অভিনয়ে যেমন প্রশংসা পেয়েছেন তাঁরা, পড়ালেখায়ও ছিলেন তেমন ভালো
অভিনয়ে যেমন প্রশংসা পেয়েছেন তাঁরা, পড়ালেখায়ও ছিলেন তেমন ভালোকোলাজ
সফল ড্রপআউটদের তালিকায় তারকাদের সংখ্যা কম নয়। তবে এমন কিছু তারকা আছেন, অভিনয়ে সফর শুরু করার আগে পড়ালেখাটাও চালিয়েছেন শক্ত হাতে। এতটুকু খামতি ছিল না তাতে। ক্লাসে ছিলেন গুড বয় কিংবা গুড গার্ল। দক্ষিণ ভারতের চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রিতে এমন নায়িকা আছেন অনেক। অভিনয়ের খাতায় যেমন তাঁরা ‘এ প্লাস’, পড়ালেখায়ও তাঁরা ছিলেন গুড গার্ল।

আনুশকা শেঠি
নিজেকে চেনানোর বড় পোস্টার তাঁর ‘বাহুবলী’ সিনেমা। দক্ষিণ ভারতীয় এই নায়িকা শুধু রূপেই নন, অভিনয়েও একেবারে কড়া। দেবসেনা চরিত্রে নিজের অভিনয়ের কারিশমা দেখিয়েছেন। আনুশকা শেঠি স্নাতক সম্পন্ন করেছেন কম্পিউটার অ্যাপ্লিকেশনসের ওপর। ব্যাঙ্গালুরুর মাউন্ট কারমেল কলেজ থেকে স্নাতক পাস করেন তিনি। এমনকি তিনি ইয়োগা ইনস্ট্রাকটর হিসেবেও কাজ করেছেন।

default-image
বিজ্ঞাপন

নয়নতারা
নায়কনির্ভর ভারতীয় চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রি। এর মধ্যেও নায়িকাকেন্দ্রিক চলচ্চিত্র হয় না, এমনটি নয়। দক্ষিণ ভারতে নায়িকানির্ভর ছবিগুলোর অন্যতম মুখ নয়নতারা। পরিচালকেরা এক নয়নতারার ওপরই ভরসা করেন ছবির বক্সঅফিস সফলতার জন্য। ভরসার জায়গাও তৈরি করেছেন যে! ‘কোলাইয়ুথির কালাম’, ‘আইরা’, ‘আরাম’, ‘ডোরা’ ছবিগুলো তাই প্রমাণ করে। নয়নতারা কেরালার থিরুভালার মারথোমা কলেজ থেকে ইংরেজি সাহিত্যে স্নাতক।

default-image

কাজল আগারওয়াল
দক্ষিণ ভারতীয় ইন্ডাস্ট্রিতে কাজল আগারওয়াল পরিচিত স্বনামে। বলিউডেও তিনি অভিনয় করেছেন। ‘সিংহাম’ সিনেমায় অজয় দেবগনের সঙ্গে দেখা গেছে তাঁকে। তাঁর অভিনীত দক্ষিণি ছবির তালিকা বেশ লম্বা। ‘মাগাধিরা’, ‘আরিয়া টু’, ‘ইয়াভাডু’, ‘ডার্লিং’, ‘থুপাক্কি’, ‘মারি’, ‘মেরসাল’ ছবির নামগুলো বলা যায়। কাজল আগারওয়াল গণমাধ্যমের ওপর স্নাতক শেষ করেছেন মুম্বাইয়ের কেসি কলেজ থেকে। তাঁর বিশেষ বিষয় ছিল মার্কেটিং অ্যান্ড অ্যাডভার্টাইজিং।

default-image
বিজ্ঞাপন

সামান্থা আক্কিনেনি
মিষ্টি হাসি দিয়ে আগেই মাত করে ফেলেছেন দর্শকের হৃদয়। আক্কিনেনি পরিবারের বউ হয়ে দক্ষিণি ইন্ডাস্ট্রিতে নিজের জায়গা আরও পাকা করে নিলেন। সুন্দরী নায়িকা হিসেবে তাঁর জুড়ি মেলা ভার। তবে অভিনয় দিয়ে যে দর্শকের হৃদয়ে আসন করেননি, এমনটি নন। পেয়েছেন বেশ কিছু পুরস্কার। সামান্থাও পড়ালেখায় এতটুকু ছাড় দেননি। বাণিজ্যে স্নাতক সম্পন্ন করেছেন। চেন্নাইয়ের স্টেলা ম্যারিস কলেজ ছিল তাঁর পাঠশালা।

default-image

শ্রুতি হাসান
বাবা দক্ষিণ ভারতীয় সিনেমার বড় তারকা। তাতে কী! দক্ষিণ ভারতীয় চলচ্চিত্র ইন্ডাস্ট্রিতে নিজের জায়গা করেছেন মেধা দিয়ে। শুধু অভিনয় নয়, গায়কিতেও অনন্য শ্রুতি। হবেন না কেন? পড়ালেখা করেছেন সংগীতের ওপরই। তামিল, তেলেগু ছাড়াও বলিউডেও অভিনয় করছেন তিনি। শ্রুতি হাসান মনোবিজ্ঞানে পড়ালেখা করেছেন। তারপরই পাড়ি জমিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রে। ক্যালিফোর্নিয়ার মিউজিশিয়ানস ইনস্টিটিউটে সংগীতে পড়ালেখা করেন।

default-image
বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন