বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

আর সব্যসাচী মুখোপাধ্যায়ের ডিজাইন করা অফ হোয়াইট শাড়িতে কনেবেশে আলিয়া হয়ে উঠেছিলেন কোনো স্বপ্নসুন্দরী। চার পুরোহিত তাঁদের বিয়ের কাজ সম্পন্ন করেছিলেন। ঋষি কাপুর ও পিতৃপুরুষদের পূজা করে এই জুটির বিয়ের শুভারম্ভ, এরপর গণেশ পূজা হয়েছিল।

default-image

পাঞ্জাবি রীতি মেনে তাঁরা বিয়ে করেছিলেন। উপস্থিত সংবাদমাধ্যমকে বিয়ের লাড্ডু খাওয়াতে ভোলেনি কাপুর আর ভাট পরিবার। সবার হাতে তুলে দেওয়া হয় এক বাক্স করে মিষ্টি।
‘রালিয়া’র বিয়ের ছবিতে আলিয়ার হাতের একটি বড় আংটি সবার নজর কেড়েছে। জানা গেছে, তাঁকে এই বহুমূল্য হিরের আংটিটি রণবীর দিয়েছেন। আলিয়ার হাতের ‘কলিরে’ আর ‘মঙ্গলসূত্র’ চর্চায় উঠে এসেছে। এই ‘কলিরে’তে তাঁরা, পাখিসহ নানা জিনিস দেখা যাচ্ছে। আলিয়া গলায় খুব পাতলা একটি মঙ্গলসূত্র পরেছেন।

default-image

এই মঙ্গলসূত্রে আট সংখ্যা দেখা যাচ্ছে। আট সংখ্যার সঙ্গে এক গভীর সংযোগ আছে। অনেকেই জানে যে আট রণবীরের প্রিয় ও ‘সৌভাগ্যশালী’ সংখ্যা। আর তাই আলিয়ারও এই সংখ্যার প্রতি এক ভালোবাসা জন্মেছে। শুধু তা–ই নয়, এই বলিউড নায়িকা এক হাতে আট সংখ্যার মেহেদি লিখিয়েছিলেন। আর এক হাতে রণবীরের নামের আদ্যক্ষর ইংরেজির ‘আর’ বর্ণ লিখিয়েছিলেন। গত ১৩ এপ্রিল আলিয়ার মেহেদি অনুষ্ঠান হয়েছে। চেম্বুরের মেহেদিশিল্পী জ্যোতি ছেদা তাঁর হাতে মেহেদি লাগিয়েছিলেন।

বলা যায়, রণবীর-আলিয়া সাদামাটা আর ঘরোয়াভাবে বিয়ে করেছিলেন। ‘বাস্তু’ আবাসনে আলিয়ার ফ্ল্যাটের বারান্দায় বিয়ের আয়োজন করা হয়েছিল। এই একই বিল্ডিংয়ের সপ্তমতলায় রণবীরের ঠিকানা। রণবীর তাঁদের বিয়েতে বেশি আড়ম্বর চাননি বলে জানা গেছে। কাপুর আর ভাট পরিবারের সদস্যদের সাক্ষী রেখে গাঁটছড়া বেঁধেছিলেন রণবীর আর আলিয়া।

default-image

বিটাউন থেকে পরিচালক লাভ রঞ্জন, করণ জোহর, অয়ন মুখার্জি, আলিয়ার ঘনিষ্ঠ বান্ধবী আকাঙ্ক্ষা রঞ্জন, আর আম্বানি পরিবার থেকে আকাশ এবং শ্লোকা আম্বানি এই তারকা জুটির বিয়েতে শামিল হয়েছিলেন। সব মিলিয়ে তাঁদের বিয়েতে ৫০ জন নিমন্ত্রিত ছিলেন। কাল শনিবার আলিয়া আর রণবীর এক গ্র্যান্ড রিসেপশনের আয়োজন রাখতে চলেছেন বলে খবর। মুম্বাইয়ের তাজ মহল প্যালেস, বা সান্তা ক্রুজের গ্র্যান্ড হায়াতে এই রিসেপশন হতে পারে।

বলিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন