এ প্রসঙ্গে নূপুর বলেছেন, ‘অভিষেক ছবিতে বহুমুখী প্রতিভাসম্পন্ন অভিনেতা নওয়াজ স্যারের সঙ্গে কাজ করার সুযোগ পেয়েছি আমি। তাই নিজেকে ভাগ্যবতী মনে করছি। অভিনেতা হিসেবে তিনি যে অসাধারণ, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। অভিজ্ঞ অভিনেতার সঙ্গে যখন

default-image

কোনো অনভিজ্ঞ অভিনেতা কাজ করেন, তখন কঠিন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়। কিন্তু এ ক্ষেত্রে তা হয়নি। কারণ, তাঁর সঙ্গে কাজ করা খুবই সহজ ছিল। নওয়াজকে ঘিরে নানা ধারণা মনের মধ্যে পুষে রেখেছিলেন তিনি। ছবির শুটিংয়ের সময় তাঁর সব ভুল ধারণা ভেঙে গেছে।’

default-image

এই বলিউড নায়িকা আরও বলেছেন, ‘আমি ভাবিনি যে নওয়াজ স্যার সেটে একদম হালকা মেজাজে থাকবেন। আমি ভেবেছিলাম, সেটের এক কোণে তিনি চুপচাপ বসে থাকবেন। নিজের জগতে থাকবেন। আর তিনি চাইবেন না যে কেউ তাঁকে বিরক্ত করুক। কিন্তু নওয়াজ স্যার এসবের কিছুই করেননি।’

default-image

নূপুর শ্যানন কিছুদিন আগে তাঁর ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টে একটি ভিডিও পোস্ট করেছিলেন। এই ভিডিওতে দেখা গেছে তিনি নওয়াজুদ্দিনের সঙ্গে গরুর গাড়িতে চেপে গ্রামের আঁকাবাঁকা পথে ভ্রমণের মজা নিচ্ছেন।

এ প্রসঙ্গে নূপুর বলেছেন, ‘আমাদের হাতে একটু সময় ছিল। তাই আমরা ভাবলাম যে গ্রামে আমাদের শুটিং হয়েছে, সেই গ্রামটা ভালোভাবে আবিষ্কার করব। আসলে আমি আগে কখনো গ্রামে যায়নি। তাই আমার জন্য এটা দারুণ মজার অভিজ্ঞতা ছিল।’

default-image

তিনি আরও বলেছেন, ‘নওয়াজ স্যার আমাকে বলেছেন যে তিনি বুধানা নামের এক গ্রামের ছেলে। আর তাঁর এই গ্রাম আমাদের শুটিংস্থল থেকে কাছে। তিনি গরুর গাড়িতে চেপে গ্রামে ঘোরার গল্প শোনাচ্ছিলেন। আর তখনই আমার মাথায় গরুর গাড়িতে চড়ার ভূত চাপে। এরপর গরুর গাড়ি জোগাড় করে আমরা বেরিয়ে পড়ি। তিনি ভালোভাবে জানতেন কীভাবে গরুর গাড়ি চালাতে হয়। এ ব্যাপারে আমাকে পরামর্শ দিয়েছিলেন তিনি।’

default-image
বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন