সাগুফতা আলীকে ডান্স দিওয়ানের মঞ্চে এনে হাজির করে তারা। নাচের তালে দুলতে থাকা অনুষ্ঠান যেন হঠাৎই আবেগে থরো থরো। উপস্থাপক, প্রতিযোগী থেকে বিচারক সবার চোখই আর্দ্র।

মঞ্চে সাগুফতা তাঁর অর্থকষ্টের কথা জানিয়ে বলেন, ‘৩৬ বছরের ক্যারিয়ারের ৩২ বছর বেশ ভালোই কেটেছিল। প্রচুর কাজ করেছি। পরিবারকে সাহায্য করেছি। চার বছর আগে অনেক অডিশনে গেলাম। অনেক কিছুই হলো। কিন্তু কাজ করার আর সুযোগ হলো না। এর মধ্যেই আমার ডায়াবেটিস বেড়ে যায়। চোখে সমস্যা শুরু হয়।’ কথা বলতে বলতেই কেঁদে ফেলেন সাগুফতা। জানান, ৩৬ বছর এই ইন্ডাস্ট্রিতে কাটিয়েছেন। এটাই তাঁর ঘর।

সাগুফতাকে জড়িয়ে ধরেন উপস্থাপক ভারতী সিং। বিচারকের আসন থেকে উঠে আসেন মাধুরী দীক্ষিত। সাগুফতাকে পাঁচ লাখ টাকার একটি চেক দিয়ে বলেন, ‘আপনি লিখেছেন যে বিক্রি করার মতো আপনার কাছে আর কিছুই নেই, এমন একটা পরিস্থিতিতে আপনি পড়েছেন। এ কারণে ডান্স দিওয়ানে টিম থেকে আমরা আপনাকে কিছু দিতে চাই।’

শুধু ‘ডান্স দিওয়ানে থ্রি’ই নয়, ইন্ডাস্ট্রির নানাজনই তাঁর পাশে দাঁড়িয়েছেন। রোহিত শেঠি, নীনা গুপ্তা, সুমিত রাঘবন ও সুশান্ত সিং তাঁকে সহযোগিতা করেছেন।
সাগুফতা আলী ভারতীয় টিভি ও চলচ্চিত্রের অভিনেত্রী।

তাঁর অভিনীত টিভি সিরিজের মধ্যে ‘পুনর্বিবাহ’, ‘শ্বশুরাল সিমর কা’, ‘সাথ নিভানা সাথিয়া’ উল্লেখযোগ্য। ‘গঙ্গা যুমনা কি লালকার’, ‘ইন্টারন্যাশন্যাল খিলাড়ি’, ‘লায়লা মজনু’ ইত্যাদি সিনেমায় অভিনয় করেছেন তিনি।