সিঙ্গাপুরে বসে ঢাকাকে মনে পড়ছে ঋতুপর্ণার
সিঙ্গাপুরে বসে ঢাকাকে মনে পড়ছে ঋতুপর্ণারইনস্টাগ্রাম

করোনার কারণে এ বছর দুর্গাপূজায় কলকাতা যাওয়া হয়নি টালিউড তারকা ঋতুপর্ণা সেনগুপ্তর। সিঙ্গাপুরেই জীবনসঙ্গী ও দুই সন্তানকে নিয়ে পূজা উদযাপন করেছেন তিনি। পূজার সময় তিনি কলকাতাকে দারুণ মিস করেছেন। পাশাপাশি ঢাকাকেও মনে পড়েছে এই তারকার।

default-image

বিয়ের পর পাকাপাকিভাবে সিঙ্গাপুরের বাসিন্দা হয়ে গেছেন ঋতুপর্ণা। কিন্তু নাড়ির টান আর কাজের জন্য প্রায়ই কলকাতায় যেতে হয় তাঁকে। বাংলাদেশের সঙ্গেও তাঁর গভীর আত্মিক সম্পর্ক আছে বলে মনে করেন এই অভিনেত্রী। ফোনের ওপার থেকে প্রথম আলোর পরিচয় পেয়েই সরব হয়ে ওঠে তাঁর কণ্ঠ। ঋতুপর্ণা বলেন, ‘আমি কলকাতার পাশাপাশি বাংলাদেশকেও খুব মিস করেছি। ঢাকার কথা খুব মনে পড়েছে। জানি না কবে আমরা করোনামুক্ত হব। আর স্বাভাবিক ছন্দে ফিরব। বাংলাদেশের তিনটে ছবিতে আমি কাজ করছি।’

default-image
বিজ্ঞাপন

করোনা মহামারির কারণে ‘গাঙচিল’ ও ‘জ্যাম’ ছবির শুটিং বন্ধ। এ ছাড়া আরও একটি ছবির কাজ করছেন তিনি, যার নাম এখনো ঠিক হয়নি। ‘গাঙচিল’ ছবি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এই ছবিতে আমার বিপরীতে আছে ফেরদৌস। আমার অভিনীত চরিত্রটির নাম বিজলি।’ কথায় কথায় উঠে আসে আলমগীরের সঙ্গে তাঁর অভিনীত পাঁচটি জাতীয় পুরস্কারজয়ী ছবি ‘একটি সিনেমার গল্প’–এর কথা।

default-image

ঋতুপর্ণা বলেন, ‘এই ছবির শুটিংয়ের জন্য সে বছর পূজায় ঢাকায় ছিলাম। পূজার তিন দিন সেখানেই কাটিয়েছি। নবমীর দিন আমি কলকাতায় ফিরি। তবে ঢাকায় দুর্গাপূজায় এক অন্য রকম মজা ছিল। আমরা সবাই খুব আনন্দ করেছিলাম। মনে হচ্ছিল, আমি কলকাতাতেই আছি।’

default-image

‘পারমিতার একদিন’, ‘উৎসব’, ‘মন্দ মেয়ের উপাখ্যান’, ‘চারুলতা’, ‘প্রাক্তন’, ‘রাজকাহিনী’, ‘বেলাশেষে’, ‘স্বামী কেন আসামী’, ‘এক কাপ চা’ ছবিগুলোয় দর্শক পেয়েছেন ঋতুপর্ণাকে। দুই দেশে নির্মিত বাংলা ভাষার এ ছবিগুলো ছাড়া তাঁর ক্যারিয়ারে ছবির সংখ্যা অনেক।

default-image

ঋতুপর্ণা অভিনীত ও প্রযোজিত ‘পার্সেল’ ছবিটি রয়েছে মুক্তির অপেক্ষায়। এই অভিনেত্রী বলেন, ‘আমি খুব তাড়াতাড়ি ঢাকায় গিয়ে শুটিং শুরু করতে চাই। কিন্তু করোনার কারণে ভয় পাচ্ছি। যাঁরা শুটিং শুরু করেছেন, তাঁদের মধ্যে অনেকেই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন।’

default-image
মন্তব্য পড়ুন 0