বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

দীর্ঘদিন পর অভিনয় করতে যাচ্ছেন।

অস্ট্রেলিয়ায় থাকাকালীন কাজটি নিয়ে কথা হয়। আমি চিত্রনাট্য না পড়ে কথা দিইনি। আমার কাছে চিত্রনাট্য ও চরিত্র খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ঢাকায় এসে চিত্রনাট্য পড়লাম। যে ধরনের কাজের জন্য দীর্ঘদিন অপেক্ষা করেছিলাম, চিত্রনাট্য পড়ার পরে মনে হলো অপেক্ষার অবসান হয়েছে। ওয়েব ফিল্মটিতে একেবারেই ভিন্ন মাহফুজ আহমেদকে দেখা যাবে।

আপনি যখন নিয়মিত কাজ করতেন, তখনকার আর এখনকার কাজের তফাত কী?

আমাদের সময়ে কাজের প্রতি প্রেম ছিল। একটি চরিত্র ধারণ করার জন্য একজন অভিনেতার কাজের প্রতি প্রেম খুবই গুরুত্বপূর্ণ। এ কারণে টাকাপয়সার দিকে তাকাতাম না। কাজ কয় শিফটের, কত দিনের—হিসাব করতাম না। ভালো চরিত্রের জন্য অনেক ছাড় দিতাম। চরিত্রটি তৈরিতে চিত্রনাট্য নিয়ে অনুশীলন করতাম। যে কারণে আমাদের সময়ের অনেক তারকাকে নাটকের চরিত্র ধরে ডাকতেন দর্শকেরা। আমি কিন্তু নিয়মিতই বাংলাদেশের নাটক দেখি। এখনকার অভিনেতাদের কি নাটকের চরিত্রের নাম ধরে ডাকতে দেখা যায়? আমার মনে হয় না।

আপনি পরিচালক ও প্রযোজক হিসেবেও সুনাম কুড়িয়েছিলেন।

কাজ করতে করতে একটা সময় দেখলাম আমাকে দিয়ে শুধু শহরের আর প্রেমিকের চরিত্র করানো হয়। সেখান থেকে বের হওয়ার জন্য প্রযোজনায় নেমেছিলাম। নূরুল হুদা, চৈতা পাগল–এর মতো অনেক ভিন্নধর্মী প্রযোজনা করেছি। প্রচলিত ধারা থেকে বের হওয়ার জন্য সিনেমা প্রযোজনা করেছি। জিরো ডিগ্রি ছবিতে কাজের জন্য আমি ও জয়া আহসান জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারও পেয়েছি। আমার এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় এসে কাজ করার কারণ হলো মানুষের দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন। ধীরে ধীরে টেলিভিশনের প্রতি আস্থা কমেছে। সিনেমা হলে গিয়ে মানুষ সিনেমা দেখা কমিয়ে দিচ্ছে। ওটিটির কাজ আস্তে আস্তে এগোচ্ছে। এ কারণে আমি কোথায় কাজ করব, নির্ধারণ করতে পারিনি। অনেক শ্রম, মেধা, পয়সা খরচ করে একটা কিছু করলাম কিন্তু কোথায় দেখাব বুঝতে পারছি না। এসব ভাবনা থেকে মাঝখানে কাজ করিনি। তবে আগামী দিনে কাজ করার প্রস্তুতি হিসেবে ওই সময়টাতে কিছু জিনিস গুছিয়েছি। সে সময় একই রকমের গল্প, একই রকমের চরিত্রে কাজ করতে করতে ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলাম। ওভাবে কাজ করতে থাকলে অভিনেতা হিসেবে আমার যে ইমেজ, তার অনেক ক্ষতি হতো।

default-image

এখন থেকে কি নিয়মিত কাজ করবেন?

করব, তবে গণহারে না। আমি সেই কাজগুলোই করব, যেগুলো আমার কাছে চ্যালেঞ্জিং মনে হবে। কেউ যদি সে ধরনের গল্প–চরিত্র নিয়ে আমার কাছে আসেন, কাজ করব। এমন কাজ যদি বছরে পাঁচটা হয়, পাঁচটাই করব। বছরে যদি একটাও না হয়, করব না। পাশাপাশি আমার প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান ‘বাণীচিত্র’ থেকে প্রযোজনার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন