬ কোটি ৩০ লাখ বার। প্রতিদিন বাড়ছে এই সংখ্যা।

default-image

মন্তব্যের ঘরে বয়ে যাচ্ছে প্রশংসার বন্যা। সেখানে বলা হচ্ছে, নাচতে জুড়ি নেই শ্রীদেবী-কন্যার। আলোচনার মধ্যেই গতকাল ভারতের বড় পর্দায় মুক্তি পেয়েছে ছবি ‘রুহি’। হারদিক মেহতা পরিচালিত এই ছবিতে জাহ্নবীকে দেখা গেছে দুই রূপে। সাধারণ মেয়ে আর ডাইনি। এখানে জাহ্নবীর সঙ্গে পর্দায় দেখা যাবে রাজকুমার রাও ও বরুণ শর্মাকে।

default-image

এক বছর পরে ভারতের বড় পর্দায় মুক্তি পাচ্ছে বড় বাজেটের ছবি। সিনেমা ও হল সংশ্লিষ্টদের কাছে স্বস্তির সুবাতাস হয়ে এসেছে এই ছবি। করোনা মহামারির মাধ্যমে জাহ্নবী অভিনীত ‘গুঞ্জন সাক্সেনা: দ্য কার্গিল গার্ল’ মুক্তি পেয়েছে নেটফ্লিক্সে। সে কথাই মনে করে জাহ্নবী বলেন, ‘মিথ্যা বলব না, ওটিটিতে ছবি মুক্তি পেলে তেমন চাপ থাকে না। কিন্তু উচ্ছ্বাস আর উত্তেজনাও বিশেষ থাকে না। আগের রাতেও ভালো ঘুম হয়। কিন্তু সিনেমা মুক্তির আগে উত্তেজনায় যে ঘুম হচ্ছে না, এই যে অনুভূতি হচ্ছে, এই অনুভবের জন্যই তো আমার সিনেমার দুনিয়ায় আসা। আমি আমার শরীর ও মন সবকিছু দিয়ে এই অনুভব করতে চাই। এটাই একজন অভিনয়শিল্পীকে বাঁচিয়ে রখে। আমার ছবি দিয়ে হোক, যেভাবে হোক, যেকোনো মূল্যে আমি চাই আমাদের সিনেমা হল সংস্কৃতি ফিরে আসুক, স্বাভাবিক হোক। লোকে হুড়মুড় করে সিনেমা দেখুক।’

default-image
বিজ্ঞাপন

এই সিনেমায় অভিনয়ের অভিজ্ঞতা ভাগ করে ফিল্ম কোম্পানিয়নের চলচ্চিত্র সমালোচক অনুপমা চোপড়াকে জাহ্নবী বলেন, ‘বলিউডে একের পর এক নারীপ্রধান ভূতের ছবি হচ্ছে। “পরি”, “ফিল্লৌরি”, “স্ত্রী”, “বুলবুল”। এই তালিকার পরের নামটি “রুহি”। এটি আমার জন্য অনেক বড় ব্যাপার। এই ছবিতে আমাকে শারীরিকভাবে, গলার স্বর দিয়ে অনেকটা পশুর মতো কণ্ঠাভিনয় করতে হয়েছে। এই ধরনের অভিজ্ঞতা একজন অভিনয়শিল্পীর জন্য খুবই জরুরি।’

default-image
বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন