default-image

বলিউডে মাদক কেলেঙ্কারি নিয়ে জোরালো তদন্ত করছে সে দেশের মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো (এনসিবি)। তদন্তে উঠে আসছে, বলিউডজুড়ে মাদকের থাবা শাখা বিস্তার করে আছে। এবার মাদক মামলায় জড়িয়েছে তাঁর নাম। এই অভিনেতাকেও এনসিবির জিজ্ঞাসাবাদের মুখোমুখি হতে হয়েছে গতকাল।
শুক্রবার ভারতের নারকটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর অফিসে হাজির হয়েছিলেন অর্জুন রামপাল। গতকাল তাঁকে দেখা গেছে সানগ্লাস ও সাদা পোশাকে হাজিরা দিতে। দীর্ঘ ছয় ঘণ্টা জেরা করা হয়েছে তাঁকে। তাঁর সঙ্গে কী কথা হয়েছে তা নিয়ে সব তথ্য মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ ব্যুরোর কোনো সূত্রে জানা যায়নি। তবে বিভিন্ন ভারতীয় সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিদের অর্জুন জানিয়েছেন, ‘বাড়িতে কিছু ওষুধ পাওয়া গেছে, যাকে মাদক হিসেবে সন্দেহ করা হয়েছে। আমি তার প্রেসক্রিপশন রকটিক্স কন্ট্রোল ব্যুরোর প্রতিনিধিদের দিয়েছি।’ তিনি আরও জানান, ‘ড্রাগসের সঙ্গে আমার কোনো সম্পর্ক নেই।’ তাঁর এ বক্তব্যে স্পষ্ট যে এনসিবি তাঁকে ছাড় দিয়েছে।

default-image
বিজ্ঞাপন

৯ নভেম্বর অর্জুন রামপালের বান্দ্রার বাসায় তল্লাশি চালান এনসিবির গোয়েন্দারা। দুই ঘণ্টা খোঁজাখুঁজি করে বেশ কিছু ‘নিষিদ্ধ ওষুধ’ পেয়েছেন তাঁরা। তাঁদের প্রশ্ন, এসব ওষুধ অর্জুনের বাসায় কেন? অর্জুন আর তাঁর প্রেমিকা গ্যাব্রিয়েলা দেমেত্রিয়াদেসের কাছে এ ওষুধের কোনো মেডিকেল প্রেসক্রিপশন নেই। এনসিবি ইতিমধ্যে গ্যাব্রিয়েলাকে এক দফা জিজ্ঞাসাবাদ করেছে। এই কেসের জনসংযোগ কর্মকর্তা সমীর বানখেড়ে বলেছেন, বৃহস্পতিবার গ্যাব্রিয়েলাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আবার ডেকে পাঠিয়েছিল এনসিবি।

default-image

অর্জুনের প্রেমিকা গ্যাব্রিয়েলার ভাই অ্যাগিসিয়ালস দেমেত্রিয়াদেস। তাঁর বাসাতেও তল্লাশি চালিয়ে মাদকদ্রব্য উদ্ধার করেছে এনসিবি। গ্রেপ্তার করা হয়েছে অ্যাগিসিয়ালসকে। এনসিবির দাবি, অ্যাগিসিয়ালস মাদকের বড় চক্রের সঙ্গে জড়িত। মুম্বাইয়ে কোকেন সরবরাহের জন্য গ্রেপ্তার করা হয় নাইজেরিয়ান নাগরিক ওমেগা গডউইনকে। সেই সূত্র ধরেই তারা পৌঁছে যায় অ্যাগিসিয়ালসের বাড়িতে।
অন্যদিকে অর্জুন রামপালের বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে সেখান থেকে বেশ কয়েকটি আইপ্যাড, মুঠোফোন উদ্ধার করা হয়। আইপ্যাড, মুঠোফোনের পাশাপাশি বেশ কয়েকটি ইলেকট্রনিক গেজেট সেখান থেকে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছিল বলে খবর। কিছু ড্রাগস পাওয়া গিয়েছিল বলে খবর ছিল। সূত্রের খবর, গতকাল অর্জুন জানিয়েছেন সেগুলো সবই তাঁর ওষুধ, যা তাঁকে ডাক্তারের পরামর্শেই নিতে হয়। তাঁর প্রেসক্রিপশনও এনসিবিকে দেন তিনি।

default-image

সুশান্তের মৃত্যুর পর বলিউডে একের পর এক কাণ্ড সামনে এসেছে। তার মধ্যে মাদক যোগ নিয়ে সবচেয়ে বেশি কথা হয়েছে। রিয়া চক্রবর্তীকে জেল খাটতেও হয়েছে। ওদিকে দীপিকা পাড়ুকোন, সারা আলী খান, শ্রদ্ধা কাপুরসহ অনেককেই জেরা করা হয়েছিল আগে। তখনই এনসিবি জনিয়েছিল তাঁদের কাছে আরও নাম রয়েছে। সবাইকে জেরা করা হবে। সেই তালিকা অনুযায়ী সমন পাঠানো হয়েছিল অর্জুন রামপাল ও তাঁর প্রেমিকাকে।
এদিকে মাদক মামলায় আটক প্রযোজক ফিরোজ নাদিয়াদ্দৌলার স্ত্রী শাবানাকে গত মঙ্গলবার ১৫ হাজার টাকার বন্ডে সই করিয়ে জামিন দেন মুম্বাইয়ের আদালত। রোববার মাদক রাখার অভিযোগে শাবানাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছিল। এমনকি তাঁর স্বামী ফিরোজকেও মাদক-সংশ্লিষ্টতায় জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে।

default-image
বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0