বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সেখানে শুরু হয়েছে দাবা প্রতিযোগিতা। মেন্টর হিসেবে অংশ নিয়েছেন আনন্দ। নিউজ এইটিনকে এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘বায়োপিক নিয়ে আমার সম্মতি জানিয়েছি। প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গেও কয়েকবার আলোচনা হয়েছে। শিগগির চিত্রনাট্য লেখা শুরু হবে। তবে করোনার কারণে কাজ কিছুটা আটকে আছে। তবে বায়োপিক হচ্ছে এটা বলতে পারি।’

default-image

এ সময় তাঁকে জিজ্ঞাসা করা হয়, নিজের জীবনীচিত্রে পর্দায় কাকে দেখতে চান? তিনি বলেন, ‘আমার ভূমিকায় সিনেমায় কে অভিনয় করবেন বলতে পারব না। তবে ব্যক্তিগতভাবে বলব, আমির খান পর্দায় বিশ্বনাথন আনন্দ হলে ভালো লাগবে। আমার মনে হয়, আমার সঙ্গে আমির খানের অনেকটাই মিল আছে।’

এর আগে গত জুন মাসে অনলাইনে একটি অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলেন আমির ও বিশ্বনাথন আনন্দ। সেখানে আমিরকে একজন প্রশ্ন করেছিলেন, আনন্দের বায়োপিকে তিনি অভিনয়ের প্রস্তাব পেলে রাজি হবেন কি না। আমির বলেছিলেন, ‘এটা কোনো প্রশ্ন হলো? তাঁর চরিত্রে অভিনয় করতে পারা আমার জন্য শুধু সম্মানের নয়, দারুণ এক ব্যাপার। আনন্দ কেমন করে চিন্তাভাবনা করে বা কীভাবে নিজেকে প্রস্তুত রাখেন, এসব জানতে পারাও একটা বিরাট ব্যাপার।’

একজন দাবায় পারফেকশনিস্ট, আরেকজন অভিনয়ে। বায়োপিকের ব্যাপারেও দুজনের মত এক। এখন শুধু প্রযোজক আর পরিচালকের মত জানতে পারলেই কেল্লাফতে। ছবির পরিচালক হিসেবে থাকার কথা আনন্দ এল রাইয়ের।

default-image

করোনায় সংকটে ছিল দাবা কমিউনিটির মানুষ। তাঁদের সহযোগিতার জন্য তহবিল গঠন করা হয়েছিল। অক্ষয় পাত্র ফাউন্ডেশনের সঙ্গে চেজ ডটকম এ উদ্যোগ নিয়েছিল। ‘চেকমেট কোভিড’ নামের এ ইভেন্টে বেশ কজন বলিউড তারকা ভারতের গ্র্যান্ডমাস্টার ও সাবেক বিশ্বচ্যাম্পিয়ন বিশ্বনাথন আনন্দের বিরুদ্ধে লড়েছেন। এর মধ্যে ছিলেন আমির খানও।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন