বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

নিজ মাতৃভাষায় পড়তে জানেন না তিনি
তেলেগুভাষী হলেও তেলেগু পড়তে বা লিখতে একেবারেই পারেন না মহেশ বাবু! নিজের মুখেই এ কথা স্বীকার করেছিলেন এই তারকা।

default-image

ইন্ডিয়া গ্লিটজকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ অভিনেতা জানিয়েছিলেন আজন্ম চেন্নাইয়ে মানুষ হলেও তিনি তেলুগু পড়তে বা লিখতে কোনোটিই পারেন না। তবে বলতে যে তাঁর কোনো অসুবিধা হয় না, তা তাঁর অভিনীত সিনেমা থেকেই পরিষ্কার। আসলে ছবির পরিচালকের কথা তিনি মন দিয়ে শোনেন কোনো সিকোয়েন্সের শুটিংয়ের আগে। তারপর সেভাবেই শটটি উতরে দেন তিনি।

default-image

দাদা, বাবা, বন্ধু—সবাই তারকা
জন্মসূত্রে বিনোদনজগতের সঙ্গে মহেশের যোগাযোগ। দাদা রমেশ বাবু ছিলেন অভিনেতা ও প্রযোজক। বাবা কৃষ্ণা বাবু ছিলেন সাত ও আটের দশকের সাড়াজাগানো দক্ষিণি তারকা। প্রায় সাড়ে তিন শতাধিক ছবিতে অভিনয় করেছিলেন মহেশের বাবা।
মহেশের শৈশবের দুই বন্ধুও বড় তারকা। বিজয় ও কীর্তির সঙ্গে ছোটবেলা থেকেই এক স্কুলে পড়েছেন।

default-image

টেলিভিশনে সর্বোচ্চ টিআরপি
ছোট পর্দার দুনিয়ায় মহেশ বাবু অভিনীত অনুষ্ঠানের টিআরপি এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ! এ তারকা অভিনীত তেলুগু ছবির হিন্দি ডাবিং ছবির গুচ্ছ যখন একাধিক হিন্দি চ্যানেলেও দেখানো হয়, তখনো সেই ছবিগুলো ঘিরে যথেষ্ট আগ্রহ থাকে হিন্দি ভাষাভাষী দর্শকদের মধ্যেও।

default-image

১৮ ভাষায় অনূদিত মহেশের ছবি
মহেশের ছবি এত জনপ্রিয়তা পায় যে নানা ভাষায় ডাবিং করা হয় তাঁর ছবিগুলো। এখন পর্যন্ত মহেশ বাবু অভিনীত ১৮টি তেলেগু ছবির ডাবিং হয়েছে হিন্দি ভাষায়।

default-image

সমাজসেবায়ও এগিয়ে
শুধু অ্যাকশন ও প্রেমের অভিনয় দিয়ে তাঁর জীবন সীমাবদ্ধ নয়, সমাজসেবাতেও এগিয়ে মহেশ বাবু। নারীদের অধিকার নিয়ে বিভিন্ন সময়ে কথা বলেছেন তিনি। বহু সামাজিক ও স্বেচ্ছাসেবামূলক কাজে এগিয়ে এসেছেন এই তারকা। দুস্থ ব্যক্তি, শিশুদের দুই হাত খুলে সাহায্যও করেন।
সূত্র: হিন্দুস্তান টাইমস

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন