রিয়া, সারা, শ্রদ্ধার সঙ্গে নির্জন দ্বীপে পার্টি করতেন সুশান্ত
রিয়া, সারা, শ্রদ্ধার সঙ্গে নির্জন দ্বীপে পার্টি করতেন সুশান্তকোলাজ: আমিনুল ইসলাম

বলিউড তারকা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর তিন মাস পার হয়ে গেছে। সিবিআই, এনসিবি, ইডি, তিন সংস্থা উঠে পড়ে লেগেছে এই মৃত্যুর রহস্য উদ্‌ঘাটন করতে। আর এই তিন সংস্থার তদন্তে প্রায় প্রতিদিনই নতুন নতুন সব তথ্য বেরিয়ে আসছে। এবার জানা গেল, কেবল প্রেমিকা রিয়াই নন, তাঁর পরিবারের বিলাসিতার টাকাও জোগাতেন সুশান্ত।

বিজ্ঞাপন
default-image

সুশান্তের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে জড়িয়ে ছিলেন বেশ কয়েকজন মানুষ। ফলে তাঁর মৃত্যুরহস্য ক্রমে ঘোলাটে হয়ে যাচ্ছে। প্রয়াত এই বলিউড তারকার লোনাভোলার খামারবাড়ির ব্যবস্থাপক রঈস কিছুদিন আগে নারকোটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোকে বেশ কিছু তথ্য দিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন, সুশান্তের জীবন অনেকটাই নিয়ন্ত্রণ করতেন রিয়া। এমনকি সুশান্তের আশপাশের মানুষেরাও রিয়া দ্বারা প্রভাবিত ছিলেন। সুশান্তের ম্যানেজার স্যামুয়েল মিরান্ডা রিয়ার কথাই বেশি মানতেন। এমনকি তাঁর দাবি, শুধু রিয়া নন, তাঁর পরিবারও সুশান্তের টাকা ওড়াত। সুশান্তের টাকায় আমোদ-প্রমোদ করত রিয়ার পরিবার।

রঈসের ভাষ্য অনুযায়ী, যে ঘরে সুশান্ত মারা গেছেন, সেই ঘরে থাকতে একবারেই পছন্দ করতেন না সুশান্ত। এ নিয়ে রিয়া ও ব্যবস্থাপকের সঙ্গে ঝগড়াঝাটিও হয়েছে সুশান্তের। রিয়ার গুপ্তচর হিসেবে কাজ করতেন সুশান্তের ব্যবস্থাপক শ্রুতি। সুশান্তের টাকা কী কী কাজে খরচ করতেন, সেসবও গোপন রাখতেন শ্রুতি। রঈস জানিয়েছিলেন, সারা আলী খান, রিয়া চক্রবর্তী, শ্রদ্ধা কাপুরসহ আরও অনেকের সঙ্গে লোনাভোলার এক দ্বীপে পার্টি করতেন সুশান্ত। সেসব পার্টিতে মাদক সেবন চলত বাড়াবাড়ি পর্যায়ে। এমনকি রিয়ার ভাই শৌভিক বেশির ভাগ সময়ই নেশায় চুর হয়ে থাকতেন।

বিজ্ঞাপন
default-image

সুশান্ত মৃত্যুরহস্যের তদন্তের সময় সুশান্তের পাবনার ফার্ম হাউস থেকে বেশ কিছু চিরকুট পাওয়া গেছে। ২০১৮ সালে সুশান্ত সেসব লিখেছিলেন। সেখানে সুশান্তের রোজনামচা, জীবন ও তাঁর জীবনের সঙ্গে জড়িয়ে থাকা অনেক কিছু লেখা আছে। ২৭ এপ্রিল সুশান্ত লিখেছিলেন, রাত আড়াইটায় ঘুম থেকে উঠতেন তিনি। এরপর চা পান করে ঠান্ডা জলে স্নান করতেন। সুশান্তের এই লেখা অনুযায়ী, ২০১৮ সালেই ধূমপান ছেড়েছেন তিনি। এক জায়গায় হলিউডে অভিনয়ের ইচ্ছার কথাও ব্যক্ত করেছেন সুশান্ত।

সুশান্তের আত্মহত্যার কারণ খতিয়ে দেখছে এদিকে সিবিআই। দিল্লির ফরেনসিক বিভাগ আগামী সপ্তাহে সিবিআইয়ের হাতে রিপোর্ট তুলে দেবে। এইআইএমএস সুশান্ত মৃত্যুরহস্য নিয়ে তাদের মতামতের পূর্ণাঙ্গ রিপোর্টও আগামী সপ্তাহে জানাবে।

মন্তব্য পড়ুন 0