চোখের পাতা না ফেলে শুটিং শেষ করলেন জয়া
চোখের পাতা না ফেলে শুটিং শেষ করলেন জয়াকোলাজ

‘আমাকে বলা হয়েছে চোখের পাতা ফেলা যাবে না। রাহেলা চরিত্রটাই এমন। একটু অদ্ভুত। সে কাঁদে না। তিনি তাঁর সমস্ত আবেগ নিয়ন্ত্রণ করে নিজের ভেতর রাখতে পারেন। চোখের পাতা না ফেলে অভিনয় করা একজন অভিনয়শিল্পীর জন্য বড় চ্যালেঞ্জ।’ শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা এভাবেই শেয়ার করলেন অভিনেত্রী জয়া আহসান।
শুটিংয়ের আগে কি চোখের পাতা না ফেলার অনুশীলন করছিলেন? এক চিলতে হেসে বললেন, ‘না, আসলে শুটিংয়ে কী করতে হবে, সেটা অনুশীলন করার থেকে মাথার ভেতর ঢুকিয়ে নেওয়াটা গুরুত্বপূর্ণ। মন আর মাস্তিষ্ককে প্রস্তুত করা গুরুত্বপূর্ণ। প্রথম দিকে অসুবিধা হয়েছে। এই চরিত্রটার জন্য চোখের মণির রঙের একটা ভূমিকা ছিল। আমাকে তাই লেন্স পরতে হয়েছিল। আমি আবার ভারী মেকআপ নিয়ে লেন্স, আইল্যাশ বা এ রকম নকল কিছু লাগিয়ে ঠিকঠাক অভিনয় করতে পারি না। অস্বস্তি হয়।’

default-image
বিজ্ঞাপন

সম্প্রতি জয়া আহসান শেষ করলেন একটি ছবির কাজ। খুব কম সময়ে নারায়ণগঞ্জের পাশে জিন্দাগ্রামে হয়েছে শুটিং। আপাতত ছবির সম্পাদনার কাজ চলছে। তিনি জানিয়েছেন, ‘খাঁচা’র পরে আবারও আকরামের খানের পরিচালনায় আসতে যাচ্ছে জয়া আহসানের সিনেমা। ‘নকশি কাঁথার জমিন’ নামের সিনেমাটি নির্মিত হচ্ছে কথাসাহিত্যিক হাসান আজিজুল হকের ছোটগল্প ‘বিধবাদের কথা’ অবলম্বনে। ছবিতে জয়া আহসান এক বিধবা নারীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন। তাঁর চরিত্রের নাম রাহেলা। হবিগঞ্জ, সৈয়দপুর ও নারায়ণগঞ্জে ছবিটির শুটিং হয়েছে।

default-image

মুক্তিযুদ্ধের প্রেক্ষাপটে এই ছবির গল্প রাহেলা ও সালেহা নামের দুই বোনকে নিয়ে, যাদের বিয়ে হয় আবার সবর ও জবর নামের দুই ভাইয়ের সঙ্গে। তাদের মধ্যে সবর মুক্তিযোদ্ধা আর জবর রাজাকার। রাহেলা আর মুক্তিযোদ্ধা সবরের ছেলে রাহেলিল্লাহ আবার রাজাকার। অন্যদিকে সালেহা আর রাজাকার জবরের ছেলে সাহেবালি মুক্তিযোদ্ধা! ঘরের ভেতরেই শুরু হয় মুক্তিযুদ্ধ। এসবের ভেতর দিয়ে দুই বোনের সম্পর্ক, অসহায়ত্ব আর সংগ্রামের গল্প নিয়েই চলচ্চিত্র ‘নকশি কাঁথার জমিন’।

default-image

জয়া জানান, মহামারির গৃহকর্মী অনেকেই ছুটিতে। তাই ঘরের কাজ নিজেরই করতে হচ্ছে। পোষা কুকুর ক্লিওর দেখাশোনা করছেন। সকাল–বিকেল ছাদে গিয়ে গাছের পরিচর্যা করছেন। হাতে থাকা ছবির প্রি-প্রোডাকশনের কাজ করছেন। নিজের প্রযোজনা সংস্থা ‘সি তে সিনেমা’র কাজ এগিয়ে নিচ্ছেন। ছবির চিত্রনাট্য পড়ছেন। তবে নতুন কোনো ছবিতে আনুষ্ঠানিকভাবে চুক্তিবদ্ধ হননি জয়া আহসান।

default-image

করোনা মহামারির মধ্যেই গত সেপ্টেম্বরে ‘হাসিনা: দ্য ডটারস টেল’ নির্মাতা পিপলু আর খানের পরিচালনায় একটি ছবির কাজ শেষ করেছেন জয়া আহসান। ছবিটির নাম এখনো চূড়ান্ত হয়নি। এ ছাড়া ‘বিউটি সার্কাস’, ‘পেয়ারার সুবাস’ আছে মুক্তির অপেক্ষায়। এখনো নতুন কোনো বাংলাদেশি ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হননি জয়া। কলকাতায় মুক্তির অপেক্ষায় রয়েছে অন্তত পাঁচটি ছবি—‘বিনিসুতোয়’, ‘ভূতপরী’, ‘অর্ধাঙ্গিনী’, ‘ঝরা পালক’ ও ‘ওসিডি’।

default-image
বিজ্ঞাপন
ঢালিউড থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন