default-image

বলিউডের সুপরিচিত অভিনেতা জগদীপ আর নেই। তিনি মূলত কৌতুক অভিনেতা হিসেবেই পরিচিত ছিলেন। বুধবার মুম্বাইয়ে নিজের বাড়িতেই শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন জগদীপ (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)।  তাঁর পুরো নাম সৈয়দ ইশতিয়াক আহমেদ জাফরি। তবে জগদীপ নামেই সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয়তা পেয়েছিলেন তিনি, বলিউডে এ নামেই পরিচিত ছিলেন। তিনি বলিউড অভিনেতা ও নৃত্য শিল্পী জাভেদ জাফরি ও নাভেদ জাফরির বাবা।

গতকাল বুধবার রাত ৮টা ৪০ মিনিটে জগদীপ শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন। রাত ১১টায় টুইট করে প্রথমে অভিনেতা অজয় দেবগন খবরটি প্রকাশ করেন। জগদীপকে স্মরণ করে অনেকে টুইটারসহ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছবি প্রকাশ করেন। অজয় দেবগন টুইট করে লিখেছেন, ‘জগদীপ সাবের চলে যাওয়ার খবর শুনলাম। পর্দায় তাঁকে দেখতে দারুণ লাগত। দর্শকের মনে এত খুশি এনে দিতেন তিনি। জাভেদসহ  তাঁর পরিবারকে আমার সমবেদনা। তাঁর আত্মার শান্তি কামনা করি।’ অভিনেতা জনি লিবার তাঁর প্রথম ছবির অভিজ্ঞতা শেয়ার করেন। হনসল মেহেতা  লিখেছেন, ‘সমবেদনা জাভেদ জাফরিসহ গোটা পরিবারকে। একটা প্রশস্ত হাসি দিয়েই তাঁকে চিরকাল মনে রাখা হবে। প্রিয়দর্শনের “মুসকুরাহাট” ছবিতে অসামান্য অভিনয় করেছিলেন জগদীপ সাব। আমার সেরা লাগে তাঁর ওই ছবিটাই।'

default-image

বার্ধক্যজনিত কারণেই মৃত্যু হয়েছে বলে অভিনেতা জগদীপের পরিবার সূত্রে জানা গেছে। তাঁর বয়স হয়েছিল ৮১ বছর। ‘শোলে’, ‘পুরানা মন্দির’-এর মতো একাধিক হিট ছবিতে অভিনয় করেছেন জগদীপ। ৭০ ও ৮০-র দশকে অনেক ছবিতে কমেডিয়ানের চরিত্রে দেখা গেছে তাঁকে। তাঁর ব্যতিক্রম কণ্ঠ এবং পর্দায় ভিন্ন রকমের পারফরম্যান্স মুগ্ধ করেছে দর্শককে। ‘শোলে’ ছবিতে সুরমা ভুপালির চরিত্রে অভিনয় করে সাড়া ফেলেছিলেন তিনি। ছবিতে তাঁর কণ্ঠে আলোচিত সংলাপ ‘মেরা নাম সুরমা ভোপালি অ্যায়সে হি নেহি হ্যায়’ এখনো দর্শকদের মনে গেঁথে রয়েছে।

 ১৯৮৮ সালে ওই নামে একটি ছবি পরিচালনাও করেছিলেন তিনি। অনেক ছবিতে মুখ্য চরিত্রেও কাজ করেছেন জগদীপ, তাঁকে কেন্দ্র করেই ছবির গল্প এগিয়েছে।

default-image

দীর্ঘ ক্যারিয়ারে চার শতাধিক ছবিতে কাজ করেছেন জগদীপ। এর মধ্যে ‘আন্দাজ আপনা আপনা’, ‘ব্রহ্মচারী’, ‘কুরবানি’, ‘শাহেনশাহ’, ‘নাগিন’-এর মতো সুপারহিট ছবিও আছে। ‘আন্দাজ আপনা আপনা’ ছবিতে  সালমান খানের বাবা বাঁকেলালের ভূমিকাতেও তিনি দারুণ অভিনয় করেছেন। সাদাকালো যুগে  শিশুশিল্পী হিসেবে জগদীপকে দেখা গেছে বিমল রায়ের ‘দো বিঘা জমিন’, ‘কা আব্বাস মুন্না’ এবং গুরু দত্তর ‘আর পার’ ছবিতে।

 ভারতীয় গণমাধ্যম এনডিটিভি, ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস সূত্রে জানা গেছে, আজ বৃহস্পতিবার শিয়া কবরস্থানে তাঁর মরদেহ দাফন করা হবে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন