করোনার আগে শুরু করা বড় বাজেটের বেশ কটি ছবির কাজ আটকে গেছে
করোনার আগে শুরু করা বড় বাজেটের বেশ কটি ছবির কাজ আটকে গেছেকোলাজ: আমিনুল ইসলাম

নতুন স্বাভাবিকে বেশ কিছু সিনেমার শুটিং আবার শুরু হয়েছে। অনেক দিন আটকে ছিল সেসব ছবির কাজ। এই সিনেমাগুলোর কোনো কোনোটির শুটিং শেষ হয়েছে এরই মধ্যে। আবার করোনার আগে শুরু করা বড় বাজেটের বেশ কটি ছবির কাজ আটকে গেছে, যেগুলোর শুটিং গত ১০ মাসেও শুরু করেননি পরিচালকেরা। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ছবিগুলোর ভবিষ্যৎ প্রায় অনিশ্চিত। কারণ, সেসব ছবির কাজ ফেলে নতুন ছবির কাজও শুরু করে দিয়েছেন পরিচালকেরা।
এ রকম ছবির তালিকায় আছে ইত্তেফাক, স্বপ্নবাজি, আকবর: ওয়ানস আপন আ টাইম ইন ঢাকা ও ব্লাড। চলচ্চিত্রপাড়ায় শোনা যায়, ছবিগুলোর পরবর্তী শুটিং অনেকটাই অনিশ্চিত।

default-image

আটকে থাকা ছবির অভিনেতা–অভিনেত্রী ও কলাকুশলীরাও বলতে পারছেন না কবে থেকে এই ছবিগুলোর শুটিং শুরু হবে। কেননা নতুন করে তাঁদের কাছ থেকে শুটিং শিডিউলও নেননি পরিচালক। এগুলোর মধ্যে ইত্তেফাক ছবির প্রায় ৩০ শতাংশ কাজ শেষ হয়েছে। প্রায় এক বছর হলো বন্ধ ছবির শুটিং।

বিজ্ঞাপন

শোনা যায়, শুটিং হওয়া অংশটুকুর খরচ নিয়ে ভেতরে–ভেতরে ছবির পরিচালক রায়হান রাফির সঙ্গে প্রযোজকের মনোমালিন্যের সৃষ্টি হয়েছে। পুরোনো ছবি রেখে এরই মধ্যে নতুন ছবির শুটিং শুরু করেছেন এই পরিচালক। এসব কারণে ইত্তেফাক ছবির ভবিষ্যৎ নিয়ে অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। অবশ্য ছবির পরিচালক রায়হান রাফি বিষয়টি মানতে নারাজ।

default-image

তিনি বলেন, ‘ইত্তেফাক ছবির কাজ হবে। আগামী বছর এই ছবির শুটিং শুরু করার পরিকল্পনা রয়েছে।’ তবে ছবির নায়ক সিয়াম আহমেদ জানেন না কবে শুটিং শুরু হবে। সিয়াম বলেন, ‘কবে বাকি কাজ শেষ হবে, তা আমার জানা নেই। অনেক দিন হয়ে গেল শুটিংয়ের কোনো শিডিউল নেওয়া হয়নি। পুরো বিষয়টি পরিচালকই ভালো বলতে পারবেন।’
একই পরিচালকের স্বপ্নবাজি ছবিটি নিয়েও রয়েছে অনিশ্চয়তা। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে ছয় দিন শুটিং করার পর প্রায় ৯ মাস বন্ধ আছে ছবির কাজ। আবার কবে শুটিং শুরু করতে পারবেন, নিশ্চিত করতে পারেননি রায়হান রাফি।

ছবির নায়িকা মাহিয়া মাহি জানালেন, গত নভেম্বর মাসে শুটিং শুরুর কথা মৌখিকভাবে মাহিকে জানিয়েছিলেন পরিচালক। ডিসেম্বর চলে যাচ্ছে, শুটিংয়ের কোনো খবর নেই। এই অভিনেত্রী বলেন, ‘নভেম্বর মাসে শুটিং শুরু করার কথা বলেছিলেন পরিচালক। কিন্তু শুটিং তো হলো না। পরে আমাকে কিছু জানাননি। জানি না কী হবে এই ছবির।’

default-image

গত জানুয়ারি মাসে মাত্র দুদিন শুটিং হয়েছিল সৈকত নাসির পরিচালিত আকবর: ওয়ানস আপন আ টাইম ইন ঢাকা ছবির। প্রায় ১১ মাস চলে গেলেও সেই ছবির কাজ আর শুরু হয়নি। এই ছবির শুটিং না করলেও এরই মধ্যে সৈকত নাসির নতুন ছবি বর্ডার–এর শুটিং শেষ করেছেন। আ জার্নি উইথ ইউ নামে আরেকটি ছবির কিছু শুটিং করাও হয়ে গেছে। আগামী বছরের জানুয়ারি মাস থেকে ক্যাশ নামে আরেকটি নতুন ছবির শুটিং শুরু করবেন তিনি। এপ্রিল মাসে করবেন মাসুদ রানা। আকবর: ওয়ানস আপন আ টাইম ইন ঢাকা–এর কাজ শুরু না করলেও একের পর নতুন ছবির কাজ করছেন সৈকত নাসির। তবে কি আকবর: ওয়ানস আপন আ টাইম ইন ঢাকা নিয়ে অনিশ্চয়তা আছে?

বিজ্ঞাপন

সৈকত নাসির বলেন, ‘এর আগে শুটিংয়ের জন্য প্রযোজককে বলেছিলাম। তখন তিনি করেননি। এখন আগামী বছরের শুরু থেকে আমার অনেকগুলো নতুন ছবির কাজ হবে। যদি আকবর: ওয়ানস আপন আ টাইম ইন ঢাকা ছবির কাজ করতে হয়, তাহলে আগামী বছরের আগস্ট-সেপ্টেম্বরের আগে শুরু করা আমার পক্ষে সম্ভব নয়। আপাতত এ ছবি নিয়ে আর কিছুই বলতে পারব না।’
ওয়াজেদ আলীর ব্লাড ছবির শুটিং অনেকটাই অনিশ্চিত হয়ে গেছে। গত ৩ মার্চ ছবির মহরত হয়। ওই দিন ছবির নায়ক-নায়িকা ইমন ও মাহিকে নিয়ে একটি দৃশ্য ধারণ করা হয়। পরে ২৫ মার্চ থেকে শুটিং শুরু করার কথা থাকলেও প্রায় ১০ মাস পার হতে চলল, শুটিংয়ের কোনো খবর নেই। হবে কি না, তা নিয়ে পরিচালক নিজেও সন্দিহান। তিনি বলেন, ‘২৫ মার্চ থেকে শুটিং করার কথা ছিল। কিন্তু প্রযোজকের দিক থেকে কোনো সাড়া পাইনি। অনেক দিন হলো প্রযোজকের সঙ্গে আমার কোনো যোগাযোগ নেই। এই ছবি আর না হওয়ার আশঙ্কাই বেশি।’

default-image
ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন