default-image

সাই পল্লবী মানেই যেন একরাশ শুভ্রতা। তাঁর দুটি ছবি রয়েছে মুক্তির দোরগোড়ায়। ‘ভিরাতা পারভাম’ নামের ছবিটিতে সাই দেখা দেবেন ‘বাহুবলী’র বল্লালদেব রানা দাগ্গুবতির সঙ্গে। এখানেও সাই হবেন এক সাধারণ মেয়ে, মৌনিকা। ছবিটি মুক্তি পাবে এপ্রিলের ৩০ তারিখে। এদিকে নাগা চৈতন্যর সঙ্গে সাই পর্দায় দেখা দেবেন ‘লাভ স্টোরি’ সিনেমায়। এই প্রেমকাহিনি দেখতে দর্শকদের অপেক্ষা করতে হবে ১৬ এপ্রিল পর্যন্ত।

default-image

রানা দাগ্গুবতি বা নাগা চৈতন্য দক্ষিণ ভারতের বড় তারকা। তাঁদের দুজনকে সুপারস্টার বললে বাড়াবাড়ি হবে না। অথচ দুটি ছবির প্রচারণায়ই বারবার উঠে আসছে সাই পল্লবীর নাম। খুব অল্প সময়ে দীঘল কালো কোঁকড়া চুল আর শক্তিশালী অথচ সাদামাটা ব্যক্তিত্ব দিয়ে যিনি কোটি দর্শকের হৃদয়ে আসন করে নিয়েছেন। এশিয়ানেট নিউজ জানিয়েছে, ৫ ফুট ২ ইঞ্চি উচ্চতা (নায়িকাদের গড়পড়তা উচ্চতার চেয়ে বেশ কম), মুখে লাল ব্রোনের দাগ নিয়ে এর আগে কেউ বড় পর্দায় এত শুভ্র আলো ছড়াতে পারেননি। সাই পল্লবী হয়ে উঠেছেন অসংখ্য দক্ষিণ ভারতীয় নারীর অনুপ্রেরণা।

বিজ্ঞাপন

ইউটিউবে ‘রাউডি বেবি’ গানে ধানুশের সঙ্গে সাই পল্লবীর নাচ দেখা হয়েছে ১০৭ কোটির বেশি বার। ২০১৫ সালে তাঁর প্রথম ছবি মুক্তি পাওয়ার পরের বছর কোচি টাইমস জরিপ করে জানায়, সে বছরের সবচেয়ে কাঙ্ক্ষিত নারী ছিলেন সদ্য সিনেমা অঙ্গনে পা রাখা এই নায়িকা।

default-image

সেই প্রতিবেদনে বলা হয়েছিল, ‘সিনেমা ইন্ডাস্ট্রি যখন মেকআপ ছাড়া চলতেই পারে না, স্যালন স্ট্রেইট হেয়ার অ্যান্ড প্যানকেক মেকআপ ছাড়া যখন শট ওকে হচ্ছে না, সেই সময় সাই পর্দায় এলেন তাঁর কোঁকড়া চুল আর মুখের ব্রোনের দাগকে সঙ্গী করে। প্রায় মেকআপ ছাড়া শট দিলেন আর জয় করলেন।’

default-image

সাই পল্লবীর এই গ্রহণযোগ্যতা আর জনপ্রিয়তার কারণ খুঁজতে গিয়ে চলেছে রীতিমতো গবেষণা। ভারতের চলচ্চিত্র সমালোচকেরা একমত হয়ে এ সিদ্ধান্তে পৌঁছেছেন, ‘প্রেমাম’ সিনেমার মালার, ‘কালি’র অঞ্জলি বা ‘ফিদা’র ভানুমতিরা যেন কেবল বড় পর্দার চরিত্র নয়। তাঁরা একেকজন একেবারেই আটপৌরে ভারতীয় নারী। তির, তলোয়ার ছাড়া এই মেয়েরাও যে বড় পর্দায় দাপটের সঙ্গে রাজত্ব করতে পারেন, তা যেন আগে কারও মাথায় আসেনি। আবার সাই পল্লবীকেও মেলানো যাবে না আর দশটা তারকার সঙ্গে। তাই দর্শকের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক হয়েছে সরাসরি, মাঝে বাদ সাধেনি কোনো কাচের দেয়াল বা রোদচশমা। দর্শক তাঁকে তারকা হিসেবে নয়, তাঁদের একজন হিসেবেই আপন করে নিয়েছেন।

default-image

এমবিবিএস ডিগ্রি ফেলে রেখে সিনেমায় আসা সাইয়ের হাতে এই মুহূর্তে রয়েছে আরও দুটি ছবি। তেলেগু সেই ছবি দুটির শুটিং চলছে।

বিজ্ঞাপন
বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন