বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

সৌজন্য সুইসাইড নোটে লিখেছেন, ‘আমার প্রিয় পরিবার, আমি যে পদক্ষেপ নিতে চলেছি তার জন্য আমি ক্ষমা চাইছি।’ সুইসাইড নোটে ২৭, ২৮ আর ৩০ সেপ্টেম্বর—এই তিন তারিখ উল্লেখ করেছেন এই টেলিভিশন অভিনেত্রী।

default-image

পুলিশের অনুমান, তিন দিন আগেই আত্মহত্যার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন সৌজন্য। সুইসাইড নোটে তিনি জানিয়েছেন যে তাঁর মানসিক অবস্থা ঠিক ছিল না। আর অবসাদ তাঁকে ঘিরে ধরেছিল। এই সুইসাইড নোটে একাধিকবার তাঁর মা–বাবার কাছে ক্ষমা চেয়েছেন সৌজন্য।

এখন পুলিশ এই আত্মহত্যার আসল কারণ উদ্ধার করার চেষ্টা করছে। পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে উঠে এসেছে যে সৌজন্যর ঘরের দরজা ভেতর থেকে বন্ধ ছিল। দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকলে তাঁকে ঝুলন্ত অবস্থায় দেখা যায়। শাড়িতে ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছেন এই অভিনেত্রী। কুম্বলগোডুর এই বাসায় একা থাকতেন সৌজন্য। পুলিশ তাঁর বাবা, মা আর বন্ধুবান্ধবদের জিজ্ঞাসাবাদ করছে। পুলিশ তদন্তের মাধ্যমে জানতে চায় যে সৌজন্যর এই পরিণামের জন্য তিনি নিজেই দায়ী, না তাঁকে কেউ বা কারা এ ব্যাপারে উসকানি দিয়েছে। সৌজন্য ছোট পর্দার পাশাপাশি বড় পর্দায়ও কাজ করেছেন।

default-image

গত বছর সুশান্ত সিং রাজপুতের অপমৃত্যুর ধাক্কায় তোলপাড় বলিউড দুনিয়া। ১৪ জুন বান্দ্রার বাড়িতে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছিলেন ৩৪ বছর বয়সী এই তরুণ নায়ক।

default-image

প্রাণখোলা, হাসিখুশি এই নায়কের মৃত্যু ঘিরে উঠে এসেছে একাধিক প্রশ্ন। সেসব নিয়ে এখনো আলোচনা চলছে। সুশান্তের মৃত্যুর পরে একের পর এক অপমৃত্যুর খবর মিলছে ভারতের বিনোদনজগৎ থেকে। গত বছরের সেপ্টেম্বরে তেলেগু টিভি অভিনেত্রী শ্রাবণী কোন্দপল্লি হায়দরাবাদের নিজ বাসভবনে আত্মহত্যা করেছেন। আগের মাসে আত্মহত্যা করেন ছোট পর্দার আরেক জনপ্রিয় অভিনেতা সমীর শর্মা।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন