পুরস্কার গ্রহণ করে নিজের প্রতিক্রিয়ায় মোদি বলেন, সংগীত মাতৃত্ব আর ভালোবাসার অনুভূতি দেয়। সংগীত নিয়ে যেতে পারে দেশাত্মবোধ আর কর্তব্যের দিকে। আমরা সবাই ভাগ্যবান যে আমরা সংগীতের ক্ষমতা দেখেছি, আর তা দেখেছি লতা দিদির রূপে। সাংস্কৃতিক দিক দিয়ে আমি মনে করি, সংগীত হলো সাধনা।

default-image

তিনি আরও বলেন, ‘লতা দিদি আমার কাছে বড় দিদির মতো। আমি সব সময় তাঁর কাছ থেকে ভালোবাসা পেয়েছি। বহু যুগ পর প্রথমবার আসন্ন রাখি উৎসবে লতা দিদি থাকবেন না। আমার প্রতি লতা দিদির গভীর ভালোবাসা ছিল। তাঁর নামে যে পুরস্কার, সেই পুরস্কার গ্রহণ না করা আমার পক্ষে কখনোই সম্ভব ছিল না। এই পুরস্কার দেশবাসীর প্রতি উৎসর্গ করছি।’

default-image

চলতি বছরের ৬ ফেব্রুয়ারি ৯২ বছর বয়সে মারা যান লতা মঙ্গেশকর। এরপরই কিংবদন্তি গায়িকার স্মরণে ও সম্মানে ‘লতা দীনানাথ মঙ্গেশকর পুরস্কার’ প্রবর্তন করা হয়। মাস্টার দীননাথ মঙ্গেশকর স্মৃতি প্রতিষ্ঠান চ্যারিটেবল ট্রাস্ট একটি বিবৃতিতে জানিয়েছে, এই পুরস্কার প্রতিবছর একজন ব্যক্তিকেই দেওয়া হবে। দেশ, সমাজ ও জনতার কল্যাণে যাঁরা দৃষ্টান্তমূলক কাজ করেছেন, তাঁদের উদাহরণ হিসেবে সামনে আনতে এই পুরস্কার প্রদান করা হবে।

default-image

প্রসঙ্গত, এদিন জম্মু-কাশ্মীরের কার্যক্রম শেষ করেই মুম্বাই উড়ে যান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। গতকালই মোদি টুইট করে জানিয়েছেন, লতা মঙ্গেশকরের নামাঙ্কিত এই পুরস্কারে ভূষিত হয়ে তিনি অত্যন্ত গর্ব বোধ করছেন। লতা দিদিও স্বপ্ন দেখতেন শক্তিশালী ও সমৃদ্ধ ভারত গড়ে তোলার।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন