বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

‘চিরঞ্জীব মুজিব’ ছবির সৃজনশীল পরিচালক জুয়েল মাহমুদ এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, বাংলাদেশের চলচ্চিত্রের ইতিহাসে অনন্য নজির সৃষ্টি করতে যাচ্ছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’ অবলম্বনে নির্মিত পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘চিরঞ্জীব মুজিব’।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও তাঁর ছোট বোন শেখ রেহেনা নিবেদিত ছবিটি প্রথাগত ধারা ভেঙে ঢাকার বাইরের জেলা শহরের একটি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি দেওয়া হচ্ছে।
জুয়েল মাহমুদ আরও বলেন, ‘চিরঞ্জীব মুজিব’–এর শুভমুক্তি উপলক্ষে বগুড়া শহর ছাড়াও আশপাশে সাঁটানো হয়েছে ছবিটির চার ধরনের ১০ হাজার পোস্টার, টানানো হয়েছে নানা ডিজিটাল ব্যানার। শহরের প্রাণকেন্দ্র সাতমাথা ও পুলিশ প্লাজার দুটি এলইডি পর্দায় দেখানো হচ্ছে ছবির ট্রেলার, চলছে মাইকিং এবং লিফলেট ও স্টিকার বিতরণ। সব মিলিয়ে ‘চিরঞ্জীব মুজিব’ শুভমুক্তি উপলক্ষে বগুড়া এখন রীতিমতো উৎসবের শহর।

শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনের ১৯৪৯ থেকে ১৯৫২ সাল; অর্থাৎ ভাষা আন্দোলনের পটভূমিতে নির্মিত হয়েছে ছবিটি। ছবির পরিচালক নজরুল ইসলাম বলেন, ‘মধুবন সিনেপ্লেক্সে “চিরঞ্জীব মুজিব”–এর প্রদর্শনী উপলক্ষে সব শ্রেণির দর্শকের কাছ থেকে ব্যাপক সাড়া মিলেছে। ইতিমধ্যে মধুবন সিনেপ্লেক্সের প্রথম দিনের প্রায় সব কটি শোর টিকিট আগাম বিক্রি হয়ে গেছে। রাজশাহী কৃষি উন্নয়ন ব্যাংক (রাকাব), বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশেন (বিএমএ), সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট ছাড়াও বিভিন্ন পেশাজীবী সংগঠন শোর টিকিট আগাম বুকিং দিচ্ছে। বিভিন্ন স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থীকেও চলচ্চিত্রটি টিকিট কেটে দেখানোর বিশেষ উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। মুক্তির আগেই দর্শকের আগ্রহের কারণে ছবিটির বাণিজ্যিক প্রদর্শন নিয়ে আমরা খুব আশাবাদী।’

বগুড়ার পরে পর্যায়ক্রমে দিনাজপুর ও রংপুর শহরে ‘চিরঞ্জীব মুজিব’ চলচ্চিত্রটি মুক্তি দেওয়া হবে। ‘চিরঞ্জীব মুজিব’ চলচ্চিত্রে বঙ্গবন্ধুর চরিত্রে অভিনয় করেছেন আহমেদ রুবেল। বেগম ফজিলাতুন্নেছার চরিত্রে অভিনয় করেছেন চিত্রনায়িকা পূর্ণিমা এবং বঙ্গবন্ধুর বাবা ও মায়ের চরিত্রে অভিনয় করেছেন যথাক্রমে খায়রুল আলম সবুজ ও দিলারা জামান। অন্যান্য চরিত্রে অভিনয় করেছেন প্রয়াত এস এম মহসীন, নরেশ ভুঁইয়া, শতাব্দী ওয়াদুদ, মানস বন্দ্যোপাধ্যায়, আরমান পারভেজ মুরাদ, কায়েস চৌধুরী, আজাদ আবুল কালাম, সমু চৌধুরীসহ পাঁচ শতাধিক শিল্পী।

‘চিরঞ্জীব মুজিব’ প্রযোজনা করেছেন লিটন হায়দার। সংগীত পরিচালনা করেছেন ইমন সাহা। চলচ্চিত্রটির গানে কণ্ঠ দিয়েছেন সাবিনা ইয়াসমীন, কুমার বিশ্বজিৎ, কোনাল, নোলক বাবু, কিরণ চন্দ্র রায়। ‘চিরঞ্জীব মুজিব’ চলচ্চিত্রের পরিচালক নজরুল ইসলাম বলেন, বঙ্গবন্ধুর আত্মজীবনী নিয়ে নির্মিত চলচ্চিত্রের প্রথম পর্ব ‘চিরঞ্জীব মুজিব’ ছবিটিতে শুধু শিল্পীদের দুর্দান্ত অভিনয় আর নির্মাণশৈলীই দর্শকদের মুগ্ধ করবে না, তাঁদের অতীত ইতিহাসেও ফিরিয়ে নিয়ে যাবে। ইতিহাসের ওই সময়কে ফুটিয়ে তুলতে পুরোনো দিনের গাড়ি, পুরোনো ট্রেন, পুরোনো বাড়ি শুটিংয়ে ব্যবহার করা হয়েছে।
নির্মাতা জানিয়েছেন, বাকি তিনটি পর্ব নির্মাণের কাজ শুরু হবে শিগগির। এর মধ্যে বঙ্গবন্ধুর শৈশব ও কৈশোর নিয়ে একটি পর্ব, ১৯৫৩ থেকে ১৯৭১ সালের রাজনৈতিক জীবন নিয়ে একটি পর্ব এবং ১৯৭২ থেকে ১৯৭৫ সাল পর্যন্ত একটি পর্ব নির্মিত হবে।

মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন