গত বছরই বিয়ে হওয়ার কথা ছিল বরুণ ধাওয়ান আর নাতাশা দলালের। কিন্তু করোনার কারণে তা আর সম্ভব হয়নি। তাই দীর্ঘ অপেক্ষার পর এই বিয়েকে ঘিরে দুই পরিবারের মধ্যে ছিল বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস। গোধূলিলগ্নকে স্বাক্ষী রেখে বরুণ-নাতাশার বিয়ে হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু নির্ধারিত সময় পর এই যুগল সাত পাকে বাঁধা পড়েন।

default-image

কথা ছিল, সন্ধ্যের অনেক আগেই একে অপরকে মালা পরিয়ে বিয়ে করবেন। কিন্তু সময়মতো বিয়ের আসরে হাজির ছিলেন না বরুণ-নাতাশা। তাঁদের বিয়ে হতে হতে গড়িয়ে যায় সন্ধ্যা। সংগীত অনুষ্ঠানের জন্য পিছিয়েছে বিয়ে। বিয়ের আগের দিন, অর্থাৎ ২৩ জানুয়ারি অনেক রাত পর্যন্ত ডিজে পার্টি চলেছিল। পার্টিতে জনপ্রিয় ডিজে বাস্কো একের পর এক বলিউডের হিট সব গান বাজিয়েছিল। গভীর রাত পর্যন্ত গড়িয়েছিল এই পার্টি। তাই পরের দিন সবকিছু গন্ডগোল হয়ে যায়। সব অনুষ্ঠানই নির্ধারিত সময়ের অনেক পরে অনুষ্ঠিত হয়।

default-image
বিজ্ঞাপন

গায়েহলুদের অনুষ্ঠানও অনেক দেরিতে শুরু হয়। তাই বিয়ের অনুষ্ঠানেও সময়মতো হাজির থাকতে পারেননি বর-কনে। এই রাতে বরুণ ঘোড়া বা গাড়িতে চেপে বিয়ের মণ্ডপে হাজির হননি। বিয়ের মণ্ডপে তিনি হাজির হয়েছিলেন কোয়াড বাইকে চেপে। ‘আজ মেরে ইয়ার কি শাদী হ্যায়’, ‘ঝিংগাট’, ‘ভূতনি কে’—এসব বলিউড গানের সঙ্গে উদ্দাম নাচতে নাচতে বরযাত্রীরা এসেছিলেন বিয়ের আসরে।

default-image

সালমান খান আর প্রিয়াঙ্কা চোপড়ার ‘সালাম ই ইশক’ ছবির ‘তেনু লেকে ম্যায় জায়ুঙ্গা’ গানের সঙ্গে বিয়ের মণ্ডপে আসেন বরুণ। বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পন্ন হওয়ার পর অনেক রাত পর্যন্ত চলেছিল ককটেল পার্টি। করোনার কারণে অত্যন্ত গোপনীয়তার সঙ্গে বরুণ-নাতাশার বিয়ের অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। তবে বলিউডের এই জনপ্রিয় জুটির বিয়েতে আড়ম্বরের কোনো ত্রুটি ছিল না।

default-image
বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন