অমিতাভকে সব সময়ই গুরু মেনে এসেছেন টালিউডের এই সুপারস্টার।
অমিতাভকে সব সময়ই গুরু মেনে এসেছেন টালিউডের এই সুপারস্টার। ছবি: কোলাজ

জিতের একটি পোস্ট নিয়ে হুট করেই আলোচনা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। টাইপ করা একটি চিঠি তিনি পোস্ট করেন ইনস্টাগ্রামে। সেই চিঠি নিয়ে ভক্তরা বেশ রোমাঞ্চিত। কারণ, চিঠিটি এসেছে বলিউড শাহেনশাহ অমিতাভ বচ্চনের কাছ থেকে।
জিৎ আর অমিতাভ বচ্চনের সম্পর্কটা আগেই জানতেন ভক্তরা। অমিতাভকে সব সময়ই গুরু মেনে এসেছেন টালিউডের এই সুপারস্টার। অমিতাভও জানতেন তা। তাই জিতের কাছে অমিতাভের চিঠি মানেই বিশেষ কিছু। শুধু তা-ই নয়, জিৎ যে অমিতাভকে গুরু মানেন, তার উদাহরণও জিৎ দিয়েছেন নানা সময়ে।

default-image

‘বোল বচ্চন’ নামের একটি ছবিতে জিৎ অভিনয়ও করেছিলেন। আর সেই ছবিতে অভিনয়ের নেপথ্যের কারণ ছিল একটাই—গুরুর প্রতি শ্রদ্ধা। শিষ্যের কথা মনে রেখেছেন অমিতাভও। জিতের ফিল্মি ক্যারিয়ারের ৫০তম ছবি ‘শেষ থেকে শুরু’ মুক্তির সময় একটি ভিডিও বার্তায় বিশেষ শুভেচ্ছা জানিয়েছিলেন বিগ বি।

বিজ্ঞাপন

টালিউড এই অভিনেতার বেশ কিছু সিনেমাও নাকি তিনি দেখে ফেলেছেন। সম্পর্কটা নেহাত গুরু-শিষ্যর মতো বললেও সম্ভবত ভুল হবে! অমিতাভ বচ্চনের সঙ্গে জিতের এই সম্পর্ক তো আজকের নয়, শুরুটাও হয়েছিল নয়ের দশকের শেষের দিকে।

default-image

কিন্তু অমিতাভ কেন চিঠি পাঠালেন জিৎকে? সেই চিঠিতে কী লেখা ছিল? কবে পাঠিয়েছিলেন সে চিঠি?

জানা গেল, অমিতাভ বচ্চনের অফিস থেকে আসা এই চিঠি বহু বছর আগের। সময়টা ১৯৯৬ সাল। সেই সময় জিৎ নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে লড়াই করছেন। চলচ্চিত্রে ক্যারিয়ার গড়তে ছুটছেন কলকাতা থেকে মুম্বাই। ঠিক সেই সময়ই তাঁর কাছে চিঠি আসে অমিতাভ বচ্চন করপোরেশন লিমিটেড থেকে। তখন অমিতাভ বচ্চনের এই সংস্থা উঠতি তারকাদের জন্য একটি প্রতিযোগিতা শুরু করেছিল স্টারট্র্যাক নামে।

default-image

নতুন অভিনেতাদের কাজের সুযোগ করে দেওয়াই ছিল এই প্রতিযোগিতার মূল লক্ষ্য। সেখানেই অংশগ্রহণ করেছিলেন জিৎ। নাম নথিভুক্ত করানোর পর ডাকও পেয়েছিলেন তিনি।

default-image

১৯৯৬ সাল থেকে ২০২০, পেরিয়ে গেছে দুই যুগ। এরই মধ্যে অবাঙালি এই যুবক কলকাতার চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রির বড় তারকা হয়েছেন। ১৯৯৬ সালের ৮ জানুয়ারি তাঁকে অমিতাভের সংস্থার কাছে ইন্টারভিউ দিতে হয়েছিল। সেই স্মৃতিই রোমন্থন করলেন টালিউডের এই নায়ক। ইনস্টাগ্রামে চিঠির কপি দিয়ে লিখেছেন, ‘বিশ্বাস আকর্ষণ করে আরেকটি বিশ্বাসকে। ১৯৯৬ সাল। একটি চিঠি এসেছিল এবিসিএলের কাছ থেকে। ধন্যবাদ অমিতাভ বচ্চন। ভালোবাসি আপনাকে।’

default-image
বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0