বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

পুলিশি তদন্তে উঠে এসেছে, ‘হটশর্ট’ অ্যাপের রক্ষণাবেক্ষণের জন্য প্রতিকেশ ও ঈশ্বর নামের দুজন ব্যক্তিকে ভিয়ান ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের অধীনে নিযুক্ত করেন রাজ। জেরার মুখে আরও কিছু তথ্য ফাঁস করেছেন তিনি।

default-image

তদন্তে পুলিশ জানতে পেরেছে, অনেক সময় দিনে ১০ লাখ রুপির বেশি আয় করতেন রাজ। পর্নোগ্রাফি ব্যবসাকে আরও বিস্তৃত করতে নতুন একটা অ্যাপ প্রকাশেরও প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন তিনি। রাজের ভগ্নিপতি প্রদীপ বক্সির খোঁজে ‘সন্ধান চাই’ বিজ্ঞপ্তিও জারি করেছে মুম্বাই পুলিশ।

পর্নোগ্রাফি মামলার প্রদীপ বক্সিও অন্যতম আসামি। রাজের ‘শর্টকাট’ অ্যাপ নির্মাণকারী সংস্থা কেনরিনের সহ–অংশীদার প্রদীপ।

default-image

ফেব্রুয়ারিতে রাজের বিরুদ্ধে অশ্লীল ব্যবসা করার অভিযোগ দায়ের করা হয়েছিল। কিন্তু পুলিশ রাজকে জেরার আগে এ–সম্পর্কিত সব তথ্যপ্রমাণ সংগ্রহ করে। এরপর ১৯ জুলাই রাতে মুম্বাই পুলিশের অপরাধ দমন শাখা জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁকে ডেকে পাঠায়। প্রায় দুই ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদের পর তাঁকে গ্রেপ্তার করে মুম্বাই পুলিশ। এ মামলায় এখন পর্যন্ত নয়জন গ্রেপ্তার হয়েছে।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন