বিয়ের আগে সাত বছর, বিয়ের পরে দুই বছর, প্রেমের ক্রিজে ছক্কা হাঁকিয়ে চলেছেন দীপবীর।
বিয়ের আগে সাত বছর, বিয়ের পরে দুই বছর, প্রেমের ক্রিজে ছক্কা হাঁকিয়ে চলেছেন দীপবীর। ছবি: ইনস্টাগ্রাম

শাহরুখ খানের ‘ওম শান্তি ওম’ সিনেমার একটা বিখ্যাত ডায়ালগ আছে। বাংলা করলে অর্থটা দাঁড়ায় এ রকম, ‘তুমি যদি কাউকে মন থেকে চাও, তো সমস্ত পৃথিবী তাকে তোমার কাছে এনে দেবার জন্য উঠেপড়ে লেগে যায়।’ রণবীর সিং বোধ হয় কথাটা মনে নিয়েছিলেন। তাই ৯ বছর আগে ‘বামন হয়ে চাঁদের দিকে হাত বাড়িয়েছিলন।’ পেয়েছিলেন তাঁর স্বপ্নের রানি দীপিকাকে। গতকাল ছিল এই দম্পতির দ্বিতীয় বিবাহবার্ষিকী। দীপাবলির দিনে ধুমধাম করে বিয়ের দিনটা উদ্‌যাপন করছেন এই দম্পতি।

default-image

২০১২ সালে প্রথম দেখাতেই নাকি দীপিকাকে মনে মনে বিয়ে করে নিয়েছিলেন রণবীর। বিয়ের পরে প্রথম সাক্ষাৎকারে এভাবেই বলেছিলেন তিনি। ফিল্মফেয়ারের সম্পাদক জিতেশ পিল্লাইকে  বলেছিলেন, ‘আমি প্রথম দীপিকাকে দেখি জি সিনে অ্যাওয়ার্ডের রাতে, ম্যাকাও–এ। রুপালি গাউনে সে যেন কোনো মানুষ নয়, কোনো সাধারণ নারী নয়, সে যেন একটা অপ্সরী।

বিজ্ঞাপন
default-image

দীপিকা বিশ্বের যেকোনো পুরুষের জন্য আরাধ্য। সেই প্রথম দর্শন কোনো পুরুষের পক্ষে ভোলা সম্ভব নয়। আমি তো প্রথম দেখায় দীপিকাকে মনে মনে বিয়ে করে নিয়েছিলাম। এবার দুজনে মিলে করলাম।’
রণবীর যখন দীপিকাকে মনে মনে বিয়ে করে ফেলেছেন, তখন দীপিকা রণবীরকে ঠিকমতো চেনেনও না। কেননা, রণবীর তখনো ‘স্ট্রাগলিং অ্যাক্টর’। মাত্র দুটো ছবি মুক্তি পেয়েছে। ‘ব্যান্ড বাজা বারাত’ (২০১০)। আর ‘লেডিস ভার্সাস রিকি ভেল’ (২০১১)। দুটোর কোনো ছবিই আহামরি সাড়া ফেলেনি। প্রথম ছবির জন্য প্রশংসিত হলেও দ্বিতীয় সিনেমা বক্স অফিস আর সমালোচক—দুইখানেই মুখ থুবড়ে পড়েছে। রণবীরের ক্যারিয়ার তখন পেন্ডুলামে দুলছে। টিকে যাবেন নাকি হারিয়ে যাবেন, দুটোরই ছিল ‘ফিফটি ফিফটি’ সম্ভাবনা।

default-image

অথচ দীপিকা ২০০৭ সালে ‘ওম শান্তি ওম’ সিনেমা মুক্তির পরই রীতিমতো সুপারস্টার। ২০১২ সালে রণবীর যখন তাঁকে প্রেমের প্রস্তাব দেন, তত দিনে দীপিকার ঝুলিতে আছে ‘বাঁচনা ইয়ে হাসিনা’, ‘চাঁদনি চক টু চায়না’, ‘বিল্লু’, ‘লাভ আজকাল’, ‘কার্তিক কলিং কার্তিক’, ‘হাউসফুল’, ‘ককটেল’–এর মতো সিনেমা। দীপিকা তত দিনে বুঝিয়ে দিয়েছেন, বলিউডের ক্রিজে তিনি লম্বা ইনিংস খেলবেন।

সেই দিনের কথা ও রণবীরকে বিয়ে করা প্রসঙ্গে দীপিকা বলেন, ‘ও যখন আমাকে প্রেমের প্রস্তাব দেয়, আমি তখন প্রতিষ্ঠিত তারকা। ও মাত্র শুরু করছে। তা–ও শুরুটা আশানুরূপ ভালো হয়নি। প্রথম ওর যে বিষয়টা আমার চোখে পড়ল, সেটা হলো ওর আত্মবিশ্বাস। ওর চোখে–মুখে একটাই বার্তা, ও টিকে থাকতে এসেছে। বলিউডের বইয়ে একটা অধ্যায় হতে এসেছে। আমার হাতে তখন বড় বড় ছবি। আর একটা সিনেমায় সাইন করার জন্য ওকে তখন সংগ্রাম করতে হয়েছে। অথচ ও কখনো আমাকে ঈর্ষা করেনি। বরং দিনের পর দিন আমার সেটে গিয়ে আমাকে সাহস জুগিয়েছে। আমাকে একনজর দেখার জন্য ও দুই দিন প্লেনে চড়ে আমাদের যেখানে শুটিং হচ্ছে সেখানে গেছে। আবার পরের ফ্লাইটে ফিরে এসে নিজের শুটিং ধরেছে। ও আজ অনেক বড় তারকা হয়েছে। আর এটা হবারই ছিল। ওর চেয়ে ভালো জীবনসঙ্গী, ভালো মানুষ পাওয়া সম্ভব নয়।’

default-image

দীপিকা আর রণবীর যে বিয়ের পরও তুমুল প্রেম করছেন, তা তাঁদের ইনস্টাগ্রামে একবার ঢুঁ দিলেই ঢের টের পাওয়া যায়। বিয়ের আগে সাত বছর, বিয়ের পরে দুই বছর, প্রেমের ক্রিজে ছক্কা হাঁকিয়ে চলেছেন দীপবীর।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0