বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

ছবিতে দেশভাগ অদিতি আর জনের সম্পর্কে কী প্রভাব পড়ে, তা দেখানো হবে। দেখানো হবে সেই প্রভাব কীভাবে যুগের পর যুগ টিকে থাকে। আর প্রজন্মের পর প্রজন্ম সম্পর্ককে প্রভাবিত করতে থাকে। আর উঠে আসবে ইতিহাসের কাছে মানুষের অসহায় আত্মসমর্পণ। ইতিমধ্যে প্রকাশিত হয়েছে এই ছবিতে অদিতি আর জনের ফার্স্টলুক। ভক্তরা সেই ছবি দেখে দারুণ উচ্ছ্বসিত।

default-image

অদিতি নাকি গল্প শুনেই ‘হ্যাঁ’ করেছেন প্রযোজককে। বলেছেন, ‘ছবিতে আমি আর জন সেই সময়ের জুটি, যে সময়টা আমাদের ইতিহাসের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ আর অস্থির সময়। আমি সেই সময়ের একজন না হয়েও সেই সময়ের সাক্ষী হতে পারব, এমন সুযোগ বারবার আসে না। আমার চরিত্রটিও বেশ জোরালো। না করার কোনো কারণ নেই।’

default-image

প্রজাপতি, রকস্টার, লন্ডন, প্যারিস, নিউইয়র্ক, পদ্মাবত, মার্ডার থ্রি, সাইকোখ্যাত অদিতি বরাবরই নানা বৈচিত্র্যের আর বর্ণের চরিত্র আর গল্পে নিজেকে মেলে ধরেছেন। অবশ্য ব্যক্তিগত জীবনেও তিনি সে রকমই। তাঁর বাবার দাদা ছিলেন ব্রিটিশ শাসনামলে হায়দরাবাদের রাজা।

default-image

বাবার নাম এহসান হায়দারি। আর মায়ের নাম বিদ্যা রাও। বাবার কাছ থেকে হায়দারি আর মায়ের কাছ থেকে রাও নিয়ে তিনি হয়েছেন অদিতি রাও হায়দারি। অভিনয় করেছেন হিন্দি, তামিল, তেলেগু, মালয়ালাম আর মারাঠি ছবিতে। ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন ক্ল্যাসিক্যাল ড্যান্সার হিসেবে। আর এখন অভিনয়ের পাশাপাশি প্লে–ব্যাকও শুরু করেছেন।

default-image

ক্যারিয়ার শুরুর আগে মাত্র ২১ বছর বয়সে বিয়ে করেছিলেন অভিনয়শিল্পী সত্যদ্বীপ মিশ্রকে। ২০১৩ সালে বিয়ের মতোই গোপনে, নীরবে আলাদা হন এই জুটি। তবে বিচ্ছেদের পরও ভালো বন্ধু তাঁরা। তাই আপাতত অদিতির রিলেশনশিপ স্ট্যাটাস ‘সিঙ্গেল’।

default-image
বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন