বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

‘কাল হো না হো টু’
শাহরুখ খান ও সাইফ আলী খানের ছেলে ঘনিষ্ঠ বন্ধু। একবার সাইফের ছেলে ইব্রাহিম আলী খান ও শাহরুখের ছেলে আরিয়ানকে একসঙ্গে খেলতে দেখা যায়। সেই ছবি দিয়ে নেটিজেনরা মিম বানিয়েছিল—যেন ‘কাল হো না হো টু’ তৈরি হতে যাচ্ছে। শাহরুখ ও সাইফ একসঙ্গে অভিনয় করেছিলেন ‘কাল হো না হো’ ছবিতে।

default-image

আরিয়ান কি অভিনেতা হবেন
শাহরুখকে প্রায়ই জিজ্ঞেস করা হতো, অভিনয়ে তাঁর ছেলের অভিষেক হচ্ছে কবে। তিনি বারবার জানিয়েছিলেন, ছেলে আরিয়ানের আসলে অভিনেতা হওয়ার কোনো ইচ্ছে নেই। তিনি নিজেও চান না ছেলে অভিনয় করুক। কারণ, অভিনয়ের জগতে এলে তাঁকে সব সময়ই বাবার সঙ্গে তুলনা করা হবে। আরিয়ানের বরাত দিয়ে শাহরুখ বলেছিলেন, ‘আমি যদি কখনো ভালো করি, তখন সবাই বলবে, শাহরুখের ছেলে বলেই ভালো করেছে। অর্থাৎ আমার নিজের দক্ষতা সেখানে গৌণ হয়ে যাবে। আর ভালো না করলে বলবে, বাপের দিকে তাকাও। তার কাছাকাছিও যেতে পারলে না।’ আরিয়ান ইউনিভার্সিটি অব সাউদার্ন ক্যালিফোর্নিয়া থেকে লেখালেখি ও চলচ্চিত্র নির্মাণের ওপরে ডিগ্রি নিয়েছেন। বাবা শাহরুখ তাঁর লেখার প্রশংসায় পঞ্চমুখ। বিভিন্ন সময় ছেলের প্রতিভার উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করতে শোনা গেছে তাঁকে।

default-image

দ্য লায়ন কিং
২০০৯ সালে খবরের শিরোনাম হন শাহরুখপুত্র আরিয়ান খান। সেবার বাপ–ছেলে মিলে কণ্ঠাভিনয় করেছিলেন ‘দ্য লায়ন কিং’ ছবিতে। ছবিতে মুফাসার কণ্ঠ দিয়েছিলেন শাহরুখ আর আরিয়ান কণ্ঠ দেন সিমবা হিসেবে।

default-image

এমএমএস বিতর্ক
২০১০ সালে ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়ে আরিয়ান ও নব্য নন্দার ঘনিষ্ঠ ভিডিও ক্লিপ। সে সময় প্রযোজক–পরিচালক করণ জোহর খুশি কাপুরের সঙ্গে আরিয়ানকে নিয়ে একটা বড় বাজেটের ছবির কথা ভাবছিলেন। ওই এমএমএস নিয়ে পরে মুখ খুলেছিলেন শাহরুখ। জানিয়েছিলেন, ওই ভিডিও ক্লিপটি ভুয়া। সে বছরই মহারাষ্ট্রের তায়কোয়ান্দো প্রতিযোগিতায় সোনার মেডেল জিতেছিলেন আরিয়ান। এ ছাড়া তিনি মার্শাল আর্টে ব্ল্যাক বেল্ট পেয়েছেন।

বলিউড থেকে আরও দেখুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন