বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

রাধিকার একটি সূত্র ভারতীয় গণমাধ্যম টাইমস অব ইন্ডিয়াকে জানায়, রাধিকা জুলাই থেকে ধারাবাহিকভাবে কাজ শুরু করেন এবং সেপ্টেম্বর পর্যন্ত কোনো বিরতি ছাড়াই কাজ চালিয়ে যান। এর মধ্যে তাঁর দেওয়া ওয়াদা অনুযায়ী তিনি তিনটি ছবি ও ছয়টি ব্র্যান্ড ক্যাম্পেইনের কাজ শেষ করেন। এই অল্প সময়ের মধ্যে দুটি ওটিটির প্রকল্প ও বিক্রান্ত মাসেইয়ের সঙ্গে ক্রাইম থ্রিলার ‘ফরেনসিক’–এর কাজ শেষ করেন।

default-image

রাধিকার ওই সূত্র শুধু এ তথ্য দিয়ে শেষ করেননি। এত কম সময়ে কীভাবে এতগুলো প্রকল্প সামলেছেন রাধিকা, কী চ্যালেঞ্জ ছিল তাঁর সামনে, সে বিষয়েও কথা বলেছেন তিনি। কম সময়ে সিনেমা শুটিংয়ের সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং বিষয় ছিল ভিন্ন ভিন্ন চরিত্রে অভিনয়। কারণ, একটি প্রকল্পের থেকে আরেকটি প্রকল্প ছিল সম্পূর্ণ আলাদা। সুতরাং রাধিকাকে শুধু শারীরিক নয়, মানসিক পরিবর্তনের মধ্য দিয়েও যেতে হয়েছে।

default-image

এভাবে টানা কাজ করে পেশাদারির পরিচয় দিয়েছেন রাধিকা আপ্তে—এ বলা যায়। নানা সময়েই শুটিংয়ে শিল্পীদের পেশাদারত্ব নিয়ে অভিযোগ ওঠে। রাধিকা প্রমাণ করলেন, ইচ্ছে থাকলে সব রকমের চ্যালেঞ্জ নিয়েও পেশাদারত্ব বজায় রাখা সম্ভব। তবে টানা তিন মাস শুটিং শেষ করে যেন হাঁপ ছেড়ে বাঁচলেন। একটু মুক্ত হাওয়ায় নিশ্বাস নিতে উড়াল দিয়েছেন লন্ডন।
রাধিকাকে দেখা যাবে ‘মিসেস আন্ডারকভার’, ‘মনিকা ও মাই ডার্লিং’, ‘মেড ইন হ্যাভেন টু’ ও ‘ফরেনসিক’ ছবিতে।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন