বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

‘রেহানা’ দেখতে কেন চরকি হবে আপনার পছন্দের স্ট্রিমিং প্ল্যাটফর্ম? প্রশ্নটি চরকির প্রধান পরিচালন কর্মকর্তা রেদওয়ান রনিকে করা হয়েছিল। উত্তরে তিনি বলেন, ‘জুলাই মাসে যাত্রা শুরুর পর থেকে ভিন্ন স্বাদের কনটেন্ট দিয়ে চরকি দর্শককে চমকে দিচ্ছে। এর মধ্য দিয়ে দর্শকের আস্থায় পরিণত হচ্ছে চরকি। সেই ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখার জন্যই চরকির ভক্তদের জন্য বিশেষভাবে “রেহানা”কে বেছে নিয়েছি।’ চরকিতে ছবিটির মুক্তি প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘চরকির জন্য এটা একটি গর্বের দিন। বাংলাদেশের সবচেয়ে গর্বের সিনেমা “রেহানা মরিয়ম নূর” আমরা দেশের সব দর্শকের সামনে নিয়ে আসতে পারছি। আমরা যে সাহস করে এত দূর যেতে পারি, তা সিনেমাটির নির্মাতা আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ আমাদেরকে দেখিয়েছেন। সিনেমা হলের পরে চরকিতে এক্সক্লুসিভ রিলিজ হচ্ছে ছবিটি। দেশের যেকোনো প্রান্ত থেকে খুব সহজে দর্শক সিনেমাটি দেখতে পারবেন। বাংলা কনটেন্টের রাজধানী হবে ঢাকা আর তার কেন্দ্র হবে চরকি।’

default-image

গত ১২ নভেম্বর সিনেমাটি দেশের প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পায়। একসঙ্গে সিনেমাটি দেশের সব জায়গায় দেখানো সম্ভব হয়নি। পর্যায়ক্রমে দেশের বিভিন্ন জেলার প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেলেও অনেক দর্শক সিনেমাটি দেখা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। সেসব দর্শকসহ সবাইকে আবারও সিনেমাটি দেখার আহ্বান জানিয়ে ‘রেহানা’র পরিচালক আবদুল্লাহ মোহাম্মদ সাদ বলেন, ‘আমাদের দেশের অনেক দর্শক আছেন, যাঁরা “রেহানা মরিয়ম নূর” বড় পর্দায় দেখতে পারেননি। আবার যাঁরা দেখেছেন কিন্তু আবারও দেখতে চান, আমরা তাঁদেরকে চরকি সাবস্ক্রাইব করার আমন্ত্রণ জানাই। চরকির জন্য শুভকামনা। চরকিকে ধন্যবাদ।’

চরকিতে ছবিটি দেখার পরে দর্শকের প্রতিক্রিয়া জানার অপেক্ষায় থাকবেন ছবির রেহানা চরিত্রের অভিনেত্রী আজমেরী হক বাঁধন। তিনি বলেন, ‘খুব অল্প সময় হলেও চরকির প্রতিটি কনটেন্ট দেখার মতো। ভিন্ন স্বাদের কনটেন্ট তারা তৈরি করছে। এটা আমার ভীষণ ভালো লাগছে যে এমন একটি প্ল্যাটফর্মে সিনেমাটি দেশের দর্শক দেখবেন। আমি ব্যক্তিগতভাবে চাই, আমাদের দেশে নারীদের যে অবস্থা, তাঁর পরিবর্তন হোক। নারীরা মানুষ হিসেবে সমাজে স্থান তৈরি করতে পারুক। সেই জায়গা থেকে “রেহানা” ভিন্ন এক যাত্রা ছিল। কতটা সফল হয়েছি, এবার সব শ্রেণির দর্শকেরা অনলাইনে দেখে আমাদের জানাবেন। দর্শককে অনুরোধ করব, সিনেমাটি চরকিতে দেখুন। ফেসবুকে আপনাদের মন্তব্য শেয়ার করুন।’

default-image

সিনেমাটি এখনো বিশ্বের বিভিন্ন চলচ্চিত্র উৎসবে অংশগ্রহণ করছে। ইতিমধ্যে ছবিটি পেয়েছে একাধিক পুরস্কার। আগামী ৭ জানুয়ারি যুক্তরাষ্ট্রের ৩৩তম পাম স্প্রিংস ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভালে তিনটি শো হবে ‘রেহানা’র। উৎসবে ‘তিতান’, ‘ড্রাইভ মাই কার’, ‘আ হিরো’সহ বিশ্বের গুরুত্বপূর্ণ সিনেমাগুলোর সঙ্গে সেরা আন্তর্জাতিক ফিচার ফিল্ম শাখায় প্রতিযোগিতা করবে ‘রেহানা’। ছবিটিকে বাংলাদেশ থেকে এ বছর অস্কারে পাঠানো হয়।
সিনেমার গল্পে দেখা যাবে, মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক রেহানা বরাবরই একজন একরোখা মানুষ। কিন্তু তাঁর ছয় বছর বয়সী সন্তান ইমু, পরিবার আর ক্যারিয়ার একসঙ্গে সামলানোর চাপে ধীরে ধীরে নিজের ওপর নিয়ন্ত্রণ হারাতে শুরু করেন তিনি। এক সন্ধ্যায় হঠাৎ দেখে ফেলা একটি ঘটনা যেন তাঁর জীবন একদমই এলোমেলো করে দেয়।
সিনেমাটিতে আজমেরী হক বাঁধন ছাড়াও আরও অভিনয় করেছেন আফিয়া জাহিন জায়মা, কাজী সামি হাসান, আফিয়া তাবাসসুম বর্ণ, জোপারি লুই, সাবেরি আলম প্রমুখ।

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন